Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > সম্ভাবনাময় ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: মো: জাকারিয়া চৌধুরী
মোট লেখা:৩৫
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০০৯ - এপ্রিল
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
ফ্রিল্যান্স
তথ্যসূত্র:
ঘরে বসে ‍আয়
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
সম্ভাবনাময় ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার



এনভাটো (www.Envato.com) হচ্ছে একটি অস্ট্রেলিয়াভিত্তিক প্রতিষ্ঠান, যা অনেকগুলো মার্কেটপ্লেস এবং কয়েকটি টিউটরিয়াল ওয়েবসাইট। এনভাটোর প্রত্যেকটি ওয়েবসাইটই অত্যন্ত আকর্ষণীয় এবং উন্নত বৈশিষ্ট্যে পরিপূর্ণ। ২০০৬ সালে একটি লিভিং রুম থেকে যাত্রা শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি আজ দেড় লক্ষ ব্যবহারকারী নিয়ে সগৌরবে এগিয়ে চলেছে। পুরো প্রতিষ্ঠানটিই গঠিত হয়েছে ই-মেইল এবং স্কাইপ সফটওয়্যারের সাহায্যে যোগাযোগের মাধ্যমে। এদের মূল লক্ষ্য উন্নতমানের সার্ভিস প্রদান, ইন্টারনেটে বিভিন্ন কমিউনিটি তৈরি এবং নিরবচ্ছিন্নভাবে মানসম্মত কনটেন্ট প্রদান করা।

এনভাটো মার্কেটপ্লেস FlashDen, AudioJungle, VideoHive, ThemeForest এবং GraphicRiver নামের পাঁচটি সাইট নিয়ে গঠিত। প্রত্যেকটি সাইটের গঠন এবং ব্যবহার পদ্ধতি একই রকম। যেকোনো একটি সাইটে রেজিস্ট্রেশন করে অন্য সব সাইটে একই ব্যবহারকারী অ্যাকাউন্ট দিয়ে প্রবেশ করা যায়। যেকেউ ইচ্ছে করলেই এ এনভাটো মার্কেটপ্লেসে রেজিস্ট্রেশন করে তাদের যেকোনো সাইট থেকে আয় করতে পারবেন। এ লেখাটি www.ThemeForest.net সাইটের ওপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে।

থিমফরেস্ট সাইটটি ওয়েবসাইট ডিজাইন বা টেম্পলেট কেনা-বেচার জন্য বিশেষভাবে গঠিত। সবগুলো টেম্পলেট মূলত পাঁচটি ভাগে বিভক্ত। এগুলো হচ্ছে এইচটিএমএল টেম্পলেট, ওয়ার্ডপ্রেস পিএসডি টেম্পলেট, জুমলা এবং অন্যান্য। সাধারণত ফটোশপ দিয়ে ওয়েবসাইটের টেম্পলেটগুলো তৈরি করা হয়, যা কমপিউটার জগৎ-এর গত সংখ্যায় বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। এনভাটো মার্কেটপ্লেসে যারা ডিজাইন বা অন্যান্য প্রোগ্রামের ফাইল বিক্রি করেন, তাদের প্রত্যেককে অর্থার বা লেখক হিসেবে উল্লেখ করা হয়। সাইটগুলোর লেখক হতে হলে প্রথমে ছোটখাটো একটি ক্যুইজে অংশ নিতে হয়। প্রকৃতপক্ষে এটি হচ্ছে সাইটের সব নিয়মকানুন সম্পর্কে অবগত হওয়া এবং তাতে সম্মতি জ্ঞাপন করা।

যেভাবে মার্কেটপ্লেস কাজ করে

একজন লেখক হিসেবে প্রথমে আপনি আপনার ইচ্ছেমতো যেকোনো ধরনের একটি ওয়েবসাইটের টেম্পলেট তৈরি করবেন। কাজ শেষে টেম্পলেটের ফাইলটি একটি ফর্মের সাহায্যে সাইটে আপলোড করবেন। এরপর সাইটের কর্তৃপক্ষ ফাইলটি যাচাই করে দেখবে এটি যথাযথ কাজ করে কিনা এবং থিম বা টেম্পলেট লাইব্রেরিতে অন্তর্ভুক্তির জন্য উপযুক্ত কিনা। আপনার টেম্পলেটটি গ্রহণযোগ্য হলে সাইটের কর্তৃপক্ষ এটির জন্য উপযুক্ত একটি মূল্য নির্ধারণ করে সাইটে আপলোড করবে। আর যদি কাজটি গ্রহণযোগ্য না হয় তাহলে কর্তৃপক্ষ আপনাকে টেম্পলেটটি পরিবর্তন করার যথাযথ দিকনির্দেশনা দেবে অথবা সাইটের জন্য একদমই অনুপযুক্ত কিনা তা ই-মেইলের মাধ্যমে জানাবে।

আপনার টেম্পলেটটি বিক্রির জন্য সাইটে স্থান পেলে, প্রত্যেকবার এটি বিক্রির ওপর একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ আপনাকে দেয়া হবে। আপনি যদি আপনার কাজ এক্সক্লুসিভভাবে এ সাইটে বিক্রির জন্য সম্মত হন তাহলে প্রতিটি টেম্পলেটের মূল্যেও ৪০% অর্থ আপনাকে দেয়া হবে। অর্থাৎ থিমফরেস্ট সাইটে বিক্রির জন্য আপলোড করা কোনো টেম্পলেট অন্য কোথাও পুনরায় বিক্রি করতে পারবেন না। আপনার টেম্পলেটগুলো যত অধিকমাত্রায় বিক্রি হবে, আয়ের পরিমাণও তত বেশি বাড়তে থাকবে। এভাবে একজন এক্সক্লুসিভ ব্যবহারকারীকে পর্যায়ক্রমে তার টেম্পলেটের মূল্যেও ৭০% অর্থ প্রদান করা হয়। অন্যদিকে নন-এক্সক্লুসিভ ব্যবহারকারী হিসেবে সাইটে রেজিস্ট্রেশন করলে আপনার তৈরিকৃত একই টেম্পলেট অন্য যেকোনো সাইটে বিক্রি করতে পারবেন। তবে থিমফরেস্ট সাইটে আপনার টেম্পলেটের জন্য ২৫% অর্থ প্রদান করা হবে। তাই এক্সক্লুসিভ ব্যবহারকারী হিসেবে সাইটে রেজিস্ট্রেশন করাই বেশি লাভজনক।



এ সাইটে পিএসডি ফরমেটে টেম্পলেটগুলোর মূল্য ৫ থেকে ১০ ডলার পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়। এইচটিএমএল এবং সিএসএস সহকারে তৈরি করা ওয়েবসাইটের টেম্পলেটের জন্য সর্বোচ্চ ২০ ডলার নির্ধারণ করা হয়। অন্যদিকে জুমলা এবং ওয়ার্ডস্পেসের টেম্পলেটগুলো সর্বোচ্চ ৪৫ ডলারে বিক্রি হয়ে থাকে। টেম্পলেটের মান এবং ক্রেতার চাহিদার ওপর নির্ভর করে এক একটি টেম্পলেট সাধারণত ২০ থেকে ৩০ বার পর্যন্ত বিক্রি হয়ে থাকে। একই টেম্পলেট একশ’ বারের ওপর বিক্রি হয়েছে এমন নজিরও নেহায়েত কম নয়। ফলে একই টেম্পলেট থেকে সময়ের সাথে সাথে আয় বাড়তে থাকে। ধরা যাক, আপনি একটি সাধারণ ওয়েবসাইটের টেম্পলেট এক্সক্লুসিভ ব্যবহারকারী হিসেবে তৈরি করেছেন, যার মূল্য ১০ ডলার নির্ধারণ করা হয়েছে। অর্থাৎ প্রত্যেকবার টেম্পলেটটি কোনো ক্রেতা সাইট থেকে কিনলে আপনি পাবেন ৪ ডলার। সময়ের সাথে সাথে একটি টেম্পলেট থেকেই ৮০ থেকে ১০০ ডলার বা তার চেয়ে অধিক আয় করা সম্ভব।

অর্থ উত্তোলনের পদ্ধতি

এনভাটো মার্কেটপ্লেসের যেকোনো সাইট থেকে আয় করা অর্থ তিনটি পদ্ধতিতে উত্তোলন করা যায়। এগুলো হচ্ছে Paypal, Moneybookers এবং ব্যাংক ট্রান্সফার। আমাদের দেশে যেহেতু পেপাল সাপোর্ট নেই তাই সাইটগুলো থেকে অন্য দুটি পদ্ধতির যেকোনো একটি দিয়ে অর্থ উত্তোলন করা যায়। মানিবুকারস দিয়ে অর্থ উত্তোলন করতে সর্বনিম্ন মোট আয় ৫০ ডলার হতে হবে। আর ব্যাংক ট্রান্সফারের জন্য কমপক্ষে ৫০০ ডলার আয় করতে হবে।

অনেকেই হয়ত জানেন না, মানিবুকারস পেপালের মতোই একটি সার্ভিস যা ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। এটি দিয়ে একদিকে যেমন বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং সাইট থেকে নিরাপদে এবং কম খরচে অর্থ সরাসরি আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে নিয়ে আসতে পারবেন, তেমনি এর পেমেন্ট গেটওয়ে ব্যবহার করে আপনার নিজস্ব ওয়েবসাইট থেকে পণ্য ও সার্ভিস বিক্রি করতে পারবেন। আশা করা যায় বাংলাদেশীদের জন্য ই-কমার্স সাইট তৈরির যে প্রধান প্রতিবন্ধকতা ছিল তা মানিবুকারসের কল্যাণে বহুলাংশে দূর হবে। মানিবুকারস নিয়ে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন www.FreelancerStory.blogspot.com সাইটে।

টেম্পলেট আপলোড করার পদ্ধতি

থিমফরেস্ট সাইটে একটি টেম্পলেট গ্রহণযোগ্য হতে হলে ফাইলগুলোকে একটি নির্দিষ্ট ফরমেটে সাজাতে হবে এবং ডিজাইনের গুণগত মান যাতে সাইটের নির্দেশমতো হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। টেম্পলেটের ধরন পিএসডি, এইচটিএমএল, ওয়ার্ডপ্রেস, জুমলা ইত্যাদির ওপর ভিত্তি করে এর আলাদা ফরমেট ও নির্দেশাবলী রয়েছে। তাই আপলোড করার পূর্বে নির্দেশনাগুলো ভালোভাবে দেখে নেয়া প্রয়োজন। সাধারণভাবে সব ফাইলের ক্ষেত্রে যে কাজগুলো করতে হবে তা হচ্ছে-

 ডিজাইনের ৮০x৮০ পিক্সেলের একটি থাম্বনেল ছবি যুক্ত করতে হবে।

ডিজাইনের একটি প্রিভিউ ছবি যুক্ত করতে হবে যার সর্বোচ্চ প্রস্থ হবে ১২০০ পিক্সেল।

মূল কাজটিকে একটি জিপ ফাইলে প্রয়োজনীয় সাহায্যকারী নির্দেশনা দিয়ে যুক্ত করতে হবে, যা পরিশেষে একজন ক্রেতা টেম্পলেটটি কেনার পর ডাউনলোড করবে।

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে জিপ ফাইলে যুক্ত কাজটিকে যতটা সম্ভব পরিবর্তনযোগ্য করে তৈরি করতে হবে। উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, ফটোশপের লেয়ারগুলো যাতে আলাদা আলাদা থাকে এবং লেখাগুলো যাতে পরিবর্তনযোগ্য হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

কপিরাইট সংক্রান্ত বিষয়

এনভাটো মার্কেটপ্লেসে সেসব ফাইল বিক্রি করতে পারবেন যা আপনি নিজে তৈরি করেছেন। অন্য একটি ডিজাইনকে পরিবর্তন করে বা অন্য কোনো সাইট থেকে ডিজাইন কিনে তা এ সাইটে বিক্রি করতে পারবেন না। এ মার্কেটপ্লেসে কোনো ফাইল বিক্রি করার অর্থ হচ্ছে আপনি সম্মত হচ্ছেন যে, যারা আপনার ফাইলটি ক্রয় করবে তারা এর পূর্ণ কপিরাইট অর্জন করে নিজের কাজে ব্যবহার করতে পারবে। কোনো কারণে কপিরাইট লঙ্ঘিত হলে এনভাটো কর্তৃপক্ষ সাইটে আপনার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেবে এবং অনেক ক্ষেত্রে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। তাই সাইটের রেজিস্ট্রেশন করার পূর্বে ভালোভাবে তাদের কপিরাইট সংক্রান্ত নির্দেশগুলো পড়ে নিন।

অন্যান্য ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস সাইটেও ওয়েবসাইট ডিজাইন বা টেম্পলেট তৈরি করার অসংখ্য কাজ পাওয়া যায়। সেই সাইটগুলো থেকে এনভাটোর সাইটগুলোর মূল পার্থক্য হচ্ছে অন্যান্য সাইটে একজন ক্রেতা তার ওয়েবসাইটের ডিজাইনের জন্য প্রজেক্ট তৈরি করেন এবং বিড করার জন্য ফ্রিল্যান্সারদের আবেদন জানান। ফ্রিল্যান্সাররা সেই প্রজেক্টে বিড করেন এবং পরিশেষে একজন ফ্রিল্যান্সার সেই কাজটি করার সুযোগ লাভ করেন, যা নতুনদের জন্য প্রথম কাজ পাওয়াটা অনেকটা সময়সাপেক্ষ এবং অনেকক্ষেত্রে হতাশাজনক। অন্যদিকে এনভাটো মার্কেটপ্লেসে কোনো ধরনের বিড করা এবং ক্রেতার অনুগ্রহের দিকে তাকিয়ে থাকতে হয় না। রেজিস্ট্রেশন করার সাথে সাথেই আপনি কাজ শুরু করে দিতে পারেন। আপনার টেম্পলেটটি সাইটে স্থান পাবার প্রথম দিন থেকেই বিক্রি শুরু হয়ে যাবে। তবে এখানে উল্লেখ্য, এ সাইটে উন্নতমানের ডিজাইনগুলোকেই প্রাধান্য দেয়া হয়। তাই দক্ষ ওয়েবসাইট ডিজাইনারের জন্য এটি একটি উপযুক্ত মার্কেটপ্লেস।

কজ ওয়েব

ফিডব্যাক : zakaria.cse@gmail.com
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
পাঠকের মন্তব্য
৩১ আগস্ট ২০১০, ৫:০৮ AM
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস
অনুরূপ লেখা