Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > চিনে নিন কমপিউটারের কানেক্টরগুলো
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: তাসনীম মাহ্‌মুদ
মোট লেখা:১১৪
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০০৯ - আগস্ট
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
হার্ডওয়্যার
তথ্যসূত্র:
পাঠশালা
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
চিনে নিন কমপিউটারের কানেক্টরগুলো


খুব কম ব্যবহারকারীই আছেন, যারা কমপিউটার বা ল্যাপটপের পেছন দিকে ভালো করে তাকিয়ে দেখেন বা খেয়াল করেন। আর যদি ভালো করে খেয়াল করেন, তাহলে বিস্মিত হন এই ভেবে যে এতসব কানেক্টর কেনো এবং কী এদের ফাংশন বা কাজ। এসব কানেক্টরের কোন কেনটি অপরিহার্য, কোন কোনটি হয়তো কখনোই কোনো কাজেই আসবে না। কোনো কোনো কানেক্টর হয়তো পুরনো পেরিফেরালের অংশ, আবার কোনো কোনো কানেক্টর একটি অপরটির অবিকল প্রতিরূপ এবং এদের ফাংশনালিটিও বাহ্যত একই রকম। এসব বিভিন্ন ধরনের পোর্ট দেখে অনেকেই হয়তো বিভ্রান্ত হতে পারেন কিংবা এসব পোর্ট সম্পর্কে হয়তো অনেকেরই কোনো ধারণা নেই। এসব পোর্ট সম্পর্কে অনেকের কোনো ধারণা নেই- এ কথাটি অবিশ্বাস্য মনে হলেও বাস্তবে এর সত্যতার প্রমাণ আমাদের চারপাশেই রয়েছে। এ সত্য উপলব্ধিতেই কমপিউটার জগৎ-এর এ সংখ্যার পাঠশালা বিভাগে কমপিউটার বা ল্যাপটরে পেছন দিকে যুক্ত বিভিন্ন ধরনের কানেক্টরের পরিচিতি ও কাজ সংক্ষেপে তুলে ধরা হয়েছে।

ডি-সাব



মনিটর/ডিসপ্লে প্যানেলের জন্য খুবই সাধারণ ডিসপ্লে কানেক্টর হলো ডি-সাব (D-Sub)। এটি সাধারণত ব্যবহার হয় সিআরটি মনিটরে। এ ধরনের কানেক্টর খুব শিগগির ডিভিআই, এইচডিএমআই অথবা ডিসপ্লে পোর্ট কানেক্টরসম্বলিত এলসিডি মনিটর দিয়ে প্রতিস্থাপিত হবে।

ডিভিআই



ডিজিটাল ভিজ্যুয়াল ইন্টারফেসের সংক্ষিপ্ত রূপ হলো ডিভিআই। এটি একটি ডিজিটাল ডিসপ্লে আউটপুট পোর্ট, যা বর্তমানে বেশিরভাগ এলসিডি মনিটরে ব্যবহার হয়। এটি ডি-সাব ভিজিএ স্ট্যান্ডার্ডের চেয়ে উন্নততর ডিসপ্লে পোর্ট।

এইচডিএমআই



এইচডিএমআই বা হাইডেফিনেশন মাল্টিমিডিয়া ইন্টারফেস হচ্ছে একটি সিঙ্গেল মিডিয়া আউটপুট ইন্টারফেস, যা হাই-ডেফিনেশন টিভি এবং মনিটরের জন্য উচ্চতর মানের অডিও/ভিডিও আউটপুট সম্পৃক্ত করে একটি একক ক্যাবলে। বর্তমান স্ট্যান্ডার্ড ১.৩ হলেও এটি বিকশিত হচ্ছে। এইচডিএমআই সাপোর্ট করে এইচডি এন্টিপাইরেসি।

ডিসপ্লে পোর্ট



ডিসপ্লে পোর্ট হলো এইচডিএমআই-এর মতো একটি ডিজিটাল ডিসপ্লে ইন্টারফেস। তবে এর ডাটা ট্রান্সফার রেট বেশি। ডেস্কটপ মনিটরে এটি বাস্তবায়িত হবার পথে। তবে কিছু কিছু গ্রাফিক্স কার্ডের জন্য এই পোর্টটির ব্যবহার শুরু হয়েছে। এই কানেক্টরটি অনেক ছোট এবং ডিভিআই-এর তুলনায় এর ব্যবহার বেশ সুবিধাজনক।

কম্পোনেন্ট ভিডিও



কম্পোনেন্ট ভিডিওতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে তিনটি এনালগ ভিডিও সিগন্যাল- যেমন y, Pb এবং Pr। সাধারণত যেখানে উচ্চতর ভিডিও মানের দরকার হয় যেখানে রেজ্যুলেশন ন্যূনতম ১০৮০P প্রয়োজন হয়, সেক্ষেত্রে কম্পোনেন্ট ভিডিও ব্যবহার হয়। এটি একই ক্যাবলে অডিও সাপোর্ট করে না। এ ধরনের ইন্টারফেস পাওয়া যায় ডিভিডি প্লেয়ার এবং টিভি সেটে। পক্ষান্তরে গ্রাফিক্স কার্ডের জন্য দরকার হয় অ্যাডাপ্টার।

কম্পোজিট ভিডিও



এটি একটি অ্যানালগ ভিডিও আউটপুট। এটি y, u এবং v তিনটি সিগন্যালের সমন্বিতরূপ। এটি সর্বোচ্চ ৪৮০i পর্যন্ত স্ট্যান্ডার্ড ভিডিও রেজ্যুলেশন সাপোর্ট করে এবং একই ক্যাবলের মধ্য দিয়ে অডিও সিগন্যাল বহন করে না। সাধারণত বেশিরভাগ ভিসিডি/ভিসিআর, ডিভিডি প্লেয়ার, টিভি, ক্যামকর্ডার এবং কিছু কিছু গ্রাফিক্স কার্ডে এটি দেখা যায়। এটি সর্বনিম্নমানের ভিডিও ইন্টারফেস।

এস-ভিডিও



এটি সুপার ভিডিও হিসেবেও পরিচিত, যা কম্পোজিট ভিডিও আউটপুটের মতো কাজ করে। তবে এতে রয়েছে ল্যুমিনেন্স এবং ক্রোমার দুটি ভিন্ন ভিডিও সিগন্যাল লাইন। এটি ৫৭৬i পর্যন্ত ভিডিও রেজ্যুলেশন সাপোর্ট করে এবং একই ক্যাবলে অডিও সিগন্যাল বহন করে না। এ ধরনের ইন্টারফেস দেখা যায় ডিজিটাল ক্যামকর্ডার, ডিভিডি প্লেয়ার এবং কিছু নির্দিষ্ট গ্রাফিক্স কার্ডে।

আরজে১১ এবং আরজে৪৫



এখানে আরজে বলতে বুঝায় রেজিষ্টার্ড জ্যাক। যোগাযোগসংশ্লিষ্ট এবং নেটওয়ার্কের উদ্দেশ্যে এই কানেক্টরগুলো ব্যবহার করা হয়। এখানে আরজে১১ কানেক্টর হলো টেলিভিশনের জন্য এবং আরজে৪৫ হলো টুইস্টার প্লেয়ার ইথারনেট কানেক্টর। আরজে১১ কানেক্টর আরজে ৪৫ কানেক্টরের চেয়ে ছোট। এই দুই কানেক্টরে রয়েছে যথাক্রমে ৬ এবং ৮টি করে পিন।

কোয়েক্সিয়াল এস/পিডিআইএফ



এই ইন্টারফেসটি স্ট্যান্ডার্ড RCA জ্যাক ব্যবহার করে সিঙ্গেল তারের মধ্য দিয়ে কমপ্রেস করা ডিজিটাল অডিও ডাটা বহন করে। এটি সিঙ্গেল তারে মাল্টি চ্যানেল ব্যবহার করে। এটি অপটিক্যাল এস/পিডিআইএফের মতো, যা অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবলের মাধ্যমে সিগন্যাল বহন করে। এক্ষেত্রে মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার হয় আলো।

অডিও ইন-আউট



এটি সবচেয়ে পরিচিত অডিও ইনপুট এবং আউটপুট পোর্ট। এটি সাধারণত ৩.৫ এমএম এয়ারফোন ধরনের প্লাগ ও সকেট। এটি ডান এবং বাম চ্যানেল স্পিকারের জন্য স্টেরিও অডিও সিগন্যাল বহন করে। মাল্টিপল অডিও পোর্ট ব্যবহার করা যায় মাল্টি চ্যানেল অডিও আউট বহন করার জন্য। মাদারবোর্ডে অডিও পোর্টকে এদের টার্গেট অনুযায়ী কালার কোট করা হয়।

পিএস/২



আইবিএম পার্সোনাল সিস্টেম/২ (পিএস/২) হচ্ছে আমাদের অতিপরিচিত ইনপুট পোর্ট, যা কীবোর্ড এবং মাউসের জন্য ব্যবহার হয়ে থাকে। বেগুনি রংয়ের পিএস/২ কানেক্টরটি হলো কী-বোর্ডের জন্য এবং সবুজ বর্ণের পিএস/২ কানেক্টরটি হলো মাউসের জন্য। এটি শুধু মাদারবোর্ডে পাওয়া যায়, তবে ধীরে ধীরে এর ব্যবহার কমে যাচ্ছে, কেননা ইউএসবি অ্যাডাপ্টারের ব্যবহার বেশ বেড়ে যাচ্ছে।

কজ ওয়েব

ফিডব্যাক mahmod_sw@yahoo.com

পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস