Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > গুগল নামলো ব্রাউজার রেসে
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: তাসনীম মাহ্‌মুদ
মোট লেখা:১২১
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০০৮ - ডিসেম্বর
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
ইন্টারনেট
তথ্যসূত্র:
ইন্টারনেট
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
গুগল নামলো ব্রাউজার রেসে
ক্রোম একটি ওপেন সোর্স ওয়েব ব্রাউজার। এটি বর্তমানে পরিণত হয়েছে বিদ্যমান ওয়েব ব্রাউজারের সমধর্মিতার।


একথা অস্বীকার করা যাবে না যে, গুগল এখনো সবচেয়ে কমপ্রিহেনসিভ সার্চ ইঞ্জিন। তবে ২ সেপ্টেম্বর, ২০০৮-এ গুগল তার ওয়েব ব্রাউজার ক্রোম লঞ্চ করার ঘোষণা দিয়ে বিশ্ববাসীকে চমকে দিয়েছে। ক্রোম একটি ওপেন সোর্স ওয়েব ব্রাউজার। এটি বর্তমানে পরিণত হয়েছে বিদ্যমান ওয়েব ব্রাউজারের সমধর্মিতার। শুধু তাই নয়, ওয়েব ব্রাউজার মার্কেটপ্লেসেও আবির্ভূত হতে চেষ্টা করছে, যা টেকনিক্যালি গুগল ইতোপূর্বে কখনই অর্জন করতে পারেনি।

গুগল ক্রোম

অন্যান্য গুগল অ্যাপ্লিকেশনের মতো ক্রোমও একটি সহজ ওয়েব ব্রাউজার। এটি ওপেন সোর্স ওয়েব ব্রাউজার যা বেশ দ্রুত, স্থায়ী এবং এটি তৈরি করা হয়েছে ফায়ারফক্স ও এপলের ওয়েবকিট রেন্ডারিং ইঞ্জিনের উপাদানের ধারণাকে উপজীব্য করে। যদিও গুগল মজিলার জন্য দীর্ঘদিন ধরে অর্থ বিনিয়োগ করে আসছে, তারপরও গুগল চায় ওয়েবকিট ইঞ্জিন ব্যবহার করতে, যা অ্যাপলের সাফারি ওয়েব ব্রাউজারকে ফায়ারফক্সের গেকোর চেয়ে শক্তিশালী। এর মাধ্যমে গুগল দেখাতে চায়, তারা বিশ্বের সেরা ওপেন সোর্স ওয়েবকিট ক্রোমকে অফার করছে স্পিড, অ্যাপেয়ারেন্সের জন্য ক্রোম হয়েছে ব্লেন্ড বাহ্যিক স্কিনের জন্য। অ্যাড্রেস বারকে অভিহিত করা হয়েছে ওমনিবার হিসেবে। এই অ্যাড্রেস বারের পাশে রাখা হয়েছে দুটি বাটন। ওয়েব ব্রাউজারকে কন্ট্রোল করার জন্য এই বাটন দুটিতে রয়েছে বেশিরভাগ অপশনের লিস্ট। কনটেন্ট ভিউ করার জন্য এতে রয়েছে অধিকতর স্পেস। যেহেতু ফায়ারফক্সের কিছু উপাদান ক্রোমে সম্পৃক্ত করা হয়েছে তাই ফায়ারফক্সের ব্যবহারকারীরা এটি খুব সহজেই ব্যবহার করতে পারবেন কেননা ক্রোমের সব শর্টকাটই ফায়ারফক্সের মতো। এটি ট্যাব ব্রাউজিং সুবিধা দেয়। ফলে ক্রোম অন্যান্য ব্রাউজার থেকে কিছুটা ভিন্নতা লাভ করে।



ক্রোমে প্রতিটি ট্যাব স্টার্ট হয় একেকটি ভিন্ন প্রসেস হিসেবে। যার অর্থ হচ্ছে, যদি কোনো ট্যাবে একটি সাইট ক্র্যাশ করে, তাহলে পুরো ব্রাউজার থেমে যাবে না এবং অন্যান্য ট্যাব সম্পূর্ণ অক্ষত থাকবে। উইন্ডোজ টাস্ক ম্যানেজারের মতো ক্রোমেও রয়েছে টাস্ক ম্যানেজার, যা একই ধরনের কাজ করে। ক্রোমে আপনার কার্যাবলীসমূহ মনিটর করতে পারবেন খুব সহজেই। তাছাড়া কোন কোন ট্যাব বা প্রসেস প্রচুর পরিমাণে মেমরি ব্যবহার করে তাও মনিটর করতে পারবেন ক্রোমে। ক্রোমের অনেক নতুন ফিচার আছে। উদাহরণস্বরূপ ওমনিবার সার্চ বক্সের অ্যাড্রেসবারের সাথে মার্জ করা। এক্ষেত্রে বারে টাইপ করা শুরু করলে এটি হিস্টোরি থেকে ইউআরএল তুলে নিয়ে সংশ্লিষ্ট লিঙ্কভিত্তিক পরামর্শ প্রদান করবে।

প্রাইভেসির জন্য ক্রোমে একটি অপশন রয়েছে, যা ইনকগনিটো ব্রাউজিং মোডে অর্থাৎ ছদ্মবেশী মোডে কাজ করার সুবিধা প্রদান করে। এই মোডে কাজ করলে সার্ফ করা পেজসমূহ হিস্টোরিতে সেভ হয় না। এমনকি কুকিও সেভ হয় না। যাদের কাছে প্রাইভেসির ব্যাপারটি মুখ্য, সেসব ওয়েব ইউজারের কাছে এই অপশনটি অত্যমত্ম কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে। এটি গিয়ার সাপোর্ট করে, যা অফলাইনে অ্যাপ্লিকেশন রান করতে পারে। সুতরাং যেকোনো ক্রোম ব্যবহারকারী জি-মেইল, গুগল ক্যালেন্ডার এবং গুগল ডকস-এর মতো অ্যাপ্লিকেশনকে এই ব্রাউজারে ইন্টিগ্রেড করার প্রত্যাশা করতে পারেন।

গুগল কেনো এ ডোমেইনে এন্টার করলো

সাধারণ জ্ঞানের আলোকে বলা যায়, গুগল-মাইক্রোসফটের পারস্পরিক প্রতিদ্বন্দ্বী মনোভাবই এই ব্রাউজারের সৃষ্টির অমত্মর্নিহিত কারণ। গুগলের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী মাইক্রোসফট কার্যকরভাবে তাদের সার্ভিসে অ্যাক্সেসকে নিয়ন্ত্রণ করছে, যা স্বল্প সময়ের জন্য ভালো হলেও দীর্ঘমেয়াদী কর্মকান্ডের জন্য মোটেও সুখকর হতে পারে না। তাছাড়া গুগল আরো মনে করে, ব্রাউজার ল্যান্ডস্কেপ প্রচন্ডভাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ এবং ব্যবহারকারীরা সেই ব্রাউজারই চায়, যা তাদের কাঙ্ক্ষিত সার্ভিসকে তাৎক্ষণিকভাবে প্রদান করবে এবং অনলাইনে ব্যক্তিগত ডাটাকে নিজেদের পছন্দমতো করে নিয়ন্ত্রণ করবে। যদিও ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার এবং মজিলার মতো ব্রাউজার বর্তমানে রয়েছে এবং এগুলো দক্ষতার সাথে কাজ করছে। তারপরও গুগল দৃঢ়ভাবে মনে করে, ক্রোম ব্যবহারকারীদের জন্য ভ্যালু অ্যাড করবে। গুগল চায় ওয়েব ব্রাউজার ওয়েব ২.০তে শিফট করবে। সেখানে আগামী দিনের সব অ্যাপ্লিকেশন নিহিত থাকবে।

ডেস্কটপের কর্তৃত্ব দখল করবে ক্রোম

অনেক বিশেষজ্ঞ ও অ্যানালিস্টের মতে ক্রোমের পেছনে রয়েছে গুগলের গোপন এজেন্ডা। এটি আপনার ডেস্কটপের সম্পূর্ণ কর্তৃত্ব দখল করবে, অবৈধভাবে আপনার ব্যক্তিগত ব্রাউজিং আচরণ জেনে নেবে, জেনে নেবে ব্যবহারকারীর পছন্দ-অপছন্দ, যাতে করে গুগল পেজে যথাযথ অ্যাড সার্ভ করতে পারে। অবশ্য গুগল ট্রান্সপারেন্সি এবং প্রতিশ্রুতির ব্যাপারে যথেষ্ট সচেতন হিসেবে দাবি করে। গুগলের মূল লক্ষ্য হলো তার ব্যবহারকারীদের জন্য সেরা নতুন নতুন প্রোডাক্ট উদ্ভাবন করা, যাতে করে ব্যবহারকারী দ্রুতগতিতে তথ্যে অ্যাক্সেস, শেয়ার এবং কনটেন্ট তৈরি করতে পারে। এসব ক্ষেত্রের প্লাটফরম হবে অধিকতর নিরাপদ এবং স্ট্যাবল। ক্রোম ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে বাড়তি ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ করছে না। গুগল ক্রোমের কিছু ফিচার যেমন ক্র্যাশ রিপোর্ট, এরর পেজ ইত্যাদি বাড়তি কিছু তথ্য গুগলে পাঠায়। তবে তথ্যগুলো পার্সোনাল নয় এবং এসব তথ্য খুব সহজেই বন্ধ করা যায়। বিশেষজ্ঞরা অনেকেই স্বীকার করেন, ক্রোমের কিছু ফিচার বেশ দ্রুত প্রসেসিং ক্ষমতাসম্পন্ন এবং ন্যূনতম অ্যাপেয়ারেন্সবিশিষ্ট হওয়ার পরও গুগল ক্রোম দেখতে চমৎকার এবং যথেষ্ট কার্যকর। তবে এতে অ্যাড অন সুবিধা নেই যা ফায়ারফক্স অফার করে। এই ফিচার এমন অপশন অফার করে যা দিয়ে ব্যবহারকারীরা তাদের পছন্দ অনুযায়ী ব্রাউজারকে কাস্টোমাইজ করতে পারবে। এই ধরনের সুবিধা গুগলে নেই। যেহেতু ক্রোম একটি ওপেন সোর্স ব্রাউজার, তাই ব্যবহারকারীরা এমন অপশন প্রত্যাশা করছে যাতে করে ক্রোম তার উন্নয়ন শীর্ষ পর্যায়ে নিতে পারে।

ক্রোমের মজার কিছু বিষয়

ক্রোমে কিছু গোপন ফাংশন রয়েছে, যেগুলো চেক করতে চাইলে ক্রোমের অ্যাড্রেস বারে নিচে বর্ণিত কমান্ড গুলো টাইপ করতে হবে :

about:memory-মেমরির ব্যবহার প্রদর্শন করে। অনুরূপভাবে সিস্টেমে ওপেন ব্রাউজারের অবসান ঘটানো।
about:memory-বিভিন্ন প্যারামিটারের পরিপূর্ণ অবস্থা প্রদর্শন করে, যার ওপর ক্রোম নির্ভর করে।
about:internets-থ্রিডি পাইপের একটি স্ক্রিনসেভার চালু করে। এটি ভিসতায় কাজ করে না, কেননা পাইপ স্ক্রিনসেভার শুধু এক্সপিতে পাওয়া যায়।
about:ins-ভিজিট করা সাইটে ডিএনএস লিস্ট প্রদর্শন করে।
about:plugins-ইনস্টল হওয়া এবং সাপোর্টেড প্লাগইনের লিস্ট।
about:network-নেটওয়ার্ক অ্যাক্টিভিটি প্রদর্শন করে যেগুলো ১/০ রিকোয়েস্টের জন্য যাবে।
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
২০০৮ - ডিসেম্বর সংখ্যার হাইলাইটস
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস