Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > ফটোশপে তৈরি করুন মায়াবী চোখ
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: আশরাফুল ইসলাম চৌধুরী
মোট লেখা:৪২
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১০ - মে
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
অ্যাডোবি ফটোশপ
তথ্যসূত্র:
গ্রাফিক্স
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
ফটোশপে তৈরি করুন মায়াবী চোখ
একজন মানুষ তার অভিব্যক্তি প্রকাশ করতে চোখও ব্যবহার করে। রাগ, ক্রোধ, ঘৃণা প্রকাশ করতে আমরা চোখ ব্যবহার করি। এ জন্যই বলা হয়ে থাকে ‘চোখ মনের কথা বলে’। নারী তাদের সৌন্দর্য প্রকাশ করার জন্য চোখ সাজিয়ে নেয়। একটি চোখ সাজানোর কারণে অনেক সময় মায়াবী রহস্যময়তার সৃষ্টি হয়। চোখের কারুকাজের এ পর্বে একটি চোখের ছবিকে কিভাবে অল্পসময়ে অতিসহজে মায়াবী রহস্যময় বানানো যায়, তা দেখানো হয়েছে।

প্রথমেই এক জোড়া সুন্দর চোখের ছবি প্রয়োজন। আপনারা নিজেদের ডিজিটাল ক্যামেরায় অনেকেরই চোখের ছবি তুলেছেন। এর মাঝ থেকে নিজের পছন্দমতো চোখের ছবি নিয়ে কাজ করতে পারেন। আর যাদের এ রকম ছবি সংগ্রহে নেই, তারা অনায়াসেই গুগল সার্চ করে অনেক সুন্দর চোখের ছবি পেতে পারেন। তবে কাজ করার জন্য একটু বড় মাপের ছবি অর্থাৎ একটু বেশি রেজ্যুলেশনের ছবি প্রয়োজন। অনেকেই আজকাল ফেসবুকে অথবা এ রকম সোশ্যাল কমিউনিকেশন ওয়েবে নিজের ছবি দিতে চান না বিভিন্ন কারণে। ইচ্ছে করলে নিজেদের চোখের ছবি এ রকম সুন্দর কিছু এডিটের মাধ্যমে দৃষ্টিনন্দনভাবে উপস্থাপন করতে পারেন।


চিত্র-১

চোখের ছবি সংগ্রহের পর অ্যাডোবি ফটোশপ সিএসথ্রি অথবা সর্বশেষ ভার্সনে ওপেন করুন। এই প্রক্রিয়ায় কিছু কিছু কাজ দেখানো হয়েছে, যা হয়তো পুরনো ভার্সন সাপোর্ট নাও করতে পারে। ছবিটি ওপেন হলে প্রথমে এ থেকে বাড়তি অংশগুলো ফেলে দিতে হবে। অর্থাৎ চোখ ছাড়া অন্যান্য অংশ রাখা যাবে না। এখানে চিত্র-১-এ দেখতে পাচ্ছেন একটি চোখের ছবিতে চোখ এবং নাকের কিছু অংশ ছাড়া আর কিছুই রাখা হয়নি। এবার ছবিতে যদি কিছু রিটাচের প্রয়োজন পড়ে তাহলে নিজের খুশিমতো করে নিন। চোখ নির্বাচনের ক্ষেত্রে নারীর চোখ নিলে ভালো করবেন। এবার চোখের ছবিটিতে কোনো অবাঞ্ছিত চুল বা ত্বকে কোথাও সমস্যা থাকলে তা হিলিং টুল ব্যবহার করে নিন। এবার ব্রাইটনেস-কন্ট্রাস্ট থেকে পুরো ছবির কন্ট্রাস্ট একটু বাড়িয়ে নিন। এতে চোখের পাপড়িগুলো স্পষ্ট হবে। ছবিতে চোখ স্পষ্ট অর্থাৎ ফোকাসড অবস্থায় রাখতে হবে। নয়তো কারুকাজ ফুটে উঠবে না।

প্রথমেই চোখের মণি নিয়ে কাজ করতে হবে। মণিটি একটু উজ্জ্বল করে তুলতে হবে। এর জন্য বেশ কয়েকটি পদ্ধতি রয়েছে। একটি পদ্ধতি হলো সিলেক্টেড অংশকে dodge করে উজ্জ্বলতা বাড়ানো। তবে এর ফল খুব একটা সমেত্মাষজনক নয়। তাই অন্য পদ্ধতি অর্থাৎ লেয়ার Screen পদ্ধতি গ্রহণ করতে হবে। এ পদ্ধতি যে অংশকে উজ্জ্বল আভা করতে হবে সে অংশ অর্থাৎ চোখের মণিকে Marque সিলেক্টের মাধ্যমে সিলেক্ট করুন। সিলেকশন মসৃণ না হলেও সমস্যা নেই। সিলেকশন করার সময় চোখের মণির চারদিক একটু ছেড়ে একদম কেন্দ্রীভূতভাবে সিলেকশনের পয়েন্ট করুন। এবার ভেতরের অংশটুকু সিলেক্টেড হলে অন্য চোখের মণিও একইভাবে সিলেক্ট করুন। দুটি সিলেকশন একই সাথে একটিতেই করতে Shift চেপে সিলেকশনের পরিধি শুরু করুন, দেখবেন সিলেকশন পয়েন্টের সাথে একটি যোগ (+) চিহ্ন রয়েছে। এটি একটি পূর্ণাঙ্গ সিলেকশনের পাশাপাশি আরেকটি সিলেকশন অ্যাক্টিভেট করতে দেয়। এবার দুটি চোখের মণি সিলেক্ট হয়ে গেলে সিলেকশনকে feathering করুন। ফিদারিং সিলেকশনকে মসৃণ হতে সাহায্য করে। এর মাধ্যমে সিলেকশনের আশপাশের একটি নির্দিষ্ট পিক্সেল পর্যন্ত সফটভাবে সিলেক্ট করে দেয়। এটি করতে Select ট্যাব থেকে feathering-এ ক্লিক করুন। এই ছবির ক্ষেত্রে 25 Pixel feather করা হয়েছে। এ ছবির রেজ্যুলেশন বেশি, তাই একটু বেশি এরিয়া নেয়াতে সমস্যা হয়নি। প্রকৃতপক্ষে ফিদারিং সিলেকশনকে ছড়িয়ে দেবে সফটভাবে।


চিত্র-২

যে যত পিক্সেল মণি সিলেকশনের ক্ষেত্রে ছেড়েছেন, তার ৩৩ পিক্সেল ফিদার প্রয়োজন এবার সিলেকশন দুটিকে কপি করে পেস্ট করুন। এতে নতুন একটি লেয়ার যোগ হবে লেয়ার প্যালেটে। এবার লেয়ার প্রপার্টিজ থেকে Blend Mode Screen এতে পরিবর্তন করে দিন। Screen মোড ছবির অন্তর্নিহিত ছাপগুলো আরো উজ্জ্বল এবং দীপ্তিময় করে উপস্থাপন করতে পারে। এবার আবার একইভাবে লেয়ারটির কপি পেস্ট করুন এবং Blend মোড চেঞ্জ করুন। তাতে ধীরে ধীরে চোখের মণির ভেতরে রিমেটেড অংশ আরো উজ্জ্বল এবং আভা ছড়াতে থাকবে। এবার যত লেয়ার সৃষ্টি হয়েছে তার প্রত্যেকটিকে রিনেম করে Eyes Glow 1, 2 এভাবে নামকরণ করে যান। লেয়ার নামকরণের প্রধান কারণ পরে কোনো নির্দিষ্ট লেয়ারের ওপর কাজ করতে চাইলে সে লেয়ার যেন সহজেই খুঁজে পাওয়া যায়। এবার চোখের মণি নিশ্চয়ই চিত্র-২-এর মতো দেখতে হয়েছে। এই ছবির ক্ষেত্রে ৫টি গ্লোইং লেয়ার তৈরি করা হয়েছে।

এবার ছবির মাঝে একটু অতিপ্রাকৃতিক আলো তৈরি করে নিতে হবে। চেহারায় যেটুকু প্রাকৃতিক রঙ রয়েছে তাতে কোনো কল্পনার মায়াবী রূপ দেয়া সম্ভব হয় না। রঙের নির্বাচন পুরোপুরি আপনার হাতে। যেহেতু এটি একটি কল্পনার রহস্যময়ী চোখ হিসেবে উপস্থাপন করা হচ্ছে, তাই এর রঙ আপনাকে কল্পনায় নিয়ে আসতে হবে। স্বাভাবিকভাবেই একটু মায়াবী আলো বা রহস্যময়তা বলতে হাল্কা রঙের আভা চোখে ভাসে, তাই আপনারা যেকোনো রঙের হাল্কা রূপ পছন্দ করতে পারেন। মুখের ওপর রঙের আভা এমনভাবে উপস্থাপন করতে হবে, যেন মনে হয় কোনো অজানা স্থান থেকে মুখের ওপর হাল্কা আলো এসে পড়েছে। এই ছবির ক্ষেত্রে একটু নীলচে এবং একটু সবুজাভ আলো ব্যবহার করা হয়েছে। লাল একটু রুদ্রর প্রতীক, তাই ওই আলোর প্রভাব ব্যবহার না করাই ভালো। রঙের জন্য একটি অ্যাডজাস্টমেন্ট লেয়ার তৈরি করতে হবে। প্রথমে সবুজ রঙের একটি লেয়ার দরকার। তাই অ্যাডজাস্টমেন্ট লেয়ারে কার্ভ ওপেন করুন।


চিত্র-৩

এর জন্য Layer > New Adjustment Layer > Curves-এ ক্লিক করুন। এবার কার্ভ থেকে সবুজ রেখাটি একটু ওপরের দিকে পুশ করুন। ড্রপডাউন থেকে Green Curve সিলেক্ট করে কাজ করুন। দেখবেন চেহারায় একটু সবুজাভ ভাব চলে এসেছে। রেখাটিকে মাঝখান বরাবর পুশ করুন, তাতে মিডটোনগুলো কালারড হবে। ঠিক একইভাবে Blue টোনকে একটু পুশ করতে হবে। তবে এটি Green টোন থেকে কম হবে। চিত্র-৩-এ দেখানো হচ্ছে অ্যাডজাস্টমেন্ট লেয়ারে কার্ভ কিরূপ হবে।

হাল্কা কালার আভা মুখে ছড়িয়ে পড়েছে যা অনেক স্নিগ্ধ লাগবে চোখ দুটোকে। এবার আরো একটু কালার রিটাচ করতে চাইলে একটি লেভেল অ্যাডজাস্টমেন্ট লেয়ার তৈরি করুন। লেভেল অ্যাডজাস্টমেন্টে ছবিটির উজ্জ্বলতা এবং কন্ট্রাস্ট সমন্বয় করা যায়। এই ছবির ক্ষেত্রে 20, 0, 0.84, 255 মান ব্যবহার করতে পারবেন। এবার চোখের নিচে একটু নীলচে ফিরোজা রঙ ব্যবহার করতে হবে। এর জন্য একটি নতুন লেয়ার খুলতে হবে। এই ছবিতে কালার প্যালেট থেকে foreground Color সিলেক্ট করতে হবে। এখানে ফিরোজা কালার রঙ নির্বাচন করতে হবে। যারা রঙ নির্বাচন করতে সংকোচ করছেন তারা Color Code G #45ADCA দিয়ে দিতে পারেন। এটি রঙের নির্দিষ্ট কোড নম্বর। এবার সফট রাউন্ড ব্রাশ নিতে হবে। যার পিক্সেল আনুমানিক 200 আকৃতির হবে। এই ব্রাশের সাহায্যে চোখের নিচের অংশ হাল্কাভাবে পেইন্ট করুন। লক্ষ রাখবেন, এ সময় চোখের বেশি কাছে যেন রঙ না পৌঁছায়। তাহলে দেখতে খারাপ দেখাবে। এবার ব্রাশ দিয়ে পেইন্ট শেষ হলে লেয়ার ব্লেন্ডিং মোড থেকে সফট লাইট সিলেক্ট করে দিন। দেখবেন সুন্দর একটি নীলচে আলোয় মুখটি আলোকিত দেখাবে। এবার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ যা চোখের চারদিকে গ্লিটারের মতো কাজ করবে। এর জন্য ব্রাশ প্রপার্টিজ থেকে বেশ কিছু সেটিংস চেঞ্জ করতে হবে। Shape Dynamics-এ Size Jiter থেকে Angle Jiter এবং Roundniss Scattering Jiter কে 0% করে দিতে হবে।


চিত্র-৪


চিত্র-৫

এবার Scaltoing-এর ক্ষেত্রে Scatter Both Axes-এ টিক চিহ্ন দিয়ে এবং এর % সর্বোচ্চ 1000%-এ নিয়ে যেতে হবে। Count 1 করে দিন। Count Jiter 100% করে দিন। এবং Controls soft করে দিন ড্রপডাউন থেকে। এবং Smoothness-এ টিক চিহ্ন দিয়ে দিন। ব্রাশ প্রপার্টিজ দেখতে চিত্র-৪-এর মতো হবে। ব্রাশ প্যালেট থেকে ব্রাশ প্রপার্টিজ আনতে কীবোর্ড শটকার্ট F5 চাপতে পারেন। এবং ফোরগ্রাউন্ট কালার এবার একেবারে সাদা করে নিন। একটি নতুন লেয়ার খুলুন Gliher নামে। এবার চোখের পাপড়ি এবং চারদিকে পেইন্ট করে নিন। দেখবেন হাল্কা গ্লিটারের মতো চোখের চারদিকে চকচক করবে। বেশি হারে প্রয়োগ করবেন না তাতে এর মলিনতা কমে যাবে। চোখের ভ্রূর নিচে কিছু কিছু করে প্রয়োগ করতে হবে। যতটা দেখতে ভালো লাগে ততটা প্রয়োগ করুন। এবার ইচ্ছে করলে কিছু ঝকমকে স্টার যোগ করতে পারেন চোখের কিনারায়। এর জন্য আহামরি কোনো কিছু করতে হবে না। এর জন্য প্রথমে পলিগন সিলেক্ট করতে হবে। এরপর পলিগন অপশন থেকে Smooth Corners উঠিয়ে দিন ও Stars-এ টিক চিহ্ন দিন এবং Indent Sides by 90%-এ নিয়ে আসুন। এবার ইচ্ছেমতো জায়গায় স্টার গ্লিটার বসান। এবার ছবিটি দেখতে নিশ্চয়ই চিত্র-৫-এর মতো হয়েছে।

কাজটিকে ইচ্ছে করলে এখানেই শেষ করতে পারা যেত, কিন্তু এরপর কিছু স্পেশাল ব্রাশ ব্যবহার করে একটি ভিন্ন টেক্সচার তৈরি করে নিতে হবে। এর জন্য কিছু স্পেশাল ব্রাশ প্রয়োজন। আপনারা জানেন কিছু কিছু ব্রাশ ইন্টারনেটে ফ্রি পাওয়া যায়। আবার কিছু কিনে নিতে হয়। এখানে একটি ফ্রি ব্রাশ স্টাইল ব্যবহার করা হয়েছে, যার অ্যাড্রেস হলো http://createsk8.com/20007/sienl-curls-sick-brst-kit। এখানে ব্যবহৃত ব্রাশটি ফ্রি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। ব্রাশটি ইনস্টল করার পর ব্রাশ প্যালেটে এটি যোগ হয়ে যাবে। এবার এই ব্রাশটি ব্যবহার করে চোখ এবং এর ওপরের অংশে পেইন্ট করতে হবে। এটি চোখের চারদিকে ডিজাইন অনুযায়ী পেইন্ট করুন। ডিফারেন্ট কালার শেড ব্যবহার করতে পারেন। এখানে বেশ কিছু ডিজাইনের কার্ল ব্রাশ ব্যবহার করা হয়েছে। লক্ষ করবেন চোখের মণির ওপর যেন ডিজাইন না আসতে পারে। এবার এই লেয়ারটিকে মুখের ত্বকের সাথে অ্যাডজাস্ট করতে হবে। এর জন্য Image > adjustment > Hue/Saturation-এ ক্লিক করুন। এখান থেকে Lightness অর্থাৎ কালারের লাইটনেস একদম কমিয়ে দিন। এখানে -100 রাখা হয়েছে। এটি এই প্যাটার্নটিকে একটু কালচে করে দেবে। এবার এর রঙটিকে সফটভাবে উপস্থাপনের জন্য এর Blend Mode থেকে Soft Light সিলেক্ট করে দিন। এবার এখনো এই ডিজাইনগুলো অনেক Contrasty হয়ে আছে ছবিতে। তাই এটিকে একটু Gaussian Blur ব্যবহার করে আবছা করে নিতে পারেন। এর জন্য Filter > Blur > Gaussian Blur-এ ক্লিক করুন। পাঁচ পিক্সেলের বেশি Blur করা প্রয়োজন পড়বে না। এখানে ৩ পিক্সেল ব্লার করা হয়েছে।


চিত্র-৬

এবার শেষ কিছু ফিনিশিং দরকার, তাই একটি Level Adjustment লেয়ার তৈরি করে নিজের ইচ্ছেমতো লেভেল অ্যাডজাস্ট করুন। এটি সব Levelকে একটি সমন্বিত আলোতে নিয়ে আসে এবং সর্বশেষ হিসেবে Exposer Adjustment Layer নেয়া হয়েছে, যা ছবির পুরো উজ্জ্বলতা নির্দিষ্ট করে দেয়। এখানে Exposer+0.37 বাড়ানো হয়েছে এবং Offset-এর পরিমাণ কিঞ্চিৎ কমিয়ে-0.0346 রাখা হয়েছে এবং গামা কালেকশন করে +0.67-এ রাখা হয়েছে। এবার লক্ষ করে দেখুন কি সুন্দর মায়াবী দুটি চোখ লাগছে। মনে হচ্ছে যেন কোনো কল্পজগতের পরীর দুটি চোখ। আপনাদের প্রয়াসে নিশ্চয়ই চিত্র-৬-এর মতো একটি রহস্যময় সুন্দর চোখের সৃষ্টি করতে পেরেছেন। এই রকম চমকপ্রদ সুন্দর গ্রাফিক্সের কারুকাজ শিখতে চোখ রাখুন কমপিউটার জগৎ-এর গ্রাফিক্সের পাতায়।

কজ ওয়েব

ফিডব্যাক : ashraf.icab@gmail.com
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস