Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > বুলেটস্টর্ম
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: সৈয়দ হাসান মাহমুদ
মোট লেখা:১৪৩
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১১ - মে
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
গেম
তথ্যসূত্র:
গেমের জগৎ
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
বুলেটস্টর্ম

নতুন বছরে তেমন একটা ফাস্ট পারসন শূটিং গেম বের হয়নি। বুলেটস্টর্ম এ বছরের সেরা ফাস্ট পারসন শূটার গেমগুলোর মাঝে স্থান করে নিতে পারে গেমের কাহিনীর নতুনত্বতা এবং বিচিত্র গেমপ্লের সাহায্যে। গেমটি যৌথভাবে ডেভেলপ করেছে পিপল ক্যান ফ্লাই ও এপিক গেমস এবং পাবলিশ হয়েছে ইলেকট্রনিক আর্টসের ব্যানারে। গেমটি তৈরিতে সাহায্য নেয়া হয়েছে আনরিয়েল ৩.৫ গেম ইঞ্জিনের, যা গেমটির গ্রাফিক্সকে বেশ বাস্তব ও প্রাণবন্ত করে তুলেছে।

সায়েন্স ফিকশনভিত্তিক এ অ্যাকশন গেমটির পটভূমি রচিত হয়েছে ২৬ শতককে ঘিরে, যেখানে কনফেডারেশন অব প্লানেটসকে রক্ষার দায়িত্ব পালন করে একটি গোপন ব্ল্যাক-অপস আর্মি, যার নাম ডেড ইকো। গেমের মূল নায়ক হচ্ছে স্পেস পাইরেট বা মহাকাশের দস্যু গ্রেসন হান্ট এবং তার সাথে তার পার্টনার সাইবোর্গ (আধা যন্ত্র ও আধা মানব) ইশি সাতো। ডেড ইকোর কমান্ডিং অফিসার জেনারেল সেরানোর ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে গ্রেসন ও সাতো ডেড ইকো থেকে বহিষ্কৃত হয়। ১০ বছর পর নিজেদের দল ভারি করে ও শক্তি সঞ্চয় করে তারা দুজন ফিরে আসে প্রতিশোধ নেয়ার জন্য। মহাকাশে যুদ্ধ করার সময় হান্ট ও জেনারেলের শিপ স্টাইজিয়া নামের এক গ্রহে ক্রাশ ল্যান্ডিং করবে এবং সেখানেই তাদের মাঝে শুরু হবে ঘোরতর লড়াই। জেনারেলের সৈন্যবাহিনীর পাশাপাশি হান্টদের মোকাবেলা করতে হবে গ্রহের মানুষখেকো গাছ, জিনগতভাবে পরিবর্তিত আদিবাসী সন্ত্রাসী ও গডজিলার মতো বড় আকারের কিছু দানবের সাথে। গেমে ট্রিশকা নোভাক নামের এক নারীর সহায়তায় তারা সেই গ্রহ থেকে পালাবার পথ খুঁজে পাবে।



গেমে ব্যবহৃত অস্ত্রগুলো বেশ ভারি ও বড় আকৃতির। গেমের স্কিলশট অপশনটি গেম খেলার মজা দ্বিগুণ করে দিয়েছে। গুলির নিশানা কতটা নিখুঁত ও নির্ভুল হয়েছে তার ওপরে নির্ভর করে গেমে স্কিলশট পয়েন্ট অর্জনের মাধ্যমে প্রতিটি অস্ত্রের অল্টারনেটিভ পাওয়ার মিটার ফুল করা যাবে, যা দিয়ে মোক্ষম আঘাত হানা যাবে। পিস্তল থেকে শুরু করে অ্যাসল্ট রাইফেল এমনকি শেকলে পেঁচানো জোড়া বোম ছোড়ার কামানের দেখা মিলবে এ গেমে। প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করে ঠেলে দেয়া যাবে নরমাংসভোজী গাছের দিকে। গেমে শত্রুকে অস্ত্র দিয়ে ঘায়েল করার পাশাপাশি লাথি ও ঘুষি মেরেও পরাস্ত করা যাবে। নানারকম ফাঁদ পেতে শত্রুর ভবলীলা সাঙ্গ করার ব্যাপারটি বেশ মজার ও নতুন এক সংযোজন। গেমে প্লেয়ারের হাতে থাকা এনার্জি ল্যাশ বা চাবুকের মতো অস্ত্র বেশ আনকোরা ও মোক্ষম হাতিয়ার। এনার্জি ল্যাশের সাহায্যে লুকানো বা দূরের শত্রুকে আটকিয়ে টেনে সামনে নিয়ে আসা যাবে। গেমটির সাথে কল অব ডিউটি, হালো ও গিয়ারস অব ওয়ার সিরিজের গেমের সাদৃশ্য রয়েছে। গেমটি বেশ উঁচুদরের গ্রাফিক্সের সাহায্যে সাজানো হয়েছে। তাই গেমটির জন্য ভালো কনফিগারেশনের পিসি লাগবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। গেমটি চালানোর জন্য ইন্টেল কোর টু ডুয়ো ১.৬ গিগাহার্টজ বা এএমডি এথলন ৬৪ এক্সটু ৩২০০+ মানের প্রসেসর, ১.৫ গিগাবাইট র?¨vম, হার্ডডিস্কে ৯ গিগাবাইট ফাঁকা জায়গা, পিক্সেল শেডার ৩.০ সাপোর্টেড ২৫৬ মেগাবাইট মেমরির গ্রাফিক্স কার্ড (ন্যূনতম এনভিডিয়া জিফোর্স ৭৬০০ বা এটিআই রাডেওন এইচডি ২৪০০ প্রো) লাগবে। গেমটি কোয়াড কোরের প্রসেসর, ২ গিগাবাইট ডিডিআর৩ র?¨vম এবং ভালোমানের গ্রাফিক্স কার্ডের সাথে খেলতে পারলে আরও ভালো পারফরমেন্স পাওয়া যাবে।


কজ ওয়েব

ফিডব্যাক : shmt_21@yahoo.com
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস