Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > ট্রাস্টপোর্ট - দুটি ইঞ্জিনের অ্যান্টিভাইরাস
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: মোহাম্মদ ইশতিয়াক জাহান
ইমেইল:rony446@yahoo.com:
মোট লেখা:৮৮
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১০ - জুলাই
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
অ্যান্টি-ভাইরাস
তথ্যসূত্র:
সিকিউরিটি
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
ট্রাস্টপোর্ট - দুটি ইঞ্জিনের অ্যান্টিভাইরাস



আমাদের প্রতিদিনের জীবনে যেসব কাজ করা হয়, তার বেশিরভাগ ক্ষেত্রে আমরা সিকিউরিটি খুঁজে থাকি। সিকিউরিটি হতে পারে বিভিন্ন ধরনের, যেমন : ব্যাংকে টাকা রাখার, বাসা-বাড়ির, অফিসের, যানবাহনের, আসবাবপত্র, টাকা পয়সার সিকিউরিটি ইত্যাদি। সিকিউরিটি শব্দটি যেমন দৈনন্দিন জীবনের সাথে জড়িয়ে গেছে, ঠিক তেমনই আমাদের কাজকর্মের মধ্যেও এ সিকিউরিটির বিষয়টি চলে এসেছে। এই সিকিউরিটি শব্দটি আমাদের জীবনের সাথে জড়িয়ে গেছে। বর্তমান যুগকে প্রযুক্তির যুগ বলা হয়। কারণ, এখন সবকিছুই কমপিউটারায়িত হয়ে যাচ্ছে এবং ইন্টারনেটের সাহায্যে এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে সহজেই যোগাযোগ করা যাচ্ছে। ইন্টারনেট ব্যবহার করার ফলে কমপিউটারের সিকিউরিটির পরিমাণ কমে যাচ্ছে। এক কমপিউটারের পেনড্রাইভ অন্য কমপিউটারে ব্যবহারের ফলে কমপিউটারে ভাইরাসের আক্রমণও হচ্ছে। সিকিউরিটির অভাবে কমপিউটারের ডাটা লস, ব্যক্তিগত তথ্য চুরি হয়ে যাচ্ছে। অনেক হ্যাকার আছে যারা অন্যের ক্ষতি করার জন্য বসে থাকেন। এসব হ্যাকার বিভিন্ন ধরনের ভাইরাস, ট্রোজান, স্পাম তৈরি করে বিভিন্ন কমপিউটারের ক্ষতি করছে। ফলে ব্যবহারকারীর কমপিউটার হয়ে যচ্ছে অরক্ষিত। এসব সমস্যা নিয়ে বর্তমানে সবাই কম বেশি চিন্তিত। এসব সমস্যা থেকে সমাধানের বিকল্প পথ হচ্ছে সিকিউরিটি টুল বা অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করা। কিন্তু কোন অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করবেন, তা নিয়ে অনেকেই অনেক ধরনের দ্বিধাদ্বন্দ্বে ভুগে থাকেন। বাজারে বিভিন্ন ধরনের অ্যান্টিভাইরাস রয়েছে। এসব অ্যান্টিভাইরাসের ব্যাপারে গুগলে রিভিউ ঘাঁটুন, বিভিন্ন ব্লগে ঢু মারুন। দেখুন কে কোন অ্যান্টিভাইরাসে কথা বেশি বলছে। এখানে বলে রাখা ভালো, সব ধরনের অ্যান্টিভাইরাস কম-বেশি সুবিধা দিয়ে থাকে, যা একটি অ্যান্টিভাইরাসকে অন্য একটি অ্যান্টিভাইরাস থেকে আলাদা করে। কমপিউটার জগৎ-এর গত কয়েক সংখ্যায় বেশ কিছু অ্যান্টিভাইরাস ও সিকিউরিটি টুল সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। এবারের সংখ্যাতে এমন একটি অ্যান্টিভাইরাস সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে, যা দুটি ইঞ্জিনের সমন্বয়ে তৈরি হয়েছে। অ্যান্টিভাইস টুলটির নাম Trustport Antivirus।



TrustPort অ্যান্টিভাইরাস টুলটি Czech rootsসহ তৈরি হওয়ার অন্যতম অ্যান্টিভাইরাস। এ অ্যান্টিভাইরাস দুটি ইঞ্জিনের সমন্বয়ে তৈরি করা হয়েছে। ফলে ট্রাস্টপোর্ট অ্যান্টিভাইরাসে বেশ কিছু উঁচুমানের স্পাইওয়্যার বা অ্যাডওয়্যার শনাক্ত করার ক্ষমতা রয়েছে। বিভিন্ন ধরনের ভাইরাস, স্পাম, স্পাইওয়্যার, ট্রোজান থেকে মুক্তি দেয়ার জন্য ট্রাস্টপোর্ট অন্যতম একটি সিকিউরিটি টুল হিসেবে কাজ করছে। এ অ্যান্টিভাইরাসটি ই-মেইল ও ওয়েবের নিরাপত্তা বিধান করে থাকে। ট্রাস্টপোর্ট অ্যান্টিভাইরাসের একটিই মাত্র সমস্যা রয়েছে। তা হচ্ছে, স্লো স্ক্যানিং অর্থাৎ ভাইরাস স্ক্যান করার প্রক্রিয়াটি খুবই ধীরগতির। ট্রাস্টপোর্ট অ্যান্টিভাইরাসে বেশ কিছু আকর্ষণীয় ফিচার রয়েছে, যা এই ধীরগতির বিষয়টিকে বেশ হালকা করে ফেলে।

কোথায় পাবেন :

এই টুলের সাইজ মাত্র ১৪৪ মেগাবাইট এবং অ্যান্টিভাইরাসের ট্রায়াল ভার্সন ডাউনলোড করার জন্য ভিজিট করুন : http://www.trustport.com/en বা সাইটের লিঙ্ক পাওয়ার জন্য ভিজিট করুন : http://rony-blog.co.nr।

ইনস্টলেশন :

ট্রাস্টপোর্ট অ্যান্টিভাইরাসটির ইনস্টলেশন প্রসিডিউর অনেক সহজ। মাত্র ৫ মিনিটের মধ্যে অ্যান্টিভাইরাসটি আপনার কমপিউটারে ইনস্টল করতে পারবেন।

ট্রাস্টপোর্ট অ্যান্টিভাইরাসের ইন্টারফেস :

ট্রাস্টপোর্ট অ্যান্টিভাইরাসের ইন্টারফেসটি অনেকটা আভাস্ট 4.8 ভার্সনের মতো। কিন্তু এর গ্রাফিক্যাল ইন্টারফেস নরটন ২০১০ বা F-Secure ফ্রি ভার্সন অ্যান্টিভাইরাসের মতো। ESET NOD32 অ্যান্টিভাইরাসের মতো এই অ্যান্টিভাইরাসে রয়েছে Advanced Interface অপশন। নিচে এসব ফিচার সম্পর্কে সংক্ষেপে আলোচনা করা হয়েছে।

অন-অ্যাক্সে প্রোটেকশন :

কমপিউটারে যেসব ফাইল খোলা ও বন্ধ করা হয়ে থাকে তার ওপর বিশেষ নজর থাকে এই অ্যান্টিভাইরাসের। ফাইলের সাথে যদি কোনো ধরনের ভাইরাস থাকে, তাহলে অ্যান্টিভাইরাসটি সাথে সাথে প্রটেকশন নিয়ে থাকে। প্রটেকশনের মধ্যে হচ্ছে ফাইল থেকে ভাইরাস রিকোভার, রিনেম, কোয়ার্টাইন, ভাইরাস ডিলিট করে ফেলা।

অন-ডিমান্ড স্ক্যানিং :

আপনি নির্দিষ্ট কিছু ফাইল বা ফোল্ডার বা ড্রাইভের জন্য আলাদা স্ক্যানিং সিডিউল সেট করে দিতে পারেন। সব সময় ফাইলের মনিটরিংয়ের জন্য আলাদা প্রটেকশন সেট করে দিতে পারেন।

ওয়েব অ্যান্টিভাইরাস :

ইন্টারনেট ব্যবহার করার সময় ক্ষতিকর কোড থেকে রক্ষা করার জন্য এই টুলটি সুরক্ষা দিতে পারে।

মেইল অ্যান্টিস্পাম :

মেইলের অপরিচিত স্পাম, ইনকামিং মেইলের সাথে যুক্ত ভাইরাসের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য টুলটি কার্যকর পদক্ষেপ নিয়ে থাকে এবং স্বয়ংক্রিয়ভাবে এসব ক্ষতিকারক স্পাম বা ভাইরাস থেকে ই-মেইল অ্যাকাউন্ট ও মেইলকে রক্ষা করে থাকে।

প্যারেন্টাল লক :

অপরিচিত কনটেন্ট বা পেজ থেকে রক্ষা দেয়ার জন্য টুলের সাথে রয়েছে Parental Lock অপশন। ফলে আপনি যেসব পেজ বন্ধ রাখতে চাচ্ছেন যেমন : ভাইরাসের সাইট, হ্যাকারদের সাইট, পর্নো সাইট ইত্যাদি সাইট বন্ধ করে রাখতে পারেন। ফলে কেউ সাইটগুলোতে ভিজিট করার চেষ্টা করেও ভিজিট করতে পারবে না।

ট্রাস্টপোর্ট অ্যান্টিভাইরাসের বেশ কিছু আকর্ষণীয় ফিচার রয়েছে, যা কমপিউটারকে সুরক্ষিত করতে পারে। এসব ফিচার ব্যবহারের জন্য অ্যান্টিভাইরাসের ডাটাবেজকে প্রতিনিয়ত ইন্টারনেট থেকে আপডেট করে নিতে হবে। এই অ্যান্টিভাইরাস টুলের সাথে আরো যেসব অপশন রয়েছে, তার মধ্যে অন্যতম একটি অপশন হচ্ছে স্ক্রিন পরিবর্তন। পছন্দমতো অ্যান্টিভাইরাসের স্ক্রিন পরিবর্তন করতে পারেন। এখানে আরো রয়েছে লগ অপশন যা দেখে অ্যান্টিভাইরাসের বিভিন্ন সময়ের লগ-এর অবস্থার কথা সহজেই জানতে পারবেন। ট্রাস্টপোর্ট কোম্পানি ট্রাস্টপোর্ট অ্যান্টিভাইরাস ছাড়াও পিসি সিকিউরিটি, ই-সাইন প্রো, ইউএসবি অ্যান্টিভাইরাস, BD3 অ্যান্টিভাইরাসসহ বেশ কিছু সিকিউরিটি টুলের সুবিধা দিয়ে থাকে। ইন্টারনেট থেকে এসব টুলের ট্রায়াল ভার্সন ফ্রিতে ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারেন।

কজ ওয়েব

ফিডব্যাক : ronny446@yahoo.com
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস