Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > ফেসবুকে ফ্যান পেজ তৈরি করা
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: মোহাম্মদ ইশতিয়াক জাহান
ইমেইল:rony446@yahoo.com:
মোট লেখা:৮৮
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১১ - নভেম্বর
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
ফেসবুক
তথ্যসূত্র:
ইন্টারনেট
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
ফেসবুকে ফ্যান পেজ তৈরি করা


ফেসবুক ব্যবহারকারীদের কাছে ব্যক্তিগত ওয়াল ছাড়াও গ্রুপ বা ফ্যান পেজ ওয়াল অনেক পছন্দের। তাই একজন ফেসবুক ব্যবহারকারীর কাছে ব্যক্তিগত ওয়াল, চ্যাটবক্স, গ্রুপ ও ফ্যান পেজ বেশি প্রিয়। বেশিরভাগ সময় এই চারটি সেক্টরে ব্যবহারকারীরা বেশি সময় ব্যয় করে থাকেন। সবাই যে এই চারটি সেক্টর একই সময় ব্যবহার করেন তা নয়। তবে একেকজনের কাছে একেক সেক্টর বেশি প্রিয়। কেউ ফেসবুকে চ্যাট করে সময় কাটাতে পছন্দ করেন, আবার কেউ গ্রুপ তৈরি করে গ্রুপ বা ফ্যান পেজে আলোচনায় ব্যস্ত থাকতে বেশি পছন্দ করেন। আবার অনেক ব্যবহারকারী ছবি বা ভিডিও আপলোড করে তা অন্যদের মাঝে শেয়ার করার মধ্য দিয়েও ফেসবুকে সময় কাটিয়ে থাকেন। গত পর্বে ফেসবুকের গ্রুপ তৈরি ও ওই গ্রুপ ব্যবহারের ওপর বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছিল। এবারের সংখ্যায় ফ্যান পেজ (লাইক পেজ) তৈরি করা ও তা ব্যবহারের ওপর বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

ফ্যান পেজ :

ফেসবুকের ফ্যান পেজ হচ্ছে এমন এক পেজ, যেখানে একজন ব্যবহারকারী তার নিজস্ব বা কোনো কোম্পানি বা কোনো গ্রুপ বা অন্য যেকোনো নামানুসারে তৈরি করতে পারেন। এই ফ্যান পেজে থাকে একটি বিশেষ ধরনের লাইক (LIKE) বাটন। ফেসবুকের মতো এই পেজে যুক্ত হওয়ার জন্য আপনাকে ফেসবুক আইডি দিয়ে লগইন করে উক্ত পেজকে লাইক (LIKE) করতে হবে। একটি পেজে কতজন লাইক করেছে তা ওই পেজে প্রবেশের আগে দেখে নিতে পারেন। বর্তমানে অনেকেই ফ্যান পেজের মাধ্যমে নিজের বা কোনো প্রোডাক্ট বা কোম্পানির বিশেষ বিজ্ঞাপনী প্রচার মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করছেন। তাই ফেসবুক গ্রুপের মতোই এখানে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন তথ্য ফ্যান পেজের ওয়ালে প্রকাশ করে গ্রাহক ও অন্যদের দৃষ্টি আকর্ষণ করা সম্ভব।

অনেকেই ভেবে থাকেন ফেসবুকের ফ্যান পেজ তৈরি করা সহজ হলেও তার ইউআরএল লিঙ্ক মনে রাখা কঠিন, আসলে তা নয়। বর্তমানে একটি পেজে কমপক্ষে ২৫ জন ব্যবহারকারী লাইক করলে ফেসবুকের ব্যক্তিগত ইউআরএলের মতো পেজের জন্যও একটি নাম পছন্দ করতে পারেন। অন্যদিকে অনেকেই ফেসবুক অ্যাপ্লিকেশনের ওপর স্টাডি বা কোর্স করে ফেসবুকের ওপর বা ফ্যান পেজের ওপর বিশেষ অ্যাপ্লিকেশন বা ট্যাব তৈরি করে তার নিজস্ব কোম্পানি বা প্রোডাক্টের প্রচারণা চালাচ্ছেন এবং ব্যবহারকারীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন। আসুন নিচে ফেসবুকে ফ্যান পেজ বা লাইক পেজ তৈরির করার পদ্ধতিটি দেখে নিই।

ফেসবুকে ফ্যান পেজ তৈরি করার পদ্ধতি: ফেসবুকের নতুন ফ্যান পেজ বা লাইক পেজ তৈরি করার জন্য প্রথমে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে প্রবেশ করুন।

ধাপ-১ :
নতুন একটি ট্যাব খুলে http://www.facebook.com/pages/create. php টাইপ করে এন্টার চাপলে Create a Page নামে একটি বিশেষ পেজ প্রদর্শিত হবে। এখানে a. Local Business or Place, b. Company, Organization or Institution, c. Brand or Product, d. Artist, Band or Public Figure, e. Entertainment, f. Cause or Community নামে ছয়টি ক্যাটাগরি দেখতে পাবেন। উক্ত ক্যাটাগরি অনুযায়ী আপনি পেজ তৈরি করতে পারবেন। ধরে নিচ্ছি, আপনি প্রোডাক্ট ক্যাটাগরিতে ফ্যান পেজ তৈরি করতে চাচ্ছেন।

ধাপ-২ :
উপরে উল্লেখ করা c. Brand or Product অংশে ক্লিক করলে আপনার সামনে দু’টি অপশন উঠে আসবে। একটি অংশে আপনাকে ক্যাটাগরি সিলেক্ট করতে বলবে। অন্য অংশে আপনাকে একটি নাম দিতে বলবে। উদাহরণস্বরূপ- ক্যাটাগরিতে Software এবং ক্যাটাগরির নিচের অংশে My First Page টাইপ করে ও agree to Facebook Pages Terms অংশে টিক চিহ্ন দিয়ে Get Started বাটনে ক্লিক করুন।

ধাপ-৩ :
এখন আপনার সামনে পেজ তৈরির তিনটি ধাপ আসবে। ফ্যান পেজ সম্পন্ন করার জন্য আপনাকে এই তিনটি ধাপ পূরণ করে ধাপগুলো সম্পন্ন করতে হবে। তবে প্রথম পেজ তৈরি দ্রুত সম্পন্ন করার জন্য ধাপগুলো Skip করে যেতে পারেন, যা পরে এসব ধাপ সম্পন্ন করে নিতে হবে। এখানে প্রথমে এই ধাপগুলো এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে তবে প্রতি স্টেপে কী কী স্টেপ রয়েছে তা দেখে নেব।

ধাপ-১ অংশে পেজের জন্য ছবি আপলোডের অপশন রয়েছে, যাকে প্রোফাইল ফটো হিসেবে নাম দেয়া হয়েছে। ধাপ-২ অংশে বন্ধু ইনভাইট করার অংশ, যাকে গেট ফ্যানস হিসেবে নামকরণ করা হয়েছে।
ধাপ-৩ অংশটি হচ্ছে পেজের জন্য বেসিক ইনফো অংশ, যেখানে পেজ সম্পর্কে কিছু তথ্য দিতে হবে।

এখানে পেজের জন্য কোনো ওয়েবসাইট থাকলে তার লিঙ্ক ও অ্যাবাউট অংশে পেজ সম্পর্কে কিছু বর্ণনা দিতে হবে।

ধাপ-৪ :
ধাপ-৩ আসার পর Continue বাটনে ক্লিক করলে আপনার ফ্যান পেজটি তৈরি হয়ে যাবে। যদি এই ধাপ তিনটি পূরণ করে আসেন, তাহলে আপনার পেজটি পূর্ণতা পাবে। অন্যথায় পেজটি দেখে আপনার ভালো নাও লাগতে পারে। তবে চিন্তার কিছু নেই, পেজের যেকোনো পরিবর্তন আপনি যেকোনো সময় করতে পারেন। My First Page>Get Started হেডিংয়ের পাশে একটি Like বাটন দেখতে পাবেন। এই বাটনে ক্লিক করে পেজের জন্য আপনি প্রথম লাইক করতে পারেন।

ধাপ-৫ :
পেজের বর্ণনা : পেজ তৈরি করার পর বাম পাশের মেনুতে লক্ষ করলে দেখতে পারবেন Get Started, Wall, Info, Friend Activity, Photos, Edit নামে বেশ কিছু অপশন রয়েছে। পেজের জন্যও যে Wall রয়েছে এই অংশে ক্লিক করলেও দেখতে পাবেন। পেজের ডান পাশের উইন্ডোতে খেয়াল করলে দেখতে পাবেন বেশ কিছু লিঙ্ক রয়েছে, যেখানে Invite Friends নামে একটি বিশেষ লিঙ্ক রয়েছে, যা দিয়ে আপনার বন্ধুদের পেজে ইনভাইট করতে পারবেন।

ধাপ-৬ :
পেজের ওপরের ডান পাশে দেখুন Edit Page নামে একটি বাটন রয়েছে। এই বাটনে ক্লিক করে পেজের জন্য যাবতীয় পরিবর্তন করতে পারবেন। এখানে রয়েছে Your Settings, Manage Permissions, Basic Information, Profile Picture, Featured, Resourcesসহ নানা ধরনের অপশন।

অর্থাৎ বুঝতে পারছেন পেজ তৈরির তিনটি ধাপ অনুসরণ করে পেজ তৈরি করলেই আপনার কাজ শেষ নয়। এর জন্য আপনাকে বিভিন্ন তথ্য দিতে হবে। কারণ, আপনার পেজের তথ্যের ওপর ভিত্তি করে আপনার পেজের প্রতি একজন ব্যবহারকারী আকৃষ্ট হতে পারে। পেজ তৈরি করার পর অবশ্যই ওপরে আলোচনা করা ধাপগুলো ভালোভাবে পূরণ করে দেবেন। অন্যথায় আপনার পেজ সম্পন্ন হবে না।

উল্লেখ্য, পেজ তৈরি করার পর বিভিন্ন গ্রুপ বা পেজে আপনার পেজের লিঙ্ক ও ছোট একটি বর্ণনা দিতে থাকুন। এতে আপনার পেজের একটি অ্যাডভার্টাইজের কাজও হবে এবং আপনার পেজের ফ্যানের সংখ্যাও বাড়বে। তবে মনে রাখবেন ২৫ জনের মতো ফ্যান পেলেই আপনার পেজের জন্য একটি ইউনিক নাম নিতে পারবেন।

আশা করি, এবার আপনি নিজের একটি পেজ তৈরি করতে পারবেন। এরপরও যদি কারও সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে www.serversolution4u.com সাইটে ভিজিট করে ধাপগুলো দেখে নিন অথবা ই-মেইল করুন।



কজ ওয়েব

ফিডব্যাক : rony446@yahoo.com
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস