Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > ফ্যাশন ওয়াটারকালার আর্টওয়ার্কস
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: আহমেদ ওয়াহিদ মাসুদ
মোট লেখা:৯৮
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১১ - ডিসেম্বর
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
অ্যাডোবি ফটোশপ
তথ্যসূত্র:
গ্রাফিক্স
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
ফ্যাশন ওয়াটারকালার আর্টওয়ার্কস

ফ্যাশনের জগতে ওয়াটারকালার খুবই জনপ্রিয়। এটি মডেলের আর্টওয়ার্ককে যেমন আরও সুন্দর করে তোলে, তেমনি সবার কাছে করে আরও আকর্ষণীয়। এবারের গ্রাফিক্স বিভাগে একটি ফ্যাশন আর্টওয়ার্কে সহজে ওয়াটারকালার যুক্ত করার কৌশল দেখানো হয়েছে।

একটি ফ্যাশন আর্টওয়ার্কের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো মডেলের স্টাইল। আর্টওয়ার্কে মডেলের ভঙ্গি মুখ্য ভূমিকা পালন করে। চিত্র-১-এ মূল ছবিটি দেখান হলো। পরবর্তী কাজ হলো ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড ঠিক করা। একটি সুন্দর ব্যাকগ্রাউন্ড ছবিকে সুন্দর করে ফুটিয়ে তোলার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এবং এটি মডেলের রূপকে করে তোলে পরিপূর্ণ। তাই ছবির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ ব্যাকগ্রাউন্ড ব্যবহার করা আবশ্যক। এখানে ছবির সাইজ ঠিক করা হয়েছে 1440*900 px, 72 dpi।



মডেলের ছবিটি কপি করে একটি নতুন লেয়ারে পেস্ট করুন এবং লেয়ারটির নাম দিন model। ছবির প্রপর্শানালিটি ৪৫%-এ নির্ধারণ করে এবং ছবিটিকে সামান্য শার্প করে ব্যাকগ্রাউন্ড সিলেকশনের পালা। এ জন্য Magic Wand Tool (tolerance 10) ব্যবহার করে বামদিকের ব্যাকগ্রাউন্ডে ক্লিক করুন এবং শিফট বাটন চেপে ডানদিকে সিলেক্ট করলে পুরো ব্যাকগ্রাউন্ডটি সিলেক্ট হয়ে যাবে। ক্যানভাসে রাইট বাটন ক্লিক করে Select Inverse ক্লিক করুন। ম্যাজিক ওয়ান্ড দিয়ে ব্যাকগ্রাউন্ড সিলেক্ট করা অবস্থায় উপরের ডান দিকের refine edge বাটনটি ক্লিক করুন। এটি ব্যাকগ্রাউন্ডকে আরও ভালোভাবে এডিট করতে সাহায্য করবে। ব্যাকগ্রাউন্ডের কালার সাদা করুন (চিত্র-২)।

এবার একটি লেয়ার মাস্ক যুক্ত করতে হবে। কেননা, আলাদা লেয়ার মাস্ক দিয়ে এডিট করলে কিছু বাড়তি সুবিধা পাওয়া যায়। যেমন- ছবিটির শুধু চুলে যদি কিছু করতে হয় তাহলে চুলের জন্য একটি আলাদা লেয়ার মাস্ক তৈরি করা যায়। ফলে ওই লেয়ার মাস্কে চুলের যেকোনো ধরনের এডিট করলেও মূল ছবিতে তা কোনো পরিবর্তন আনবে না। কিন্তু এডিট শেষ হলে লেয়ার মাস্কটি মূল ছবির সাথে এক করে দেয়া যায়।

এবারে ছবিটিকে আরও একটু সুন্দর করা যাক। এখন stipple brush দিয়ে eraser টুল সিলেক্ট করুন (8 px)। ব্রাশ টুল ব্যবহার করে ছবিটির ধার চিত্র-৩-এর মতো করে একটু এডিট করে নিন। এবার ছবির একটি ব্যাকগ্রাউন্ড ঠিক করতে হবে। আগেই বলা হয়েছে, যেকোনো মডেল আর্টওয়ার্ককে সুন্দর করতে তার ব্যাকগ্রাউন্ডের ভূমিকা অসামান্য। এখানে ব্যাকগ্রাউন্ড হিসেবে পাতাঝরা গাছ ব্যবহার করা হয়েছে। একটি লেয়ার তৈরি করে নাম দিন ‘tree’ এবং খেয়াল রাখুন লেয়ারটি যেন model লেয়ারটির পেছনে থাকে। এবার tree লেয়ারটির proportionality এমনভাবে ঠিক করুন, যেন ব্যাকগ্রাউন্ডটি সম্পূর্ণ ছবি জুড়ে থাকে।



এবারে ছবির কালারে কিছু এডিট করা যাক। নতুন একটা লেয়ার তৈরি করে নাম দিন level। এবার Adjustment Layer-এ Levels-এ গিয়ে প্রয়োজনমতো সেটিংস ঠিক করে নিন। ছবিটির অন্ধকার অংশগুলো আরও অন্ধকার করার জন্য Input Levels-এর বামদিকের বাটনটি ডানে সরিয়ে আলোর অংশগুলো আরও উজ্জ্বল করার জন্য ডানদিকের বাটনটি বামদিকে সরিয়ে নিন। সবশেষে চিত্র-৪-এর মতো একটি ছবি পাওয়া যাবে।

এখন সবচেয়ে মজার অংশ ওয়াটারকালার যুক্ত করা। এজন্য এমন ওয়াটারকালার নির্বাচন করা উচিত যেন তা ছবিটিকে সুন্দর করে তোলে। ওয়াটারকালার যদি বেমানান হয় তাহলে ছবিটির সৌন্দর্য ততটা ফুটে উঠবে না। এই ছবিটির জন্য এমন ওয়াটারকালার নির্বাচন করা হয়েছে যেখানে রঙের ফোঁটাগুলো চিকন এবং লম্বা (চিত্র-৫)। নতুন একটি লেয়ার তৈরি করে water color 1 নাম দিন। ওয়াটারকালারের ছবিটি নতুন লেয়ারে পেস্ট করুন। খেয়াল রাখতে হবে, এই লেয়ারটি যেন বাকি সব লেয়ার থেকে উপরে থাকে। লেয়ারটি ৫০%-এ রিসাইজ করুন এবং এর blending mode ‘multiply’ সিলেক্ট করুন। মডেলটির অবস্থান ব্যাকগ্রাউন্ডের পছন্দমতো স্থানে নির্ধারণ করুন। নতুন লেয়ারটির একটি লেয়ার মাস্ক তৈরি করুন। মডেলের ছবির ওপর থেকে কিছু কালার ড্রপ মুছে ফেলুন। এজন্য 90 px-এর রাউন্ড ব্রাশ ব্যবহার করুন। এবার চিত্র-৬-এর মতো আরও একটি ওয়ারটারকালার আর্টওয়ার্ক নিন এবং মডেলের মাথার বাম পাশে স্থাপন করলে চিত্র-৭-এর মতো একটি ছবি পাওয়া যাবে।

মডেলের মুখের ওপর দিয়ে কালার গড়িয়ে পড়ছে, যেটি ছবির সৌন্দর্যকে নষ্ট করছে। এটিকে দূর করে মুখ থেকে একটু দূরে সরানো যাক। গড়িয়ে পড়া অংশটুকু সিলেক্ট করে কপি করুন এবং drip1 নামে একটি লেয়ার তৈরি করুন। লেয়ারটি invisible করুন। কালারের যে অংশটুকু মুখের ওপর আছে সেটি ইরেজার দিয়ে মুছে ফেলুন। এক্ষেত্রে ছোট সাইজের ব্রাশ ব্যবহার করতে হবে, যাতে কালার ড্রপের সাথে ঠিকমতো ব্যবহার করা যায়। এবারে smudge tool ব্যবহার করে মুছে ফেলা অংশটুকু আরও সুন্দর করুন। এবার drip1-কে একটু ঘুরিয়ে দিন যাতে চিত্র-৮-এর মতো একটি ছবি পাওয়া যায় এবং drip1 লেয়ারটির একটি লেয়ার মাস্ক তৈরি করুন। এবার drip1 লেয়ারটির একটি কপি করে এবং drip2 নামে আরও একটি লেয়ার তৈরি করুন। এবার যেসব কালার ওভারল্যাপ করেছে তা ব্রাশ দিয়ে মুছে ফেলুন। এবার drip1 এবং drip2 লেয়ার কপি করুন এবং drip3 নামে আরেকটি নতুন লেয়ার খুলে তাতে পেস্ট করুন, যাতে মডেলের চোখের নিচ দিয়ে কালার ড্রপ পড়ে। চোখের অতিরিক্ত কালার মুছে ফেলুন। এবার ওয়াটারকালারের মূল যে ছবিটি আছে (চিত্র-৫) সেখান থেকে আরও কিছু কালার ড্রপ নিয়ে নতুন আরেকটা লেয়ার drip4-এ পেস্ট করুন এবং তা মডেলের চোখে মনমতো বসিয়ে দিন। আবার মূল ওয়াটারকালার ছবি থেকে কিছু কালার ড্রপ নিন (চিত্র-৯) এবং drip5 নামে নতুন একটি লেয়ারে পেস্ট করুন এবং তা মডেলের পছন্দমতো স্থানে বসিয়ে দিন। এভাবে যত ইচ্ছে লেয়ার তৈরি করে কালারড্রপ স্থাপন করে এডিট করা যাবে।

প্রায় সব কাজই শেষ হয়ে এসেছে। এবার কিছু অতিরিক্ত ওয়াটারকালার স্থাপন করুন। চিত্র-১০-এ প্রদর্শিত ওয়াটারকালারটি কপি করে watercolor3 নামে নতুন একটি লেয়ারে পেস্ট করুন। লেয়ার ব্লেন্ডিং মোড multiply-এ সেট করুন। এবারে transform tool ব্যবহার করে ছবিটি ৪১%-এ নিয়ে আসুন, বামদিকে ৯০ ডিগ্রি ঘুরিয়ে দিন এবং রাইট ক্লিক করে flip horizontal অপশনটি সিলেক্ট করে দিন। এবার ছবিটিকে পছন্দমতো ঘুরিয়ে এর অবস্থান স্থির করুন। এবার watercolor4 নামে নতুন লেয়ারে মূল ওয়াটারকালার থেকে কিছু সবুজ কালার ড্রপ নিন, যা দিয়ে পাতা প্রদর্শন করা যাবে। এই লেয়ারটি ৫০%-এ রিসাইজ করে পছন্দমতো স্থানে বসিয়ে দিন। লেয়ারটির ব্লেন্ডিং মোড অবশ্যই multiply থাকতে হবে। এবার একটি বড় কালারড্রপ কপি করে তা watercolor5 নামে নতুন একটি লেয়ারে পেস্ট করুন এবং পছন্দমতো রিসাইজ করুন যাতে অনেক বড় দেখায়। এটি গাছ বোঝানোর জন্য ব্যবহার হবে। এবার নিচে যেকোনো একটি স্থানে নিজের নাম লিখে শেষ করুন ওয়াটারকালারের এডিটিং। সবশেষে লেয়ারগুলো merge করে এক করে দিন। তাহলে সম্পূর্ণ ছবিটি চিত্র-১১-এর মতো হবে।



এখানে এডিটিংয়ের জন্য যেসব ওয়াটারকালার ব্যবহার করা হয়েছে সেগুলো ছাড়াও আরও অনেক ধরনের কালার ব্যবহার করা যায়। ইউজার তার পছন্দমতো কালার ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারেন, তবে খেয়াল রাখতে হবে তা যেন অবশ্যই মূল আর্টওয়ার্কের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ হয়।



কজ ওয়েব

ফিডব্যাক : wahidmasudcse@gmail.com
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস