Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > পিসির ঝুটঝামেলা
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: কজ
মোট লেখা:১০৪১
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১৫ - ফেব্রুয়ারী
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
ট্রাবলশূটিং
তথ্যসূত্র:
ট্রাবলশুটিং
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
পিসির ঝুটঝামেলা
সমস্যা : কমপিউটার কেনার জন্য আমার বাজেট ৩৫ থেকে ৪০ হাজার টাকা। মেইনবোর্ড গিগাবাইট বি৮৫ জি১ স্নাইপার বি৫ ও প্রসেসর কোরআই৫ ৪৫৯০ কি ভালো হবে? প্রসেসরের সাথে কি এই মাদারবোর্ড সাপোর্ট দেবে বা কম্প্যাটিবল হবে? মাদারবোর্ড, হার্ডডিস্ক, র্যা ম, পাওয়ার সাপ্লাই ইউনিট, মনিটর ও কেসিং কোন কোম্পানির হলে ভালো হবে? বিশেষ করে বাজেটের ভেতর মাদারবোর্ড ও প্রসেসর কোনটি ভালো হবে?
-সফিকুল ইসলাম
সমাধান : এই বাজেটের মধ্যে কোরআই৩ প্রসেসরের ডেস্কটপ কনফিগার করা যাবে। ইন্টেল কোরআই সিরিজের প্রসেসরের জন্য নতুন সকেটটি হচ্ছে এলজিএ-১১৫০। এটি ফোর্থ জেনারেশনের ইন্টেল প্রসেসর সাপোর্ট করে। কোরআই৫ সিরিজের প্রসেসরসহ পিসি কিনতে চাইলে আপনার বাজেট আরও বাড়াতে হবে। মাদারবোর্ড কেনার ক্ষেত্রে আপনার যতটুকু পারফরম্যান্স দরকার ততটুকুর মধ্যেই কিনুন। গেমিং বা ভিডিও এডিটিং করার চিন্তা থাকলে মাদারবোর্ড বেশ শক্তিশালী এবং বাজারে আসা সর্বশেষ চিপসেটের মাদারবোর্ড কিনুন। এতে হাই পারফরম্যান্স র্যা ম ও একাধিক গ্রাফিক্স কার্ড লাগানোর ব্যবস্থা থাকে।
গিগাবাইট জি১ স্নাইপার বি৫ মাদারবোর্ডের সকেট হচ্ছে ১১৫০। তাই তা ইন্টেল ফোর্থ জেনারেশনের সব প্রসেসর সাপোর্ট করবে। এতে দুটি গ্রাফিক্স কার্ড বসানোর যাবে এবং চারটি ডিডিআর৩ র্যা ম স্লট রয়েছে। মাঝারি মানের গেমিং পিসির জন্য এটি বেশ ভালো কাজে দেবে। মাদারবোর্ডটির দাম ৯ হাজার ৫০০ টাকার মতো। প্রসেসর কোরআই৫ ৪৫৯০ গেমিং প্রসেসর হিসেবে ভালো কাজে দেবে। এর দাম ১৬ হাজার টাকার মতো। তাই এগুলোর সাথে বাকি যন্ত্রাংশ যোগ করলে আপনার বাজেট আরও বেড়ে। যদি গ্রাফিক্স কার্ড ও মনিটর এই বাজেটের বাইরে রাখেন, তবে এটি কেনা যেতে পারে। কারণ, ভালো কনফিগারেশনের পিসির জন্য ভালো ক্যাসিং ও মানসম্মত পাওয়ার সাপ্লাই ইউনিট কিনতে হবে। আপনার পিসির জন্য ন্যূনতম ৫০০ ওয়াটের পাওয়ার সাপ্লাই ইউনিটের দরকার পড়বে। যদি গ্রাফিক্স কার্ড কেনেন, তবে গ্রাফিক্স কার্ডটি কত ক্ষমতার গ্রাফিক্স কার্ড চাচ্ছে তার ওপর নির্ভর করে পিএসইউ কিনতে হবে।
গিগাবাইট জি১ স্নাইপার বি৫ মাদারবোর্ডটি ১৬০০ মেগাবাইটের এবং ৩২ গিগাবাইট পর্যন্ত র্যা ম সাপোর্ট করতে সক্ষম। যেহেতু এতে চারটি র্যা ম স্লট রয়েছে, তাই ৮ গিগাবাইটের একটি ১৬০০ বাসস্পিডের র্যাঝম ব্যবহার করলে ভালো হবে। পরে আরেকটি ৮ গিগাবাইট র্যাছম কিনে পিসি আপগ্রেড করে নিতে পারবেন। যদি বাজেটে সমস্যা হয়, তবে ৪ গিগাবাইট র্যারমও নিতে পারেন। একটু বেশি খরচ হলেও ভালো পিসি কেনা উচিত। এতে অনেক দিনের মধ্যে আর পিসি আপগ্রেড করার প্রয়োজন পড়বে না।
সমস্যা : আমি একটি ল্যাপটপ কিনতে চাই ফ্রিল্যান্সিং করা ও বিনোদনের জন্য। ফটোশপের কাজ ও একটু একটু করি। ৩০ হাজার টাকা বাজেট। আরও ২-৩ হাজার টাকা বাড়ানো যাবে। আমার জন্য কোন ল্যাপটপ কেনা ভালো হবে?
-হিমেল
সমাধান : ফ্রিল্যান্সিং করা বলতে কি আপনি ডিজাইনের ওপর কাজ করবেন নাকি সব ধরনের কাজ করবেন, তা পরিষ্কার করে বলেননি। ফটোশপের কাজ করবেন বলেছেন বলে ধরে নিচ্ছি আপনার ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার গ্রাফিক্স ডিজাইনের ওপর হবে। যদি তাই হয়, তবে যে ল্যাপটপে ডেডিকেটেড গ্রাফিক্স কার্ড দেয়া আছে, তেমন ল্যাপটপ আপনার জন্য ভালো হবে। এগুলোর দাম ৫০ হাজার টাকার ওপর পড়বে। কোরআই৫ প্রসেসর, ৫০০ মেগাবাইট থেকে ১ টেরাবাইট হার্ডডিস্ক, ৪-৮ গিগাবাইট র্যাাম থাকলে সেই ল্যাপটপে গ্রাফিক্সের কাজ ভালো করতে পারবেন। তবে বেশিরভাগ গ্রাফিক্স ডিজাইনারের প্রথম পছন্দ অ্যাপলের ম্যাকবুক। যদি ডাটা এন্ট্রি টাইপের কাজ করতে চান, তবে কোরআই৩ বা পেন্টিয়াম মানের ল্যাপটপ কিনতে পারবেন ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকার মধ্যে।
ফিডব্যাক : jhutjhamela24@gmail.com

পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
২০১৫ - ফেব্রুয়ারী সংখ্যার হাইলাইটস
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস