Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > দ্রুতগতির ফাইল শেয়ারিং কমিউনিটি-দারুচিনিবিডি.কম
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: সৈয়দ হাসান মাহমুদ
মোট লেখা:১৪৩
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১০ - জুলাই
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
ফাইল শেয়ারিং
তথ্যসূত্র:
রির্পোট
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
দ্রুতগতির ফাইল শেয়ারিং কমিউনিটি-দারুচিনিবিডি.কম

আমাদের দেশে ইন্টারনেট সেবা দিন দিন ব্যাপক হারে বেড়ে চলেছে। ডায়াল-আপ সিস্টেমের জায়গা দখল করে নিয়েছে ব্রডব্যান্ড সংযোগ। ব্রডব্যান্ডের পাশাপাশি রয়েছে ওয়্যারলেস-প্রযুক্তি, যার সহায়তায় কোনো তারের ঝামেলা ছাড়াই পাওয়া যায় ইন্টারনেট সেবা। আমাদের দেশীয় টেলিকমিউনিকেশন কোম্পানিগুলো তাদের গ্রাহকদের ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছে, যার ফলে ইন্টারনেট সেবা আমাদের দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলেও পৌঁছে গেছে। গ্রামীণফোন, ওয়ারিদ, বাংলালিঙ্ক, একটেল (রবি), সিটিসেল কোম্পানিগুলো তাদের টেলিকমিউনিকেশনের সাথে বিভিন্ন প্যাকেজে ওয়্যারলেস ইন্টারনেট সেবা দিয়ে থাকে। এই সুবিধার ফলে আমাদের দেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা অনেকগুণে বেড়েছে। ইন্টারনেট সেবার সম্প্রসারণের আরেকটি মাইলফলক হিসেবে উন্মোচিত হয়েছে ওয়াইম্যাক্সপ্রযুক্তি। এর ফলে দ্রুতগতির তারবিহীন ইন্টারনেট সেবার মাধ্যমে আমাদের যোগাযোগ মাধ্যমকে আরো উন্নত করা সম্ভব হবে।

ইন্টারনেট সেবা ও বাংলাদেশ

আমাদের দেশে অনলাইন ইন্টারনেট সেবার সুযোগ-সুবিধা পরিমিতভাবে গ্রাহকদের হাতে পৌঁছাচ্ছে না। এ সেবার যথাযোগ্য ব্যবহারের বাধা হচ্ছে- যথোপযুক্ত সরকারি উদ্যোগের অভাব, দুর্বল টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা, সচেতনতার অভাব, ইন্টারনেট সেবার উচ্চমূল্য ও প্রাতিষ্ঠানিক উদ্যোগের অভাব। এসব সমস্যার কারণে আমরা অন্যান্য দেশের তুলনায় ইন্টারনেট সেবার দিক থেকে অনেক পিছিয়ে রয়েছি। সাধারণ ইন্টারনেটের যে গতি তাতে ছোট আকারের একটি ফাইল ডাউনলোড দিয়ে গালে হাত দিয়ে বসে থাকতে হয় তা নামার অপেক্ষায়। আর বড় আকারের ফাইল হলে তো কথাই নেই, পার হয়ে যায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা। ভালো গতির ইন্টারনেট সেবা পেতে আমাদের গুনতে হয় বেশ বড় অঙ্কের টাকা, যা বহন করা সবার পক্ষে সম্ভব হয়ে ওঠে না। তাই সাধারণ ব্যবহারকারীদের কম গতির সেবা নিয়েই খুশি থাকতে হয়। ইন্টারনেটে ডাউনলোডের গতির দিক থেকে সবার চেয়ে এগিয়ে আছে- দক্ষিণ কোরিয়া (৩২.৩৩ মেগাবিট পার সেকেন্ড) এবং পর্যায়ক্রমে ২য়, ৩য়, ৪র্থ ও ৫ম হচ্ছে লাটভিয়া (২৩.৩০), লিথুনিয়া (২১.৮৪), এন্ডোরা (২০.৭৯) ও এল্যান্ড দ্বীপপুঞ্জ (২০.৭৬)। উন্নত দেশগুলো যেখানে ইন্টারনেটের গতির দিকে এতটা এগিয়ে আছে সেখানে আমরা পরে আছি এই তালিকার ১৪৩ তম স্থানে মাত্র ১.০৫ মেগাবিট পার সেকেন্ড স্পিড নিয়ে। ইন্টারনেট গতির তালিকাটি http://www.speedtest.net/ global.php সাইটটিতে দেয়া আছে আরো বিস্তারিতভাবে (এ পরিসংখ্যান নিয়মিত হালনাগাদ করা হয়, তাই তথ্য কিছুটা রদবদল হতে পারে)। এত দ্রুতগতির ইন্টারনেট সেবা আমাদের ভাগ্যে কতদিন পরে জুটবে বা আদৌ জুটবে কি না সে ব্যাপারেও বেশ সন্দেহ রয়েছে। কিন্তু যদি এমন দ্রুতগতি আমরাও পাই, চোখের পলকে নামিয়ে ফেলা যায় গান, মুভি, গেমস, বই, মিউজিক ভিডিও, তখন কেমন হবে ব্যাপারটা। আজকে এ আলোচনায় এমনি একটি ব্যাপারকে তুলে ধরা হবে যাতে আপনারা অতি সহজে উচ্চগতিতে ফাইল ডাউনলোড করতে পারবেন ও নিজের ফাইল শেয়ার করতে পারবেন।

দারুচিনিবিডি.কম



অসাধারণ গতিতে ফাইল ডাউনলোড ও আপলোড করার সুবিধাদানকারী দারুচিনিবিডি.কম (DaruchiniBD.Com) নামের অনলাইন টরেন্ট সার্ভার বা ফাইল শেয়ারিং কমিউনিটি হিসেবে বেশ নাম করেছে। সাইটটির ঠিকানা হচ্ছে www.daruchinid.com। সাইটটির সদস্য সংখ্যা ৪৯০০-এর ওপরে এবং এলেক্সা.কমের (Alexa.com) ওয়েবসাইট র্যাmঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের সাইটগুলোর মধ্যে ১৭৩তম স্থানে রয়েছে। এ সাইটটে রয়েছে পাঁচ হাজারেরও বেশি টরেন্ট ফাইলের সমাহার, যা থেকে আপনি আপনার পিসিতে থাকা বিটটরেন্ট ক্লায়েন্টের সহায়তায় অনায়াসে নামিয়ে নিতে পারবেন বিভিন্ন ধরনের ফাইল।

দারুচিনিবিডির ভান্ডার

টরেন্টস সেকশনে গেলে পাবেন ব্লু-রে রিপ, এইচডি রিপ, ডিভিডি রিপ মুভি যার কোয়ালিটির তুলনা চলে না। ইংরেজি, হিন্দি, জাপানী মুভির পাশাপাশি তামিল মুভিও পাবেন এই সাইটে। অ্যাকশন, অ্যাডভেঞ্চার, কমেডি, থ্রিলার, হরর, সায়েন্স ফিকশন, ফ্যান্টাসি, অ্যানিমেশন, ড্রামা সবধাঁচের পুরনো ও নতুন মুভির বিশাল সমাহার রয়েছে এতে। এছাড়াও আরো রয়েছে নাটক, গান, মিউজিক ভিডিও, টিউটরিয়াল, এনসাইক্লোপিডিয়া, কার্টুন, নানা ধরণের বই, পিকচার কালেকশন, উইন্ডোজ ও লিনআক্সের জন্য সফটওয়্যার ইত্যাদি। এখানে কে কোন ফাইল আপলোড বা ডাউনলোড করছে বা করেছে তার সব কিছুরই তথ্য রয়েছে। তাই যখন কোনো টরেন্টে সিড পাবেন না, তখন সরাসরি সিডারকে মেসেজ দিয়ে টরেন্টটি সিড করার অনুরোধ করতে পারবেন। তাই এখান থেকে টরেন্ট নামাতে গিয়ে সমস্যার মুখোমুখি হতে হবে না, যেমনটা অন্য টরেন্ট সাইটে হয়ে থাকে।

উচ্চগতিতে ফাইল শেয়ারিংয়ের কারণ

এ সাইট থেকে দ্রুতগতিতে ফাইল ডাউনলোড বা আপলোড করা যায়। কারণ সাইটের প্রতিটি টরেন্টে দারুচিনিবিডির নিজস্ব ট্র্যাকার রয়েছে যা একই নেটওয়ার্কের আওতায় থাকা গ্রাহকদের দ্রুতগতিতে ফাইল শেয়ার করার সুবিধা দেয়। লোকাল ইন্টারনেট সার্ভিস প্রভাইডারগুলোতে এক গ্রাহক অন্য গ্রাহকের সাথে ল্যান কানেকশনের মাধ্যমে যুক্ত থাকে, তাই তারা নিজেদের মধ্যে ফাইল শেয়ারিং বা অনলাইন ল্যান গেমিংয়ের সময় লাইনের ব্যান্ডউইডথ হিসেবে প্রায় ১-১০ মেগাবাইট পার সেকেন্ড (১ মেগাবাইট=৮ মেগাবিট) গতি পেয়ে থাকে। বাংলাদেশ ইন্টারনেট এক্সচেঞ্জ-এর (BDIX) ওয়াইড এরিয়া নেটওয়ার্কের সাহায্যে ঢাকার বিশাল এলাকায় মাকড়সার জালের মতো তাদের নেটওয়ার্ক ছড়িয়ে দিয়েছে। এ নেটওয়ার্কের আওতায় যারা রয়েছে সবাই পরস্পরের সাথে ওয়ান (WAN) কানেকশনের মাধ্যমে যুক্ত। এ কারণে বিডিআইএক্স-এর আওতায় যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকেন তারা নিজেদের মধ্যে এত দ্রুতগতিতে ফাইল আদানপ্রদান করতে পারবেন। দারুচিনিবিডি ফাইল শেয়ারিং করার ব্যবস্থাটা খুব সহজ করে দিয়েছে তাদের এ টরেন্ট সার্ভারের মাধ্যমে। টরেন্ট ফাইলগুলো নামিয়ে ক্লায়েন্ট সফটওয়্যারে ডাউনলোড করতে দিলে তা নিমেষেই ডাউনলোড হয়ে যাবে যদি পর্যাপ্তসংখ্যক সিডার অনলাইনে থাকেন।

সাইটি সম্পর্কে দারুচিনিবিডি.কম-এর অ্যাডমিনিস্ট্রেটর মো. রেজাউর রহমান বলেন, দারুচিনিবিডি.কম বাংলাদেশের সর্বপ্রথম অনলাইন টরেন্ট সার্ভার। মূলত সার্ভারটি গঠন করা হয়েছিল আমাদের নিজস্ব প্রয়োজনে, কিন্তু বিপুল সাড়া ও চাহিদার কারণে তা উন্মুক্ত করে দিয়েছি বাংলাদেশের সবার জন্য। এখন এ টরেন্ট সার্ভার পৃথিবীর যেকোনো প্রান্ত থেকে ব্যবহার করা যাবে। বাংলাদেশে টরেন্ট সার্ভার ও টরেন্ট ফাইলের ধারণা নতুন। তারপরও বাংলাদেশের ছেলেমেয়েদের এ ব্যাপারে আগ্রহের কমতি নেই, প্রতিদিন বিভিন্ন আইএসপি থেকে প্রচুরসংখ্যক ইউজার এ সার্ভারে রেজিস্ট্রেশন করছে আর শেয়ার করেছে তাদের ফাইল। দারুচিনিবিডি.কম সার্ভার বাংলাদেশের যুবসমাজের মধ্যে ফাইল শেয়ারিংয়ের যে আগ্রহ সৃষ্টি করেছে তা শুধু সাধারণ ফাইল শেয়ারিংয়ের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে না, আমরা মনে করছি এ ইন্টারনাল ফাইল শেয়ারিং আমাদের জাতীয় পর্যায়ে ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথের ওপরে চাপ কমাতে সক্ষম হবে।

শেষের কথা

অনেক ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান এফটিপি (FTP) সার্ভারের সাহায্যে গ্রাহকদের ফাইল ডাউনলোড করার সুবিধা দিয়ে থাকে, কিন্তু সেখানে ফাইলের সংখ্যা অপ্রতুল। সবাই তাদের চাহিদামতো কিছু পায় না, যা দেয়া থাকে তাই নামাতে বাধ্য থাকে। কিন্তু নিজেদের এলাকায় কেউ এরকম টরেন্ট বা ডিরেক্ট ফাইল ডাউনলোড করার মতো ফাইল শেয়ারিং কমিউনিটি গড়ে তোলেন, তবে তা সবার জন্য ভালো হয়। একই এলাকার বা একই নেটওয়ার্কের অভ্যন্তরে সবাই দ্রুতগতিতে নিজেদের পছন্দমতো ফাইল শেয়ার করতে পারবে ও সেইসাথে খেলতে পারবে অনলাইন গেম। এতে পারস্পরিক সম্পর্ক গড়ে উঠার পাশাপাশি ইন্টারনেটের ব্যবহার যথাযথ হবে এবং আমাদের যোগাযোগ মাধ্যমের উন্নয়ন নিশ্চিত হবে।

কজ ওয়েব

ফিডব্যাক : shmt_21@yahoo.com
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস