Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > কমপিউটার জগৎ মেগা ক্যুইজ ২০০৯
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: মর্তুজা আশীষ আহমেদ
মোট লেখা:৭৭
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০০৯ - জুন
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
কুইজের ফলাফল
তথ্যসূত্র:
রির্পোট
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
কমপিউটার জগৎ মেগা ক্যুইজ ২০০৯

বর্তমান যুগ হচ্ছে তথ্যপ্রযুক্তির যুগ। তথ্যপ্রযুক্তি নিয়ে যে যত বেশি জানবে সে ততই এগিয়ে থাকবে। সাধারণ জনগণের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি নিয়ে জানার আগ্রহ তৈরি করার উদ্দেশ্যে মাসিক কমপিউটার জগৎ আয়োজন করে তথ্যপ্রযুক্তির জ্ঞানভিত্তিক প্রতিযোগিতা মেগা ক্যুইজ ২০০৯। শুধু এবারেই নয়। এর আগেও বহুবার মাসিক কমপিউটার জগৎ এ ধরনের প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে।


পুরষ্কার বিজয়ীদের সাথে অতিথিরা

এই প্রতিযোগিতার তিনটি পর্বের ২১ বিজয়ীর মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয় গত ২৮ মে। প্রতিযোগিতায় প্রায় ৩২ হাজার প্রতিযোগী অংশ নেয়। প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, বিশেষ অতিথিরা ছিলেন যথাক্রমে বিসিএস কমপিউটার সিটির সভাপতি মজিবুর রহমান স্বপন, বিজনেসল্যান্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: ফয়েজউল্যাহ খান, স্মার্ট টেকনোলজিস বিডি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: জহিরুল ইসলাম, কমপিউটার ভিলেজের ম্যানেজিং পার্টনার মো: জসিম উদ্দিন, আলোহাআইশপের প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ আবু নাসের এবং এইচপি বাংলাদেশের ইমেজিং অ্যান্ড প্রিন্টিং গ্রুপের পার্টনার বিজনেস ম্যানেজার সরোয়ার চৌধুরী। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের সভাপতি ছিলেন কমপিউটার জগৎ-এর সম্পাদক গোলাপ মুনীর। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন কমপিউটার জগৎ-এর সহকারী সম্পাদক এবং মেগা ক্যুইজের সমন্বয়কারী এম. এ. হক অনু।

মোট তিনটি পর্বের পুরস্কার দেয়া হয়। পুরস্কার হিসেবে প্রত্যেক পর্বের বিজয়ীদের প্রথম পুরস্কার দেয়া হয়েছে স্মার্ট টেকনোলজিস বিডি লিমিটেডের সৌজন্যে স্যামসাং ডিজিটাল ক্যামেরা। দিবতীয় পুরস্কার দেয়া হয়েছে আলোহাআইশপের সৌজন্যে এপল আইপড সাফল। তৃতীয় পুরস্কার হিসেবে ছিল ইউনাইটেড কমপিউটার সেন্টারের সৌজন্যে ট্রান্সসেন্ড এমপিথ্রি প্লেয়ার। চতুর্থ পুরস্কার ছিল বিজনেসল্যান্ড লিমিটেডের সৌজন্যে মুভি ডাটা এজ মডেম। পঞ্চম পুরস্কার ছিল কমপিউটার ভিলেজের সৌজন্যে পাওয়ারটেক ইউপিএস। ষষ্ঠ পুরস্কার ছিল টেকনোলজিস্ বিডি লিমেটেডের সৌজন্যে গিগাবাইট গিফট বক্স। সপ্তম পুরস্কার ছিল কম ভ্যালী লিমিটেডের সৌজন্যে বেনকিউ গিফট বক্স।

মেগা ক্যুইজের প্রথম পর্বের বিজয়ীরা হচ্ছেন- শাহ মুহাম্মদ রুমী (মুকুল), আবু বকর আবির, পাপিয়া সারোয়ার দিতি, এ বি এম লুৎফুল কবির, এস এম জাহাঙ্গীর, আল-আমিন সীমান্ত এবং শরিফুজ্জামান শুভ। দিবতীয় পর্বের বিজয়ীরা হচ্ছেন- এম. জামান, মো: আব্দুর রহমান, মো: আশরাফুল ইসলাম রথী, মোবারক হোসেন, মো: ফেরদাউছুল হক খান, মো: খায়রুল এনাম এবং মো: তারেকুল ইসলাম। তৃতীয় পর্বের বিজয়ীরা হচ্ছেন- মো: তৌহিদুল ইসলাম তৌহিদ, ডা. সায়ফুল ফেরদৌস, ফরিদ আহমেদ, মো: সাইজুল ইসলাম, মোহাম্মদ হামিদ উল্লাহ, ভিক্টর এস গমেজ এবং আশরাফ উদ্দিন চৌধুরী।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক তার বক্তব্যে বলেন, তথ্য হচ্ছে এখনকার ক্ষমতার উপাদান। তথ্যায়িত জনগণই হচ্ছে এখনকার ক্ষমতায়িত জনগণ। বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় এখনো কমপিউটার সেভাবে সম্পৃক্ত হয়নি। যত দ্রুত সম্ভব বাংলাদেশের প্রাথমিক শিক্ষায় এর প্রয়োগ করতে হবে।

অনুষ্ঠানে সরোয়ার চৌধুরী বলেন, কমপিউটার জগৎ-এর এধরনের ক্যুইজ প্রতিযোগিতার সাথে যুক্ত হতে পেরে আমরা আনন্দিত। এইচপি সবসময় চায় তার উন্নত প্রযুক্তিপণ্য নিয়ে ভোক্তাসাধারণের পাশে দাঁড়াতে। মোহাম্মদ আবু নাসের বলেন, কমপিউটার জগৎ এদেশের আইসিটি প্রিন্ট মিডিয়ার পথিকৃৎ। তাদের এবারের এই আয়োজনের সাথে সম্পৃক্ত হতে পেরে আমরা আনন্দিত। মো: জহিরুল ইসলাম বলেন, এই ক্যুইজ প্রতিযোগিতায় প্রায় ৩২ হাজার প্রতিযোগী অংশ নিয়েছে। এই সংখ্যা দেখেই আমরা বুঝতে পারি যে বাংলাদেশের তরুণ সমাজের কী পরিমাণ আগ্রহ প্রযুক্তি নিয়ে। মো: ফয়েজউল্যাহ খান তার বক্তব্যে বলেন, কমপিউটার জগৎ যেভাবে ১৮ বছর ধরে আইসিটি নিয়ে সাধারণ মানুষকে সচেতন করে চলেছে তা সত্যিই প্রশংসার দাবিদার। এই পত্রিকার নাম নেবার সাথে সাথে একটি নাম সবার মনে চলে আসে। তিনি হচ্ছেন অধ্যাপক মরহুম আবদুল কাদের, যিনি কমপিউটার জগৎ-এর প্রতিষ্ঠাতা। মজিবুর রহমান বলেন, এ ধরনের প্রতিযোগিতার আরো আয়োজন করতে হবে, যাতে করে বাংলাদেশে আইসিটিসচেতন সমাজ গঠন করা যায়।

অনুষ্ঠানের সভাপতি গোলাপ মুনীর বলেন, আজ থেকে ১৮ বছর আগে এদেশে তথ্যপ্রযুক্তি আন্দোলনের অগ্রপথিক হিসেবে খ্যাত প্রফেসর আবদুল কাদের একটি স্লোগান হাতে নিয়ে কমপিউটার জগৎ শুরু করেন। সেটি হচ্ছে ‘জনগণের হাতে কমপিউটার চাই’। তারই ধারাবাহিকতায় আমরা এতদিন চেষ্টা করেছি জনগণকে তথ্যপ্রযুক্তির সাথে সম্পৃক্ত করতে।

কজ ওয়েব

ফিডব্যাক : mortuzacsepm@yahoo.com
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস