Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > উবুন্তুর নতুন ভার্সন : ম্যাভেরিক মিরকাট
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: প্রকৌশলী মর্তুজা আশীষ আহমেদ
মোট লেখা:২২
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১০ - নভেম্বর
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
লিনআক্স
তথ্যসূত্র:
লিনআক্স
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
উবুন্তুর নতুন ভার্সন : ম্যাভেরিক মিরকাট

উবুন্তু এখন ডেস্কটপের সীমানা পেরিয়ে সার্ভার ও ওয়ার্কস্টেশনের জন্য বানানো হচ্ছে। অত্যাধুনিক ফিচার তৈরির ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি উবুন্তু বের করেছে তার ১০.১০ সংস্করণ। এই সংস্করণ একই সাথে ডেস্কটপ, ল্যাপটপ ও সার্ভারে চালানো যাবে। এর পাশাপাশি বেশিরভাগ নেটবুকেও চালানো সম্ভব এই ভার্সন। উবুন্তুর লুসিড লিনআক্স ভার্সনের পরবর্তী এ ভার্সনের নাম রাখা হয়েছে ম্যাভেরিক মিরকাট (Maverik Meerkut)। এই লিনআক্সের কার্নেলের আপডেটসহ মাল্টিমিডিয়ার জন্য বেশ কিছু নতুন ফিচার যোগ করা হয়েছে। দেখে নেয়া যাক কী কী কার্যকর ফিচার এতে সংযোজিত হয়েছে।



উবুন্তুর এই ভার্সনে যেসব নতুন ফিচার যোগ করা হয়েছে, সেগুলোর মধ্যে আগের ভার্সনের মতোই পিজিন মেসেঞ্জারের পরিবর্তে এম্প্যাথি উপস্থিত। এর আগের ভার্সনের মতো ভিওআইপি টুল একিগা যোগ করা হয়েছে। এখানে উইন্ডোজের প্রোগ্রাম চালানোর প্লাটফর্ম ওয়াইনের সাপোর্ট রাখা হয়েছে। উইন্ডোজের প্রোগ্রাম লিনআক্সে চালানো এখন থেকে ওয়াইনের কারণে আগের চাইতে অনেক সহজ হবে। উবুন্তুর এই ভার্সনের নেটওয়ার্ক ম্যানেজার অনেক শক্তিশালী করা হয়েছে। বাংলার জন্য লিনআক্সের সাপোর্ট আগের ভার্সনের মতোই আছে।

নতুন ফিচারের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে, এতে ডিভিডি চালানোর জন্য শক্তিশালী অ্যাপ্লিকেশন ও কোডেক সাপোর্ট রাখা হয়েছে। নতুন একটি ডিভিডি চালানোর সফটওয়্যার যুক্ত করা হয়েছে যার নাম ফ্লুয়েন্ডো। তবে এর ফুল ভার্সন এতে থাকছে না। এটি কিনে চালাতে হবে। উবুন্তুর ফন্ট ব্যবস্থা ঢেলে সাজানো হয়েছে। লিনআক্সেরই ভার্সনে সাউন্ড ইন্ডিকেটরের সাথে অডিও প্লেয়ার সফটওয়্যার যুক্ত করে দেয়া হয়েছে। বুট প্রসেস দ্রুত করা হয়েছে।

যারা লুসিড লিনক্স ব্যবহার করেছেন, তারা একবাক্যে স্বীকার করবেন, এই উবুন্তু আগের চাইতে অনেক গতিশীল। এর নতুন ফটো ম্যানেজার শটওয়েল আগের ফটো ম্যানেজারের চাইতে দ্রুত ও বেশি কার্যকর।

উবুন্তু লিনআক্সের এই ভার্সন ইনস্টল করা যায় আগের ভার্সনগুলোর মতো করেই। সিস্টেমে লিনআক্স ইনস্টলেশনের ক্ষেত্রে কমপিউটিং জটিলতা এড়ানোর জন্য আলাদা পার্টিশন তৈরি করা ভালো। পার্টিশন করার জন্য থার্ড পার্টি পার্টিশনিং টুল ব্যবহার করা যায়, যেমন পাওয়ারকোয়েস্ট পার্টিশন ম্যাজিক। পার্টিশন করার জন্য লিনআক্সের নিজস্ব প্রোগ্রাম আছে। কিন্তু পার্টিশনিং সহজ করার জন্যই পাওয়ারকোয়েস্ট পার্টিশন ম্যাজিক ব্যবহার করা ভালো। অন্তত দুইটি পার্টিশন করতে হবে- একটি লিনআক্সের রুট এবং অন্যটি লিনআক্স সোয়াপ পার্টিশন। লিনআক্সের সোয়াপ পার্টিশনের জন্য আপনার সিস্টেমের র্যা মের দ্বিগুণ জায়গা দিতে হবে। আর রুট ফাইল সিস্টেমের জন্য ৫ গিগাবাইটের মতো জায়গা দিলেই চলবে। এসব মাথায় রেখেই উইন্ডোজ পার্টিশন থেকে জায়গা খালি করতে হবে।

যেকোনো পার্টিশনিং সফটওয়্যার ব্যবহার করে পার্টিশন করা যেতে পারে। লিনআক্সের পার্টিশনিং সফটওয়্যারও ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে আগে থেকে ডাটা ব্যাকআপ রেখে দিতে হবে অবশ্যই। মোটামুটি ১০ গিগাবাইটের মতো জায়গা লিনআক্সকে দিলে তা স্বচ্ছন্দে সিস্টেমে চলবে। আর সোয়াপ পার্টিশনের জন্য দুই গিগাবাইট জায়গা রাখলেই চলবে।

এবারে লিনআক্সের ইনস্টলেশনের জন্য উবুন্তুর বুটেবল ডিস্ক যোগাড় করতে হবে। উবুন্তু ডাউনলোড করার জন্য http://ubuntu.com সাইটটি ভিজিট করে ডাউনলোড করা যেতে পারে। ডাউনলোড করার পর তা ডিভিডিতে রাইট করার পর ইনস্টল করতে হবে। তবে এটি বুটেবল ডিভিডি হিসেবেই রাইট করতে হবে। আর এসব ঝামেলায় যারা যেতে চান না, তাদের জন্য আছে সরাসরি সিডি/ডিভিডি পাবার ব্যবস্থা। এজন্য ভিজিট করুন shipit.ubuntu.com সাইটে। এখানে আপনার ঠিকানা দিয়ে দিলে বাসায় বসেই পেতে পারেন এর বুটেবল ডিস্ক।



লিনআক্স ইনস্টলেশনে এখন সবকিছু গ্রাফিক্যাল হওয়াতে ইনস্টলেশন বেশ সহজ হয়ে গেছে। ইনস্টলেশন নিয়ে যাদের সামান্য ধারণা আছে বা যারা উইন্ডোজ ইনস্টল করতে জানেন, তারাও বেশ সহজেই উবুন্তু ইনস্টল করতে পারবেন। শুধু এক জায়গায় সমস্যা হতে পারে, সেটি হলো মাউন্ট পয়েন্ট সিলেক্ট করা নিয়ে সমস্যা। লিনআক্সের সিডি থেকে বুট করে ইনস্টল করতে হবে বলে প্রথমেই সিস্টেমের বুট ডিভাইস সেটিং ঠিক করে নিতে হবে। সাধারণত হার্ডডিস্ক থেকেই সিস্টেম বুট করে বলে অপটিক্যাল ডিভাইসকে (সিডি রম বা অন্যান্য) হার্ডডিস্কের আগে প্রায়োরিটি সেট করতে হবে। এজন্য সিস্টেম বুট করার সময় বায়োসে প্রবেশ করতে হবে।

আজকাল অনেক বায়োসই বুট সিকোয়েন্স পরিবর্তন না করেই যেকোনো ডিভাইস থেকে বুট করার সুযোগ দেয়। বেশিরভাগ বায়োসেই এটি করার জন্য বায়োস পার হবার সময় F8 চাপতে হয়। যে সিস্টেমে লিনআক্স চালানো হবে, তার বায়োসে কোন ‘কি’ চাপতে হয়, তা জেনে নিতে হবে। এরপর ড্রাইভে উবুন্তুর সিডি রেখে ড্রাইভটি সিলেক্ট করে দিলেই এক্ষেত্রে চলবে। সিডি থেকে বুট হলে উবুন্তুর বুট মেনু আসার পর এন্টার চাপলে অটোমেটিক লাইভ সিডি চালু হবে। লাইভ সিডি চালু হলে কিছু সময় পর সরাসরি উবুন্তুর লাইভ ডেস্কটপে আপনি চলে আসবেন। ডেস্কটপে ইনস্টল নামে একটি আইকনে ক্লিক করলে আপনার সিস্টেমে উবুন্তু ইনস্টলেশন শুরু হবে।

প্রথমেই ভাষা নির্বাচন করতে হবে। ইচ্ছে করলে বাংলা ভাষাও নির্বাচন করা যায়। বাংলা ভাষা নির্বাচন করলে সবকিছু বাংলায় দেখাবে। এরপর নেক্সট বাটনে ক্লিক করতে হবে। এখান থেকে বেশিরভাগ মেনুতে আনুষঙ্গিক জিনিস সিলেক্ট করে দেয়াই কাজ। পরের মেনু থেকে আন্তর্জাতিক সময় এবং অঞ্চল নির্বাচন করে তারপর নেক্সটে ক্লিক করতে হবে। পরের মেনুতে কিবোর্ড ব্যবহার সিলেক্ট করে পরের মেনু থেকেই আপনাকে পার্টিশন করতে হবে। এখান থেকে নিজ হাতে বা self সিলেক্ট করতে হবে। তারপর নেক্সট ক্লিক করে পরের মেনুতে যেতে হবে। যেহেতু আগেই পার্টিশন করা হয়েছে তাই নতুন করে পার্টিশন না করে শুধু তৈরি করা পার্টিশন সিলেক্ট করে দিলেই চলবে। তৈরি করা পার্টিশন ইএক্সটি৩ এবং ডিভাইস এইচডিএ৫ দেখাবে। পার্টিশনটি সিলেক্ট করে ফরমেট বক্সে টিক মার্ক দিতে হবে। সেই সাথে রাইট বাটন ক্লিক করে মাউন্ট পয়েন্ট অপশনে/সিলেক্ট করতে হবে। উবুন্তু লিনআক্স ইনস্টলেশনের মূল কাজটিই করা শেষ। সবশেষে ফিনিশ বাটনে ক্লিক করলে ইনস্টলেশন শুরু হবে। এভাবে ইনস্টলেশন শেষ করে সিস্টেম রিস্টার্ট করতে হবে।

উবুন্তুর এই ১০.১০ সংস্করণ শুধু জিনোমভিত্তিক উবুন্তু নয়, একইসাথে কেডিইভিত্তিক উবুন্তু ও এক্সফেসভিত্তিক জুবুন্তুতেও রিলিজ করা হয়েছে।

কজ ওয়েব

ফিডব্যাক : mortuzacsepm@yahoo.com
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস