Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > ইউএসবি ৩.০
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: এস.এম. গোলাম রাব্বি
মোট লেখা:৭২
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১০ - ফেব্রুয়ারী
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
ইউএসবি ডিভাইস
তথ্যসূত্র:
হার্ডওয়্যার
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
ইউএসবি ৩.০



সারাবিশ্বে কমপিউটার ইন্টারফেসের ক্ষেত্রে আরও একটি বিবর্তন ঘটল। কমপিউটারের সাথে বিভিন্ন ডিভাইস সংযোগের জন্য ইউএসবি ২.০-এর সাথে সঙ্গতিপূর্ণ এবং আরও অধিকতর গতিসমৃদ্ধ ইউএসবি ৩.০ সম্প্রতি প্রযুক্তিজগতে ব্যাপক হৈচৈ ফেলে দিয়েছে। ইউনিভার্সাল সিরিয়াল বাস বা ইউএসবি’র নতুন সংস্করণ নিয়ে কিছু কথা তুলে ধরা হয়েছে এ লেখায়।

কমপিউটারের সাথে বিভিন্ন ডিভাইস সংযোগের জন্য ইউএসবি ২.০ পর্যাপ্ত পরিমাণ ব্যান্ডউইডথ সরবরাহ করে থাকে। কিন্তু হাইডেফিনেশন ভিডিও, টেরাবাইট মেমরির ডিভাইস, উচ্চ মেগাপিক্সেলের ডিজিটাল ক্যামেরা, মাল্টি গিগাবাইটের মোবাইল ফোন কিংবা বহনযোগ্য মিডিয়া প্লেয়ারের জন্য আজকাল ইউএসবি ২.০ যথেষ্ট নয়। আর তাই ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণের জন্য ইউএসবি ৩.০-এর আগমন। ইউএসবি ৩.০-এ রয়েছে উচ্চতর ট্রান্সফার রেট (৪.৮ গিগাবাইট পর্যন্ত), নতুন পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট ফিচার, নতুন ট্রান্সফার টাইপের জন্য ফুল-ডুপ্লেক্স ডাটা ট্রান্সফার এবং সাপোর্ট, উচ্চতর গতির ডাটা ট্রান্সফারের জন্য নতুন কানেক্টর এবং ক্যাবল ইত্যাদি বৈশিষ্ট্য।

ইউএসবি ২.০-এর ডাটা ট্রান্সফার রেট ছিল ৪৮০ মেগাবিট/সেকেন্ড। তত্ত্বীয়ভাবে এর গতি ৪৮০ মেগাবিট/সেকেন্ড হলেও ব্যবহারিকভাবে এর গতি ছিল ৩২০ মেগাবিট/সেকেন্ডের মতো। অনুরূপভাবে ইউএসবি ৩.০-এর ডাটা ট্রান্সফার রেট ব্যবহারিক ক্ষেত্রে ৪.৮ গিগাবিট/সেকেন্ড পাওয়া যায় না। কিন্তু এর শতকরা ৫০ ভাগ গতিও ইউএসবি ২.০-এর গতির তুলনায় ১০ গুণ বেশি।



কিছু কারিগরি পরিবর্তনের কারণে ইউএসবি ৩.০-এর পারফরমেন্স এত বেশি। ইউএসবি ২.০ বাসের সমান্তরালে ইউএসবি ৩.০-তে একটি অতিরিক্ত ফিজিক্যাল বাস যুক্ত হয়েছে। অর্থাৎ যেখানে আগে ইউএসবি ২.০-এর ৪টি তার ছিল (পাওয়ার, গ্রাউন্ড এবং একজোড়া ডাটার জন্য), সেখানে ইউএসবি ৩.০-তে অতিরিক্ত আরও ৪টি তার যোগ হয়েছে। অতিরক্তি এ ৪টি তার যোগ হয়েছে সিগন্যাল রিসিভ ও ট্রান্সমিটের জন্য। একজোড়া সিগন্যাল রিসিভের জন্য, একজোড়া ট্রান্সমিটের জন্য। এখানে কানেক্টর ও ক্যাবলিংয়ের জন্য মোট ৮টি কানেকশন রয়েছে। অতিরক্ত দুই জোড়া তার যুক্ত হয়েছে ইউএসবি ৩.০-এর উচ্চগতির ব্যান্ডউইডথ সাপোর্টের জন্য। কারণ ইউএসবি ২.০-এর মাত্র দুই জোড়া তার এ উচ্চগতির ব্যান্ডউইডথের জন্য যথেষ্ট নয়।



ইউএসবি ৩.০-এর সিগন্যালিং পদ্ধতি অ্যাসিংক্রোনাস। ইউএসবি ২.০-তে এটি ছিল পোলিং। ইউএসবি ২.০-এর হাফ-ডুপ্লেক্স ডাটা ট্রান্সফারের পরিবর্তে বাই-ডিরেকশনাল ডাটা ইন্টারফেস প্রয়োগ করা হয় ইউএসবি ৩.০-তে। বাই-ডিরেকশনাল পদ্ধতিতে একই সময়ে ডাটা দুইটি ভিন্ন দিকে চলাচল করতে পারে।

শুধু উচ্চগতির ডাটা ট্রান্সফারের জন্য ইউএসবি ৩.০ ইউএসবি ২.০ থেকে উন্নত নয়। বিভিন্ন ডিভাইস ও হোস্ট কমপিউটারের মধ্যে আমত্মঃসংযোগের ক্ষেত্রেও এর পারফরমেন্স দারুণ। ইউএসবি ৩.০ কনফিগার না করা ডিভাইসগুলোর জন্য ইউএসবি ২.০-এর চেয়ে ৫০ শতাংশের বেশি বিদ্যুৎ সরবরাহ করে (১০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার থেকে ১৫০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার) এবং কনফিগার করা ডিভাইসের জন্য ৮০ শতাংশের বেশি বিদ্যুৎ (৫০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার থেকে ৯০০ মিলিঅআম্পিয়ার পর্যন্ত) সরবরাহ করে থাকে। অন্যদিকে প্রয়োজন না হলে ইউএসবি ৩.০ বিদ্যুৎ ব্যবহার না করে খরচ কমায় এবং কর্মদক্ষতা বাড়ায়। যেমন- লিঙ্ক লেভেল পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট। অর্থাৎ ডিভাইস কিংবা কমপিউটার একটি আরেকটির সাথে সংযুক্ত থাকা সত্ত্বেও যদি ডিভাইসটির ব্যবহার না হয়, তখন হয় কমপিউটার অথবা ডিভাইস, যেকোনোটি বিদ্যুৎ রক্ষার কাজটি শুরু করবে। ইউএসবি ৩.০-তে ক্রমাগত ডিভাইস পোলিং, হাবের মাধ্যমে প্যাকেট ট্রান্সমিশন ব্রডকাস্ট ইত্যাদি বাদ দেয়া হয়েছে। ফলে বিদ্যুৎ সাশ্রয় হয় অনেক।

যারা এতদিন ধরে ইউএসবি ২.০ সমর্থিত ডিভাইস (পেনড্রাইভ, ডিজিটাল ক্যামেরা, মোবাইল ফোন ইত্যাদি) ব্যবহার করে আসছেন তাদের চিন্তিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। কারণ, ইউএসবি ২.০ সমর্থিত ডিভাইসগুলো খুব সহজেই চালানো যাবে ইউএসবি ৩.০ পোর্টের মাধ্যমে।

বিভিন্ন অপারেটিং সিস্টেম ইউএসবি ৩.০ সাপোর্ট করবে। ২০০৮ সালে ইউএসবি ৩.০-এর নির্মাতাদের এক সম্মেলনে মাইক্রোসফট ঘোষণা দিয়েছিল, প্রাথমিক সংস্করণে না হলেও উইন্ডোজ ৭-এর পরবর্তী সার্ভিস প্যাক বা আপডেট সংস্করণে ইউএসবি ৩.০ সাপোর্ট করবে। মাইক্রোসফট এ বিষয়টিও নিশ্চিত করেছে, উইন্ডোজ ভিসতারও ইউএসবি ৩.০ সাপোর্ট করা উচিত। তবে এই মুহূর্তে উইন্ডোজ এক্সপি’র ইউএসবি ৩.০-এর সাপোর্টের বিষয়টি বলা যাচ্ছে না। ওপেন সোর্স অপারেটিং সিস্টেম লিনআক্স ইউএসবি ৩.০ সাপোর্ট করবে। তবে এখনো ইউএসবি ৩.০ সাপোর্ট বিষয়ে অ্যাপল তার ম্যাক অপারেটিং সিস্টেম নিয়ে কিছু বলেনি।

যেকোনো উচ্চ ব্যান্ডউইডথের ডিভাইস যা ইউএসবি ২.০ সাপোর্ট করে তাকে ইউএসবি ৩.০ সাপোর্টের জন্য উন্নীত করলে আরো ভালো আউটপুট পাওয়া যাবে। যেমন- ১. এক্সটার্নাল হার্ডড্রাইভ, ২. উচ্চ রেজ্যুলেশনের ওয়েব ক্যামেরা, ৩. ভিডিও ডিসপ্লে সলিউশন, যেমন- ডিসপ্লেলিঙ্ক ইউএসবি ভিডিও টেকনোলজি, ৪. ইউএসবি ইন্টারফেসযুক্ত ডিজিটাল ভিডিও ক্যামেরা এবং ডিজিটাল স্টিল ক্যামেরা, ৫ মাল্টিচ্যানেল অডিও ইন্টারফেস, ৬. এক্সটার্নাল মিডিয়া, যেমন- ব্লু রে ড্রাইভ।

আজকাল যেকোনো কমপিউটার কিনতে যান না কেনো, সব কমপিউটারের সাথেই থাকবে এক বা একাধিক ইউএসবি কানেক্টর। এই ইউএসবি কানেক্টরগুলোর মাধ্যমে মাউস থেকে শুরু করে প্রিন্টার পর্যন্ত যেকোনো কিছু আপনার কমপিউটারে দ্রুত ও সহজে লাগাতে পারবেন। আর অপারেটিং সিস্টেম ইউএসবি সাপোর্ট করে বলে কমপিউটারে এর ইনস্টলেশন প্রক্রিয়াও সহজ ও দ্রুত। আজকাল যেকোনো এক্সটার্নাল ডিভাইস কমপিউটারে সংযোগের ক্ষেত্রে প্যারালাল পোর্ট ও সিরিয়াল পোর্টের ব্যবহার খুব কম দেখা যায়। ২০০০ সালে ইউএসবি ১.১ থেকে ইউএসবি ২.০-এর বিবর্তনের পর দীর্ঘ ১০ বছর পর আমাদের কাছে এসেছে ইউএসবি ৩.০। হার্ডওয়্যার জগতের দ্রুত উন্নতির সাথে সাথে গতি ও সামর্থ্যের দিক দিয়ে ইউএসবি ৩.০ যেকোনো এক্সটার্নাল ডিভাইসের সাথে আমাদের কমপিউটারের সংযোগের ক্ষেত্রে বাধাহীনভাবে দারুণ পারফরমেন্স দিতে পারবে বলে আশা করছেন প্রযুক্তিবিদরা।

কজ ওয়েব

ফিডব্যাক : rabbi1982@yahoo.com
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস