Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > পিএইচপিতে ভেরিয়েবল ও ডাটা টাইপ
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: মর্তুজা আশীষ আহমেদ
মোট লেখা:৭৭
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০০৮ - মার্চ
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
পিএইচপি
তথ্যসূত্র:
পাঠশালা
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
পিএইচপিতে ভেরিয়েবল ও ডাটা টাইপ



গত সংখ্যায় আমরা ভেরিয়েবল সম্পর্কে খানিকটা ধারণা পেয়েছিলাম৷ এই সংখ্যায় ভেরিয়েবল ও ডাটা টাইপ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে৷ সেই সাথে প্রজেক্ট নিয়েও আলোচনা করা হয়েছে৷ প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ এবং বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন কাজ করে ডাটা নিয়ে৷ প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ এই ডাটা কত ভালোভাবে হ্যান্ডল করতে পারে, তার ওপর নির্ভর করে প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজের দক্ষতা৷ আর যাবতীয় ডাটা রক্ষণাবেক্ষণ এবং কাজে লাগানো হয় প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজের ভেরিয়েবল এবং ডাটা টাইপের মাধ্যমে৷ ভেরিয়েবল এবং ডাটা টাইপের কনসেপ্ট কাছাকাছি৷ প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজের কিছু নির্দিষ্ট ধরনের ভেরিয়েবলকেই ডাটা টাইপ বলা হয়ে থাকে৷ ইন্টিজার, ডাবল, ফ্লোট, ক্যারেক্টার (স্ট্রিং হচ্ছে ক্যারেক্টার দিয়ে তৈরি করা অ্যারে) প্রভৃতি হচ্ছে ডাটা টাইপ৷
ইন্টিজার হচ্ছে পূর্ণ সংখ্যা৷ দশমিক স্থানীয় কোনো সংখ্যা ইন্টিজারে রাখা যায় না৷ সাধারণ গাণিতিক হিসেব নিকাশের জন্য ইন্টিজার ব্যবহার করা হয়৷

ডাবল হচ্ছে ফ্লোটিং পয়েন্ট সংখ্যা৷ দশমিক স্থানীয় সংখ্যা রাখার জন্য ডাবল ব্যবহার করা হয়ে থাকে৷ ভাগফল থেকে শুরু করে দশমিক সহকারে যেকোনো সংখ্যা ডাবলে রাখা যায়৷

বুলিয়ান এমন এক ধরনের ডাটা টাইপ, যাতে দুই ধরনের ভ্যালু রাখা যায়৷ একটি TRUE এবং আরেকটি FALSE ৷ নাল একটি ডাটা টাইপ, যাতে মাত্র একটি ভ্যালু রাখা যায়৷ ভ্যালুটি হচ্ছে NULL ৷ এই ডাটা টাইপগুলো সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করা হয়৷ এগুলো ছাড়াও আরো অনেক ধরনের ডাটা টাইপ পিএইচপিতে পাওয়া যায়৷ এবারে এই ডাটা টাইপগুলো প্রোগ্রামে কিভাবে কাজে লাগানো যায়, তা দেখানো হয়েছে৷ কোড-১ :

"); echo gettype($a_str); if (is_int($an_int)) { $an_int += 4; } if (is_string($a_bool)) { echo "String: $a_bool"; } ?>

কোড বিশ্লেষণ

কোরে দ্বিতীয় লাইনে একটি বুলিয়ান ডিক্লিয়ার করা হয়েছে৷ এই বুলিয়ানের মান নির্ধারণ করা হয়েছে TURE ৷ তৃতীয় এবং চতুর্থ লাইনে দুইটি স্ট্রিং ডিক্লিয়ার করা হয়েছে৷ পঞ্চম লাইনে একটি ইন্টিজার ডিক্লিয়ার করা হয়েছে- যার মান নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে ১২৷ ষষ্ঠ এবং অষ্টম লাইনে যথাক্রমে বুলিয়ান এবং স্ট্রিং প্রিন্ট করা হয়েছে৷ সপ্তম লাইনে নিউলাইন প্রিন্ট করা হয়েছে৷ কোডের বাকি লাইনগুলোতে কন্ডিশনাল স্টেটমেন্ট ব্যবহার করা হয়েছে৷ নবম এবং দশম লাইনে একটি কন্ডিশন দেয়া হয়েছে৷ এই কন্ডিশনের মাধ্যমে নির্ধারণ করা হয়েছে যে, ইন্টিজার হলে তার মান ৪ বাড়ানো হবে৷ দ্বাদশ এবং ত্রয়োদশ লাইনে আরেকটি কন্ডিশনাল স্টেটমেন্ট ব্যবহার করা হয়েছে৷ এই স্টেটমেন্টে স্ট্রিং নির্ধারণ করে তা প্রিন্ট করার ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ এই কোডে একটি নতুন ফাংশন ব্যবহার করা হয়েছে৷ এই ফাংশনটি হচ্ছে is_type ৷ যে ডাটা টাইপের সাথে এই ফাংশন ব্যবহার করতে চান type -এর স্থানে সেই ডাটা টাইপ বসাতে হবে৷ is_type ফাংশন দিয়ে ফাংশনের ধরণ বের করে তা কোডে কাজে লাগানো যায়৷ এবারে আমরা দেখি যে টাইপগুলো কোডে কীভাবে কাজ করে৷ কোডে আমরা ইন্টিজার, স্ট্রিং, বুলিয়ান প্রভৃতির ব্যবহার দেখবো৷


কোড-২ :

"); $str=This is a test.; echo ($str); echo gettype($str); print("
"); $first=$str[0]; $third=$str[2]; $str=This is still a test.; $last=$str[strlen($str)-1]; $str=Lookatthesea; echo gettype($str); echo ($str); print("
"); $str[strlen($str)-1]=e; $third=$str{2}; echo gettype($third);print("
"); var_dump((bool)"");//bool(false) var_dump((bool)1);//bool(true) var_dump((bool)-2);//bool(true) var_dump((bool)"foo");//bool(true) var_dump((bool)2.3e5);//bool(true) var_dump((bool)array(12));//bool(true) var_dump((bool)array());//bool(false) var_dump((bool)"false");//bool(true) print("
"); $a=1.234; $b=1.2e3; $c=7E-10; echo gettype($c); ?>

কোড বিশ্লেষণ

কোরে দ্বিতীয় লাইনে একটি ইন্টিজার ডিক্লিয়ার করা হয়েছে যার ভ্যালু ১২ এস্যাইন করে দেয়া হয়েছে৷ এই কোডে কী ধরনের টাইপ ব্যবহার করা হয়েছে তা জানার জন্য gettype() ফাংশন দিয়ে টাইপ বের করা হয়েছে৷ কোডের তৃতীয় লাইনে এই ফাংশন প্রিন্ট করা হয়েছে৷ কোডের আউটপুট বুঝার জন্য চতুর্থ লাইনে নিউ লাইন প্রিন্ট করা হয়েছে৷ এরপরে পঞ্চম লাইনে একটি স্ট্রিং নেয়া হয়েছে৷ পরের লাইনে এই স্ট্রিং প্রিন্ট করা হয়েছে৷ সপ্তম লাইনে এর টাইপ বের করা হয়েছে৷ এই কোডে অ্যারে নিয়ে কাজ করা হয়েছে৷ আমরা অ্যারে নিয়ে পরে আলোচনা করবো৷ কোডের সর্বশেষ পাঁচটি লাইনে ইন্টিজার নিয়ে কাজ করা হয়েছে৷ ডাটা কিভাবে ইন্টিজারে রাখতে হয় এবং কিভাবে ইন্টিজার কাজ করে সেটি দেখানো হয়েছে৷ কোডের একুশতম লাইন থেকে উনত্রিশতম লাইন পর্যন্ত বুলিয়ান নিয়ে কাজ করা হয়েছে৷ এখানে শুধু টাইপগুলোর ব্যবহার দেখানো হয়েছে৷ পরবর্তীতে এগুলোকে প্রজেক্টে কাজে লাগানো হবে৷ কোডগুলোকে নোটপ্যাডে টাইপ করে ইচ্ছেমতো পিএইচপি এক্সটেনশনযুক্ত নাম দিয়ে সার্ভারের নির্দিষ্ট ফোল্ডারে রেখে সার্ভার চালু করতে হবে৷ এরপরে ব্রাউজার ওপেন করে অ্যাড্রেস http://localhost/ লিখে ফাইলের নামটি লিখতে হবে৷ এভাবে আউটপুট দেখা যাবে৷


ফিডব্যাক : ortuza_ahmad@yahoo.com
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
২০০৮ - মার্চ সংখ্যার হাইলাইটস
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস