Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > অভি : নোকিয়ার এক নতুন দিগন্ত
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: মো: লাকিতুল্লাহ প্রিন্স
মোট লেখা:৩২
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১০ - জুন
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
নোকিয়া
তথ্যসূত্র:
মোবাইলপ্রযুক্তি
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
অভি : নোকিয়ার এক নতুন দিগন্ত


মোবাইল হ্যান্ডসেট প্রস্ত্ততকারক কোম্পানি নোকিয়া বেশ জনপ্রিয় একটি ব্র্যান্ড। পাওয়া তথ্যমতে বিশ্বের প্রায় ৪০ শতাংশ হ্যান্ডসেটই নোকিয়ার। বাংলাদেশেও নোকিয়ার বেশ জনপ্রিয়তা লক্ষ করা যায়। মোবাইল ফোন এখন শুধু কথা বলার ডিভাইস নয়, এটি পরিণত হয়েছে কমপিউটারের মিনি সংস্করণে। তথ্যপ্রযুক্তির এ স্বর্ণযুগে কমপিউটারের পাশাপাশি হাতের ওই ছোট্ট ডিভাইসটিতেও অনায়াসে ইন্টারনেট ব্যবহার করা যাচ্ছে। বিশ্বের যেকোনো প্রান্ত থেকে যেকোনো অবস্থায় তথ্য-মহাসড়কে সংযুক্ত থাকা যাচ্ছে ওই ডিভাইসগুলোর কল্যাণে।

কমপিউটার আর মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট ব্যবহারের ক্ষেত্রে প্রযুক্তিগত পার্থক্য থাকায় তাই ইন্টারনেটভিত্তিক সেবাগুলো এত সহজে মোবাইল ডিভাইসগুলোতে ব্যবহার করা যায় না। এজন্য প্রয়োজন সংশ্লিষ্ট প্রযুক্তিগুলোর আলাদা সংস্করণ। বিশ্বের নামকরা হ্যান্ডসেট প্রস্ত্ততকারক প্রতিষ্ঠানগুলো এসব নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। এমন প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো অ্যাপল, ব্ল্যাকবেরি, নোকিয়া, মাইক্রোসফট, গুগল ইত্যাদি।



হ্যান্ডসেট সরবরাহের দিক থেকে বিশ্বব্যাপী প্রায় শীর্ষ অবস্থানে থাকা সত্ত্বেও মোবাইল ফোনে ইন্টারনেটভিত্তিক সেবা দেয়ার জগতে নোকিয়ার প্রবেশ অন্যদের তুলনায় বরং কিছুটা দেরিতে। ঘোষণা দেবার প্রায় এক বছর পর ২০০৮ সালের আগস্ট মাসে নোকিয়া চালু করে অভি। অভি একটি ফিনিশ শব্দ, যার অর্থ দরজা। এই অভি হলো হ্যান্ডসেট ইউজারদের জন্য নোকিয়ার ইন্টারনেটভিত্তিক সেবার নতুন এক দিগন্ত। অভি জনপ্রিয়তা পেতে সময় নেয়নি। এ বছরের ফেব্রুয়ারির শেষ নাগাদ অভি থেকে প্রতিদিন প্রায় দেড় মিলিয়নের মতো কনটেন্ট ডাউনলোডের রেকর্ড রয়েছে।

অভির অধীনে নোকিয়া প্রধানত পাঁচ ধরনের সেবার দিকে গুরুত্ব দিচ্ছে। যেমন- গেমস, মিউজিক, মেসেজিং, মিডিয়া ও ম্যাপস। শুধু তাই নয়, অভির সাথে বিভিন্ন অপারেটর ও তৃতীয় পক্ষের সেবা- যেমন ইয়াহু, ফ্লিকারসহ আরো অনেক সেবা একত্রে নিয়ে আসার চেষ্টা করছে। এছাড়াও আরো নিত্যনতুন ও আধুনিক ফিচারের জন্য নোকিয়া বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন নামকরা প্রতিষ্ঠান যেমন- ন্যাভটেক, গেটফাইভ, স্টারফিশ সফটওয়্যার ইন্টেলিসিঙ্ক ইত্যাদির সাথে চুক্তি করছে বা তাদের প্যাটেন্ট কিনে নিয়েছে।

অভি সেবা শুধু মোবাইল ফোন নয়, কমপিউটার থেকেও সহজে ব্যবহার করা যায়। ফলে একজন ব্যবহারকারী খুব সহজেই অভিতে অ্যাক্সেস করতে পারবেন। এবার দেখে নেয়া যাক অভির অধীনে কী কী সেবা পাওয়া যাচ্ছে। অভি হোমপেজের জন্য http://www.ovi.com ইউআরএল-এ হিট করুন।

অভি মেইল


অন্যান্য ই-মেইল সেবার মতো এটিও একটি ই-মেইল সেবা। অভি মেইল পেতে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে, অবশ্য এতে কোনো চার্জ নেই। এভাবে পাওয়া যাবে ১ গিগাবাইট ফ্রি স্পেস। অভি হোমপেজে রেজিস্ট্রেশনের জন্য লিঙ্ক দেয়া রয়েছে। অভিতে রেজিস্ট্রেশন করলে ই-মেইলের পাশাপাশি অন্য সেবাগুলো ব্যবহার করা যাবে। সবচেয়ে মজার বিষয় হলো অভি ই-মেইল ঠিকানার ডোমেইন মাত্র তিন অক্ষরের, ফলে ই-মেইল ঠিকানা হয় আরো সহজ। নোকিয়া মোবাইল ডিভাইস ছাড়াও কমপিউটার থেকে ফায়ারফক্স, ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারসহ সবধরনের স্ট্যান্ডার্ড ওয়েব ব্রাউজার দিয়ে নির্বিঘ্নে অভি মেইলে অ্যাক্সেস করা যাবে। প্রয়োজনীয় নাম-ঠিকানা পরিচিতিগুলো কন্ট্যাক্টের অধীনে অ্যাড্রেসবুকে সেভ করে রাখা যায় এবং মোবাইল ফোনের সাথে সিঙ্ক্রোনাইজ করে নেয়া যায়। অভি মেইলের বেটা ভার্সন চালু করা হয় ২০০৮ সালের ডিসেম্বরে, পরে ২০০৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে সব অভি গ্রাহকের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়।

অভি মেইল চালু হবার প্রথম ছয় মাসেই ব্যবহারকারীর সংখ্যা সাড়ে ছয় লাখ ছাড়িয়ে যায়। জানুয়ারি ২০১০ -এ প্রকাশিত তথ্যমতে অভি মেইলের ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৫ মিলিয়ন ছাড়িয়ে গেছে। বাংলাসহ বিশ্বের প্রায় ১৫টি ভাষায় অভি মেইল ব্যবহার করা যাচ্ছে। বর্তমানে নোকিয়ার ৩৫টিরও বেশি ভিন্ন ভিন্ন মডেলে অভি মেইল সন্নিবেশ করা হয়েছে। এছাড়াও এস-৪০ এবং এস-৬০ প্লাটফর্মগুলোতে এ সুবিধা পাওয়া যাবে। অভি মেইলের ঠিকানা https://mail.ovi.com।

অভি স্টোর



মোবাইল ব্যবহারকারীরা অভি স্টোর থেকে পছন্দমতো গেমস, অ্যাপ্লিকেশন, ভিডিও, পিকচার, রিংটোন তাদের মোবাইল ডিভাইসে ডাউনলোড করতে পারবেন। এখান থেকে বেশ কিছু কনটেন্ট বিনা খরচে ডাউনলোড করা যায়। অন্য কনটেন্টগুলো ডাউনলোড করতে হয় নির্দিষ্ট মূল্যের বিনিময়ে। ক্রেডিট কার্ড বা সংশ্লিষ্ট মোবাইল অপারেটরের মাধ্যমে মূল্য পরিশোধ করা যেতে পারে। অভি স্টোরের কনটেন্টগুলো রেকমেন্ডেড, গেমস, পার্সোনালাইজ, অ্যাপ্লিকেশন, অডিও ও ভিডিও ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে। হ্যান্ডসেট মডেল, নিজস্ব পছন্দ আর অবস্থানের ওপর ভিত্তি করে কনটেন্ট ডাউনলোড করা যায়। গ্রাহকেরা তাদের পছন্দের কোনো কনটেন্ট সম্পর্কে অন্যদের জানিয়ে দিতে পারে। একে অপরের পছন্দ সম্পর্কেও তথ্য পেতে পারে।

কনটেন্ট পাবলিশারেরা একটি নির্দিষ্ট অর্থের বিনিময়ে অভি স্টোরে রেজিস্ট্রেশন করে কনটেন্ট পাবলিশ করতে পারেন। উদাহরণস্বরূপ, প্রোগ্রামাররা বিভিন্ন মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করে অভি স্টোরে পাবলিশ করার মাধ্যমে ভালো আয় করতে পারেন। প্রদত্ত কনটেন্টের বিক্রির ওপর নোকিয়া ৭০ ভাগ পর্যন্ত রেভেনিউ শেয়ার করবে। এ ব্যাপারে আরো বিস্তারিত জানার জন্য অভি স্টোরে ভিজিট করা যেতে পারে। যে ধরনের কনটেন্ট অভি স্টোরে পাবলিশ করা যায় : জাভা এমই, ফ্ল্যাশ অ্যাপ্লিকেশন, উইজেট, রিংটোন, ওয়ালপেপার, থিমসহ আরো অনেক কিছু যা নোকিয়া সিরিজ ৪০ ও ৬০তে সাপোর্ট করে। অভি স্টোরের জন্য ব্রাউজ করুন http://store.ovi.com।

অভি ফাইলস

অভি ফাইল একটি নিরাপদ অনলাইন স্টোরেজ, যেখানে নিজের প্রয়োজনীয় ফাইলগুলো সংরক্ষণ করা যায়।



১০ গিগাবাইটের বিশাল স্টোরেজে কমপিউটার ও মোবাইল ফোন থেকে সহজে অ্যাক্সেস করা যায়। বর্তমানে ১০ গি.বা. অভি ফাইলস সেবা বিনামূল্যে পাওয়া যাচ্ছে। প্রয়োজনীয় ফাইলগুলো নিরাপদে সংরক্ষণ ও বন্ধু অথবা সহকর্মীদের সাথে সহজে শেয়ার করা যায়। একটি ছোট্ট সফটওয়্যার ইনস্টলেশনের মাধ্যমে সরাসরি পিসি থেকে অভি সার্ভারে ফাইল আপলোড ও ডাউনলোড করা যায়। অভি ফাইলের ঠিকানা https://files.ovi.com।



অভি ম্যাপস



অভি ম্যাপস অনেকটা গুগল ম্যাপসের মতো। বিভিন্ন ধরনের ডিভাইস অনুসারে অভি ম্যাপস ভালো কাজ করে। বিশ্বের যেকোনো জায়গার ম্যাপ দেখা, নির্দিষ্ট ঠিকানা চিহ্নিত করা বা কোনো ট্যুরের রোডম্যাপ প্ল্যানিং ও সেভ করে রাখ- সবই সম্ভব অভি ম্যাপের সাহায্যে। এমনকি কমপিউটারে বিভিন্ন জনপ্রিয় ব্রাউজার, ফায়ারফক্স, ক্রোম, সাফারি, ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার ইত্যাদির আধুনিক ভার্সনগুলো দিয়েও ম্যাপস অ্যাক্সেস করা যায়।

অভি ম্যাপের আরো অনেক ফিচার কার্যকর করার জন্য ম্যাক বা উইন্ডোজ প্লাটফর্মে কিছু প্লাগইন ইনস্টল করে নিতে হয়। মোবাইল ডিভাইসের মাধ্যমে খুব কম খরচেই অভি ম্যাপস ব্যবহার করা যায়। এছাড়াও নোকিয়া অভি স্যুট দিয়েও অভি ম্যাপস অ্যাক্সেস করা যেতে পারে। আরো বিস্তারিত জানতে ব্রাউজ করুন http://maps.ovi.com।

অভি ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং

নতুন নোকিয়া ফোনগুলোতে অভি ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশন আগে থেকেই সন্নিবেশ করে দেয়া থাকছে। এর মাধ্যমে একজন অভি গ্রাহক অপর অভি গ্রাহকের সাথে ইনস্ট্যান্ট মেসেজ আদানপ্রদান করতে পারবেন। শুধু তাই নয়, প্রচলিত জনপ্রিয় ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং সার্ভিস ইয়াহু, গুগল টক, উইন্ডোজ লাইভ ব্যবহারকারীদের সাথেও সহজে ইনস্ট্যান্ট মেসেজ আদানপ্রদান করতে পারবেন। চ্যাট হিস্ট্রি সেভ করে রাখা, চ্যাট স্ট্যাটাস পরিবর্তনসহ প্রচলিত মেসেঞ্জারের প্রায় সব সুবিধা এতে পাওয়া যাবে।

অভি শেয়ার



নিজের ভালোলাগার মুহূর্তগুলো সংরক্ষণ ও প্রিয়জনের সাথে শেয়ার করতে কে না চায়। অভি এনে দিয়েছে এমন সুযোগ যার মাধ্যমে নিজের পছন্দের ছবি, ভিডিও বা অডিও ফাইল আপলোড করা যায়। পরে পছন্দের কারো সাথে সেসব শেয়ার করা এমনকি ব্যক্তিগত বা অন্য কোনো ওয়েবসাইটেও সেগুলো অ্যামবেড করে পাবলিশ করাও যায়।

পিসি, ডিজিটাল ক্যামেরা কিংবা মোবাইল ফোন থেকে সরাসরি ফাইলগুলো অভিতে আপলোড করা যাবে। মিডিয়া ফাইল আপলোডের ক্ষেত্রে কোনো নির্দিষ্ট স্টোরেজ সীমা বেঁধে দেয়া হয়নি। ফলে যত খুশি মিডিয়া ফাইল আপলোড ও শেয়ার করা যাবে। অভি শেয়ারের ঠিকানা http://share.ovi.com।

অভি স্যুট, সিঙ্ক ও প্লেয়ার

নোকিয়া অভি স্যুট একটি ডেস্কটপ অ্যাপ্লিকেশন, যার সাহায্যে পিসি থেকে হ্যান্ডসেটে কিংবা হ্যান্ডসেট থেকে পিসিতে ছবিসহ অন্যান্য ফাইল আদান-প্রদান করা যায়। বর্তমানে শুধু উইন্ডোজ ও ম্যাকের জন্য অভি স্যুট পাওয়া যাচ্ছে।

অভি সিঙ্কের মাধ্যমে ফোনের কন্ট্যাক্ট, ক্যালেন্ডার ইভেন্ট কিংবা নোটস অভি ওয়েবের সাথে সিঙ্ক্রোনাইজ করা যায়, আবার ডাটা ব্যাকআপ রাখাও যায়।

অভি প্লেয়ার পিসির জন্য একটি মিউজিক ম্যানেজমেন্ট ও প্লেব্যাক সফটওয়্যার। অভি প্লেয়ারের সাহায্যে নোকিয়ার মিউজিক স্টোর ব্রাউজ এবং মিউজিক ট্র্যাক ডাউনলোড করা যায়। পরে সেগুলো হ্যান্ডসেটে চালানোর উপযোগী করে ট্রান্সফার করা যায়। অভি স্যুট ও অভি প্লেয়ার ডাউনলোড করা যাবে যথাক্রমে http://europe.nokia.com/support/download-software/nokia-ovi-suite, http://music.nokia.com/download সাইট দু’টি থেকে।

নোকিয়া মিউজিক স্টোর

অভির অন্যতম জনপ্রিয় ও আকর্ষণীয় একটি সেবা মিউজিক স্টোর। গ্রাহক একটি নির্দিষ্ট চার্জের বিনিময়ে মিউজিক ট্র্যাকগুলো পিসিতে বা মোবাইল ডিভাইসে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।



বর্তমানে ৩৬টিরও বেশি দেশে নোকিয়ার মিউজিক স্টোর চালু রয়েছে এবং প্রতিনিয়ত নতুন নতুন দেশে নোকিয়া এ সার্ভিস নিয়ে আসছে। নির্দিষ্ট সাবস্ক্রিপশনের বিনিময়ে এসব সাইট থেকে অসংখ্য মিউজিক ট্র্যাক ডাউনলোডের সুযোগ পাওয়া যায়। অভি মিউজিক স্টোরের জন্য ভিজিট করুন http://music.ovi.com।

এছাড়াও গেমিংয়ের জন্য রয়েছে নোকিয়ার বিশেষ প্লাটফর্ম এন-গেইজ, যা নোকিয়ার এন৭৮, এন৭৯, এন৮১, এন৯৫, ৫৩২০ ইত্যাদি মডেলে অ্যামবেড করা হয়েছে। এটি মোবাইল ফোনের মতো পোর্টেবল ডিভাইসে গেমিংয়ের অভিজ্ঞতাই পাল্টে দেবে। অভির নিত্যনতুন ফিচারের খবর পেতে অভি ওয়েব www.ovi.com-এ ঢুঁ মারতে ভুলবেন না যেন।

কজ ওয়েব

ফিডব্যাক : hexprince@gmail.com
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস