Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > পান্ডা অ্যান্টিভাইরাস প্রোফেশনাল ২০১০
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: মোহাম্মদ ইশতিয়াক জাহান
ইমেইল:rony446@yahoo.com:
মোট লেখা:৮৮
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০০৯ - ডিসেম্বর
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
অ্যান্টি-ভাইরাস
তথ্যসূত্র:
সিকিউরিটি
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
পান্ডা অ্যান্টিভাইরাস প্রোফেশনাল ২০১০

ভাইরাস, স্পাইওয়্যার ও ম্যালওয়্যার নিয়ে বিরক্ত নন এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া মুশকিল। এসব ভাইরাস, স্পাইওয়্যার ও বিভিন্ন ধরনের হুমকি থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য অনেকেই বিভিন্ন রকম চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। কেউ কেউ অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করছেন, কেউ সিকিউরিটি টুল ব্যবহার করছেন, আবার অনেকেই উইন্ডোজের ভাইরাসের ওপর বিরক্ত হয়ে ওপেন সোর্স অপারেটিং সিস্টেম যেমন লিনআক্স ব্যবহারের দিকে চলে যাচ্ছেন। কারণ লিনআক্সে ভাইরাস আক্রমণের হার কম। ব্যবহার করার ফলে ভাইরাস নিয়ে চিন্তা অনেকাংশেই কমে যায়। উইন্ডোজ ব্যবহারকারীদের কমপিউটারকে সুরক্ষা দিতে বিভিন্ন কোম্পানি বিভিন্ন অ্যান্টিভাইরাস বাজারে ছাড়ছে এবং এসব অ্যান্টিভাইরাস কী ধরনের কাজ করতে পারে তার ট্রায়াল ভার্সন বা হোম ভার্সন ইন্টারনেট থেকে ফ্রি ডাউনলোড করারও সুযোগ দিচ্ছে, যা ব্যবহার করে একজন ব্যবহারকারী এই অ্যান্টিভাইরাস সম্পর্কে কিছু ধারণা নিতে পারবেন। গত সংখ্যাগুলোতে সিকিউরিটি বিভাগে নিয়মিত বিভিন্ন অ্যান্টিভাইরাস সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। এবারের সংখ্যায় পান্ডা অ্যান্টিভাইরাস সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে, যার মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা এ টুল সম্পর্কে কিছু ধারণা পাবেন।



সম্প্রতি পান্ডা অ্যান্টিভাইরাস প্রোফেশনাল ২০১০ ভার্সনটি বাজারে এসেছে। এর ট্রায়াল ভার্সনকে অ্যাক্টিভেট না করলে এই অ্যান্টিভাইরাসের সব সুবিধা পাবেন না। পান্ডা অ্যান্টিভাইরাস প্রোফেশনাল ২০১০ ভার্সনে যেসব ফিচার রয়েছে তা নিচে আলোচনা করা হয়েছে।

স্পাইওয়্যার থেকে রক্ষা করা :

কমপিউটারে থাকা বিভিন্ন ধরনের স্পাইওয়্যার থেকে প্রাইভেসিকে রক্ষা করার জন্য এই অ্যান্টিভাইরাস প্রটেকশন দিয়ে থাকবে। ইন্টারনেটের বিভিন্ন ধরনের স্পাইওয়্যার ও প্রিফারেন্সের ওপর ভিত্তি করেই এই অ্যান্টিভাইরাস প্রোটেকশনের সুবিধা দিয়ে থাকে।

অপরিচিত থ্রেট থেকে রক্ষা করা :

ইন্টারনেটে অসংখ্য অপরিচিত হুমকি রয়েছে, যা কমপিউটারের ক্ষতির কারণ হতে পারে, এসব ম্যালওয়্যার বা হুমকি থেকে মুক্ত থাকার জন্য এই অ্যান্টিভাইরাস অপরিসীম ভূমিকা রাখবে বলে পান্ডা সিকিউরিটিজ আশা করছে।


ফায়ারওয়াল :

নেটওয়ার্কে থাকা ভাইরাস থেকে রক্ষা করার জন্য এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে যেসব হ্যাকার কমপিউটারের ক্ষতি করে থাকে তাদের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য এই অ্যান্টিভাইরাসের ফায়ারওয়াল অপশনটি প্রধান ভূমিকা রাখবে।

ক্ষতিকারক সফটওয়্যার থেকে রক্ষা করা :

চাহিদা অনুযায়ী আমরা অনেকেই বিভিন্ন ধরনের অপরিচিত ফ্রিওয়্যার সফটওয়্যার বা টুল ব্যবহার করে থাকি। এসব সফটওয়্যার ব্যবহার করার ফলে কমপিউটারে সিকিউরিটি অনেকাংশে কমে যায়, ফলে উক্ত সফটওয়্যারের কারণে কমপিউটারের যেকোনো ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। পান্ডা অ্যান্টিভাইরাস এসব ক্ষতিকারক সফটওয়্যার থেকে কমপিউটারকে রক্ষা করে থাকবে।

পান্ডা অ্যান্টিভাইরাস ডাউনলোড ও ইনস্টলেশন :

পান্ডা অ্যান্টিভাইরাস প্রোফেশনাল ২০১০ ভার্সনটি ডাউনলোড করার জন্য http://rony-blog.co.nr থেকে পান্ডা অ্যান্টিভাইরাসের লিঙ্কটি নিয়ে ডাউনলোড করুন। অন্যান্য অ্যান্টিভাইরাসের মতো এই অ্যান্টিভাইরাসকেও সহজেই ইনস্টল করা সম্ভব। পান্ডা অ্যান্টিভাইরাস ইনস্টল হওয়ার পর ইন্টারনেটের মাধ্যমে আপডেট করে নিন। ইনস্টলেশন শুরু হওয়ার আগে আপনার কমপিউটারের সব হার্ডড্রাইভের ওপর একটি ছোট স্ক্যান চালিয়ে দেখে নেবেন, কমপিউটারে ক্ষতিকর কিছু আছে কিনা।

পান্ডা অ্যান্টিভাইরাস প্রো ২০১০ ব্যবহার :

Start>All Programs>Panda Antivirus Pro 2010 হতে অ্যান্টিভাইরাসটি চালু করুন। পান্ডা অ্যান্টিভাইরাসের একটি উইন্ডো প্রদর্শিত হবে, যেখানে ৫ ধরনের অপশন রয়েছে : Status, Scan, Report, Quarantine, Services.

স্ট্যাটাস :

এই অংশে আপনার অ্যান্টিভাইরাসের স্ট্যাটাস দেখাবে। যদি নতুন আপডেট ফাইল থাকে, তাহলে তা আপডেট করার জন্য আপনাকে একটি সতর্ক মেসেজ দেবে, যার Solve-এ ক্লিক করলে আপনার অ্যান্টিভাইরাসের আপডেট প্রক্রিয়া শুরু হবে। স্ট্যাটাস অপশনে দুটি অংশ রয়েছে- একটি Protection এবং অন্যটি Updates। প্রোটেকশন অংশে অ্যান্টিভাইরাস, ফায়ারওয়ালের তথ্য প্রকাশ করবে। অন্যদিকে আপডেট অংশে অটোমেটিক আপডেট অপশন রয়েছে এবং শেষ কবে অ্যান্টিভাইরাসটি আপডেট করা হয়েছিল তা এখানে দেখাবে।

স্ক্যান :

এই অংশে রয়েছে Scan all my computer, যা দিয়ে আপনার কমপিউটার স্ক্যান করতে পারবেন। Scan hard disk দিয়ে কমপিউটারের হার্ডডিস্ক ড্রাইভগুলো স্ক্যান করতে পারবেন। যদি কমপিউটারে ই-মেইল ক্লায়েন্ট সফটওয়্যার থাকে, তাহলে তা স্ক্যান করার জন্য রয়েছে Scan Mail অপশন। অন্যান্য আইটেম স্ক্যান করার জন্য রয়েছে Scan other items। ক্ষতিকারক ফাইলগুলো থেকে রক্ষা করার জন্য রয়েছে Detect Vulnerabilities.

রিপোর্ট :

ভাইরাস, স্পাইওয়্যারের স্ট্যাটিসটিক্স দেখার জন্য রয়েছে ভিউ স্ট্যাটিসটিক্স ও ভিউ অ্যাডভান্সড স্ট্যাটিসটিক্স, যা দিয়ে কমপিউটারের সব ভাইরাস, স্পাইওয়্যারের স্ট্যাটিসটিক্স ডায়াগ্রামের সাহায্যে দেখতে পাবেন।

কোয়ারানটাইন :

কমপিউটারের যেসব ভাইরাস, স্পাইওয়্যার, অপরিচিত সেসব হুমকিকে আলাদা করে রাখে, তা এখানে দেখতে পাবেন।

সার্ভিস :

সার্ভিসেস অপশনে রয়েছে আরো বেশ কিছু অপশন, যা দিয়ে আপনার কমপিউটারের সিকিউরিটি সিস্টেমকে বাড়িয়ে নিতে পারবেন। এই অংশে রয়েছে My downloads area, E-mail technical support, Suggestion box, Panda bulletins, Rescure disks, Send suspicious files to PandaLabs। আপনার চাহিদা অনুযায়ী সার্ভিসটি নিতে পারেন।

অন্যান্য :

পান্ডা অ্যান্টিভাইরাসটি চালু করলে ওপরের দিকে বেশ কিছু অপশন দেখা যাবে, যেখানে রয়েছে Buy, Update, Preferences, Help। এই অ্যান্টিভাইরাসটি চালু করতে বা ব্যবহার করতে কোনো প্রকার সমস্যার সম্মুখীন হয়ে থাকলে হেল্প বুক থেকে সাহায্য নিতে পারেন। সহজেই অ্যান্টিভাইরাসটি আপডেট করার জন্য সবার ওপরেই রয়েছে আপডেট অপশন। অ্যান্টিভাইরাসের কনফিগারেশন আরো পরিবর্তন করার জন্য রয়েছে প্রিফারেন্স অপশন, যা ব্যবহার করে কমপিউটারের সিকিউরিটিকে আরো বাড়াতে পারবেন। এখানে General, Mail Profile, Internet, Restrictions, Warnings সহ আরো বেশ কিছু অপশন রয়েছে।

অল্পকথায় এখানে পান্ডা অ্যান্টিভাইরাস প্রো ২০১০ ভার্সনের সংক্ষিপ্ত ধারণা দেয়া হয়েছে। সাধারণত অ্যান্টিভাইরাসসমূহ সব সময় আপডেট হয়ে থাকে, তাই অ্যান্টিভাইরাস ইনস্টল করার পর পর ইন্টারনেটের মাধ্যমে আপডেট করে নিন, যা আপনার কমপিউটারের সুরক্ষা দিতে আরো ভূমিকা রাখতে সাহায্য করবে।

কজ ওয়েব

ফিডব্যাক : rony446@yahoo.com
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
পাঠকের মন্তব্য
০১ এপ্রিল ২০১১, ১২:০৪ PM
আপনাদের দেয়া এ্যান্টিভাইরাস সর্ম্পকে অনেক জানতে পারি কিন্তু আমি কখনো
এ্যান্টিভাইরাস আপডেট করতে পারি না। যদি পারেন আমাকে কি জানাবেন কিভাবে আমি এভোরা এ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যাটি আপডেট করবো।
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস