Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > ম্যাজিক্কা
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: সৈয়দ হাসান মাহমুদ
মোট লেখা:১৪৩
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১১ - মে
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
গেম
তথ্যসূত্র:
গেমের জগৎ
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
ম্যাজিক্কা

গ্রিক মিথোলজি, ইজিপশিয়ান মিথোলজি ও মায়ান মিথোলজির ওপরে বানানো গেম তো অনেক রয়েছে বাজারে। এগুলো যদি একঘেয়ে লাগতে থাকে তবে রুচি পরিবর্তন করার জন্য খেলতে পারেন নতুন একটি গেম-যার নাম ম্যাজিক্কা। ম্যাজিক্কা গেমটি নর্স বা নর্ডিক জাতির (ভাইকিং) মিথোলজি নিয়ে বানানো একটি চমৎকার রোল-প্লেয়িং স্ট্র্যাটেজি গেম। গেমটি ডেভেলপ করেছে অ্যারোহেড গেমস স্টুডিও এবং পাবলিশ করেছে প্যারাডক্স ইন্টারেকটিভ। গেমটি বানানো হয়েছে মাইক্রোসফট এক্সএনএ গেম ইঞ্জিন দিয়ে এবং গেমটি অনলাইনে ডিস্ট্রিবিউট করেছে স্টিম। গেমটি সিঙ্গেল প্লেয়ার, মাল্টিপ্লেয়ার ও কো-অপারেটিভ মোডে খেলার সুযোগ রয়েছে। সুইডেনের স্কেলেফটিতে অবস্থিত লুলেয়া ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজির ৮ ছাত্র এ অসাধারণ গেমটি বানিয়েছে, যা বের হওয়ার প্রথম ১৭ দিনেই দুই লাখ কপি বিক্রি হয়েছে।

গেমের মূল চরিত্রের মধ্যে রয়েছে চারটি ভিন্ন রঙের জোববা (লাল, নীল, সবুজ ও হলুদ) পরা জাদুকর, যারা এক শয়তান জাদুকর ও তার সৃষ্ট পৈশাচিক বাহিনী বিনাশ করার জন্য লড়াই করবে। গেমটি ফ্যান্টাসিভিত্তিক যাতে নর্স বা ইউরোপিয়ান জাতির মিথোলজির ছাপ রয়েছে। গেমটি ওয়ারহ্যামার ও ডিয়াব্লো গেম সিরিজের গেমপ্লের ওপরে নির্ভর করে বানানো হয়েছে। এছাড়া স্টার ওয়ারস, ওয়ার্ল্ড অব ওয়ারক্রাফট, নেভার উইন্টার নাইটস, ৩০০, মন্টি পাইথন অ্যান্ড দ্য হোলি গ্রেইল ইত্যাদি ফ্যান্টাসিভিত্তিক রোল-প্লেয়িং গেমের সাথেও ম্যাজিক্কার বেশ মিল খুঁজে পাওয়া যাবে। গেমে যেকোনো এক জাদুকরকে নিয়ে গেম শুরু করতে হবে। প্রাইমারি অস্ত্র হিসেবে তার হাতে থাকবে জাদুর লাঠি। সেকেন্ডারি অস্ত্র হিসেবে সে তলোয়ার, কুড়াল, ঢাল ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারবে। অন্যান্য গেমের মতো গেমের ক্যারেক্টারকে বিভিন্ন ক্লাসে ভাগ করে তা থেকে সময় নিয়ে প্লেয়ার বাছাই করার ঝামেলা এ গেমে রাখা হয়নি।



গেমের আরেকটি মজার ব্যাপার হচ্ছে অন্যান্য রোল-প্লেয়িং গেমে জাদুকরদের নিয়ে খেলার সময় স্পেশাল অ্যাবিলিটির একটি সীমাবদ্ধতা থাকে, এতে তেমন কিছু নেই। মানা বা জাদুশক্তি বাড়ানোর জন্য কিছু সংগ্রহ করতে হবে না এ গেমে। এখানে জাদুকরের ক্ষমতা অসীম। তাই গেমটি অন্যান্য রোল-প্লেয়িং গেমের চেয়ে অনেকটা আলাদা ও বিচিত্র ধরনের। গেমে জাদুকররা দূর থেকে জাদুমন্ত্রের সাহায্যে বা সামনাসামনি অস্ত্র দিয়ে লড়াই করতে পারবে। গেমে আট ধরনের জাদুমন্ত্র রয়েছে। এগুলো হচ্ছে-ওয়াটার, ফায়ার, লাইটিং, আর্থ, কোল্ড, শিল্ড, আর্কেন ও লাইফ। একেক রকমের জাদুমন্ত্রের সাহায্যে একেক ধরনের কাজ করা যাবে। আবার দুটি জাদুমন্ত্র এক করে নতুন মন্ত্র বানানো যাবে। উদাহরণস্বরূপ-ফায়ার ও ওয়াটার একসাথে করে স্টিম বা বাষ্প বানানো যাবে। আবার একইভাবে কোল্ড ও ওয়াটার ব্যবহার করে আইস বা বরফ বানানো সম্ভব। ম্যাজিক পাওয়ার আপগ্রেড করার সুযোগও রয়েছে গেমটিতে। ভিয়েতনামকে কেন্দ্র করে এ সিরিজের আরেকটি গেম বের হয়েছে, যার নাম ম্যাজিক্কা-ভিয়েতনাম।

আলোর বর্ণিল ছটার কারুকাজে সাজিয়ে জাদুমন্ত্র প্রয়োগ করার ব্যাপারটি বেশ সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে এবং গেমের ক্যাম্পেইন মোডে ১৩টি লেভেল রয়েছে। মাল্টিপ্লেয়ার মোডে ৪ জন একসাথে খেলা যাবে। গেমটি চালাতে লাগবে ২.৪ গিগাহার্টজের প্রসেসর, ২ গিগাবাইট মেমরির র্যা ম, পিক্সেল শেডার ৩.০ সাপোর্টেড ২৫৬ মেগাবাইট মেমরির গ্রাফিক্স কার্ড (এনভিডিয়া জিফোর্স ৮৮০০ বা এটিআই রাডেওন এক্স১৯০০) এবং ২ গিগাবাইট হার্ডডিস্ক স্পেস।

কজ ওয়েব

ফিডব্যাক : shmt_21@yahoo.com
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস