Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > প্রিন্স কাস্পিয়ান
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: সৈয়দ হাসান মাহমুদ
মোট লেখা:১৪৩
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১১ - মে
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
গেম
তথ্যসূত্র:
গেমের জগৎ
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
প্রিন্স কাস্পিয়ান

২০০৫ সালে বের হওয়া ‘দ্য ক্রনিকেলস অব নার্নিয়া : দ্য লায়ন, দ্য উইচ অ্যান্ড দ্য ওয়ারড্রোব’ মুভির পর মুক্তি পেয়েছে এ সিরিজের দ্বিতীয় পর্ব ‘দ্য ক্রনিকেলস অব নার্নিয়া : প্রিন্স কাস্পিয়ান’। দ্বিতীয় পর্বের কাহিনীর উপরে ডিজনি নির্মাণ করেছে একই নামের অ্যাকশন ও অ্যাডভেঞ্চারভিত্তিক গেম। দ্য ক্রনিকেলস অব নার্নিয়া হচ্ছে সাতটি শিশুতোষ ফ্যান্টাসি উপন্যাসের সমগ্র। এটি ঔপন্যাসিক ক্লাইভ স্ট্যাপল লুইসের সবচেয়ে বিখ্যাত কর্ম, যা ১০০ মিলিয়ন কপি বিক্রি হয়েছে এবং অনূদিত হয়েছে প্রায় ৪১টি ভাষায়। প্রথম দুটির পরে তৃতীয় পর্ব থেকে সপ্তম পর্বগুলো হচ্ছে- দ্য ভয়েজ অব দ্য ডাউন ট্রেডার, দ্য সিলভার চেয়ার, দ্য হর্স অ্যান্ড হিস বয়, দ্য ম্যাজিশিয়ান্স নেপিউ ও দ্য লাস্ট ব্যাটেল।

নার্নিয়া এমন এক রাজ্য যেখানে সব জীবজন্তু কথা বলতে পারে। আমাদের পৃথিবী থেকে সম্পূর্ণ আলাদা এক জগৎ এই নার্নিয়া। এখানে বিচরণ করে বেড়ায় গ্রিক পৌরাণে বর্ণিত কাল্পনিক কিছু অদ্ভুত প্রাণী। জাদুর এই দুনিয়ায় লড়াই চলে ভালো আর মন্দের, সত্য আর মিথ্যার মাঝে। কাহিনীর মূল চরিত্র হচ্ছে চার ভাই-বোন, তারা হচ্ছে- পিটার, সুসান, এডমন্ড ও লুসি পেভেনসি। তারা তাদের দুনিয়া থেকে ওয়ারড্রোবের ভেতরে লুকিয়ে থাকা জাদুর দরজা দিয়ে এসে পৌঁছায় নার্নিয়ার জাদুর দুনিয়ায়, যেখানে জাদুকরী সাদা ডাইনি রাজত্ব করে। তার জাদুতে পুরো নার্নিয়া শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে বরফাচ্ছন্ন হয়ে আছে। তারা সিংহ আসলান ও তার বাহিনীর সহায়তায় শয়তান ডাইনির অভিশাপের হাত থেকে নার্নিয়াকে রক্ষা করে তার রাজ্যভার গ্রহণ করে। শেষে তারা ফিরে যায় আপন বাসভূমে।



এতো গেলো প্রথম পর্বের কথা, এখন আসা যাক দ্বিতীয় পর্বে। পেভেনসি ভাইবোনদের নার্নিয়া ত্যাগের ১৩০০ বছর পরে নার্নিয়ায় শাসনভার কে নেবে তা নিয়ে দ্বন্দ্ব চলে চাচা-ভাতিজার মধ্যে। শয়তান রাজা মিরাজের ভাতিজা প্রিন্স কাস্পিয়ান হচ্ছে নার্নিয়ার যোগ্য উত্তরাধিকারী, কিন্তু তার চাচা চায় জোর করে রাজ্যভার নিতে। তার জন্য সে খুঁজে বেড়ায় প্রিন্সকে মেরে ফেলার জন্য। প্রিন্সের গুরু ডক্টর কর্নেলিয়াস তাকে সুসানের প্রাচীন জাদুকরী শিং দেয় তার সুরক্ষার জন্য এবং তাকে পালিয়ে যেতে বলে। প্রিন্স সেই জাদুকরী শিং দিয়ে চার পেভেনসি ভাইবোনদের নার্নিয়ায় নিয়ে আসে এবং তাকে তার যোগ্য স্থানে পৌঁছে দেয়ার জন্য তাদের সাহায্য কামনা করে। রাজা মিরাজের সাথে যুদ্ধে জয়ী হয়ে তারা প্রিন্সকে তার সিংহাসন ও রাজমুকুট এনে দেয়।

গেমটিতে একই লেভেলে ৪ জন চরিত্রকে নিয়ে খেলা যাবে, পছন্দমতো বদল করে উপযুক্ত কাজে ব্যবহারের জন্য। প্রায় ২০টির মতো চরিত্র নিয়ে খেলার সুযোগ রয়েছে এতে। এর মধ্যে পেভেনসি ভাইবোন, প্রিন্স কাস্পিয়ান, ড. কর্নেলিয়াস, গ্লেমস্টোন, এস্টেরিয়াস, ট্রাম্পকিন উল্লেখযোগ্য। এছাড়াও ফন (অর্ধমানব-অর্ধছাগল), সেন্টরস (ঘোড়ামানব), বামন, মিনোটরস (ষাঁড়ের মাথা ও মানুষের শরীরবিশিষ্ট প্রাণী), দৈত্য ইত্যাদি চরিত্র নিয়েও খেলতে হবে।

গেমে অ্যাকশন ও অ্যাডভেঞ্চারের পাশাপাশি রয়েছে কিছু পাজল সমাধানের কাজ যা সমাধানের মধ্য দিয়ে বোনাস জিনিস আনলক হবে। বোনাস আনলক করার জন্য নির্দিষ্ট সংখ্যক চাবি খুঁজে বের করে তালাবদ্ধ বাক্স খুলতে হবে। ছয়টি অধ্যায়ে বিভক্ত এই গেমে রয়েছে অনেকগুলো লেভেল, যা গেমের সময়সীমা অনেক বৃদ্ধি করেছে। এতে আরো চারটি বোনাস লেভেলও রয়েছে। গেমের গ্রাফিক্স অত্যন্ত চমৎকার। গেমটি খেলার জন্য লাগবে ২ গিগাহাটর্জের পেন্টিয়াম ৪, ৫১২ মেগাবাইট র্যা্ম, ১২৮ ভিডিও মেমরি ও ৭.৫ গিগাবাইট হার্ডডিস্ক স্পেস।


কজ ওয়েব

ফিডব্যাক : shmt_21@yahoo.com
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস