Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > উইন্ডোজ ১০ এর সবচেয়ে খারাপ বাগ এবং সেগুলো ফিক্স করা
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: তাসনীম মাহ্‌মুদ
মোট লেখা:১২১
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১৬ - জানুয়ারী
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
ব্যবহারকারীর পাতা
তথ্যসূত্র:
ব্যবহারকারীর পাতা
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
উইন্ডোজ ১০ এর সবচেয়ে খারাপ বাগ এবং সেগুলো ফিক্স করা
যদি আপনি উইন্ডোজের খুব গভীরে ঢুকে কাজ করতে চান, তাহলে এÿÿত্রে আপনার প্রথম অভিজ্ঞতাটা খুব একটা সুখকরা ও নিরবচ্ছিন্ন হবে না বলা যায়। ইদানীংকার প্রতিটি সফটওয়্যার মনে হয় প্রতিনিয়তই উন্নত থেকে উন্নততর হয়ে আসছে। মাইক্রোসফটের নতুন অপারেটিং সিস্টেম উইন্ডোজ ১০ এর ÿÿত্রে এর ব্যাতীক্রম হতে দেখা যায়নি।
এর মানে এই নয় যে, উইন্ডোজ ১০ ব্যবহারকারীরা সম্পূর্ণরূপে দুর্দশার শিকার হবে। বর্তমানে প্রচুর লোক তাদের সিস্টেমকে কোনো সমস্যা ছাড়াই উইন্ডোজ ১০ এ আপগ্রেড করছেন। তবে যারা মাঝে মধ্যে উইন্ডোজ ১০ ব্যবহার করতে গিয়ে সমস্যায় পরেছেন, তাদের জন্য নিচে বর্ণিত টিপগুলো বেশ সহায়তা করতে পারে। এজন্য আপনাকে অবশ্যই, বৈশিষ্ট্যসূচকভাব কিছুটা হলেও নতুন এ সিস্টেমে অভ্যস্ত হতে হবে এবং কনফিগারেশন হতে হবে আপনার নিজের সিস্টেমের সেটআপ।
কমপিউটার জগৎ এর নিয়মিত বিভাগ ব্যবহারকারীর পাতায় এবার উইন্ডোজ ১০ এর সবচেয়ে খারাপ বাগ এবং সেগুলো ফিক্স করার কৌশল দেখানো হয়েছে। নিচে উইন্ডোজ ১০ ব্যবহারকারীদের উদ্দেশে সবচেয়ে কমন বা সাধারণ সমস্যাসহ ট্রাবলশুটিং তুলে ধরা হয়েছে:
ব্যাটারীর আয়ু
সময়োপযোগী নতুন অপারেটিং সিস্টেম আপডেটের প্রসংগটি আসলেই সঙ্গত কারণেই সাধারণত ব্যাটারির ইস্যুটি হয়ে ওঠে সবচেয়ে গুরুত্বপর্ণ বিবেচ্য বিষয়। তবে লক্ষণীয় হলো, উইন্ডোজ ১০ এর ÿÿত্রে ব্যাটারির আয়ু প্রসংটি খুব একটা বড় ধরনের বিবেচ্য বিষয় নয়। যদি দেখেন আপনার হার্ডওয়্যার খুব দ্রুত শক্তি অপচয় করছে, তাহলে চেক করে দেখুন, ম্যানুফেকচারের দেয়া কোনো ফার্মওয়্যার এতে ইনস্টল করা আছে কিনা অথবা ড্রাইভার ফিক্স নামের কোনো ইউটিলিটি আছে কিনা যা আপনার হার্ডওয়্যারকে অপটিমাইজ করতে পরতে পারবে উইন্ডোজ ১০ এর চাহিদার সাথে ভালোভাবে ম্যাচ করার জন্য।
বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী উইন্ডোজ ১০ ব্যাকগ্রাউন্ডে যা নিয়মিতভাবে ডাউনলোড ও ইনস্টল করা হয় সেগুলো আপডেট রাখুন যা হয়তো ব্যাটারির আয়ুর ওপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে। যদি মনে করেন, চার্জের লেভেল খুব দ্রুত কমে যাচ্ছে, তাহলে আপডেটকে দায়ী করতে পারেন। এÿÿত্রে আপনি আকস্মিক বিপর্যয় থেকে পরিত্রাণ পেতে পারেন, যদি আপডেট ছাড়াই পুরানো ভার্সনে চলতে পারেন। এতে ব্যাটারির আয়ু খারাপ হওয়ার পরিবর্তে আরো উন্নত হবে।
ডিফল্ট অ্যাপ
আমাদের চোখে দেখা অন্যতম এক ইস্যু হলো উইন্ডোজ ৮.১ এ যত্নসহকারে রাখা ডিফল্ট ফাইল অ্যাসোসিয়েশন উইন্ডোজ ১০ অপসরণ করে। সুতরাং একটি ছবিতে ডাবল ক্লিক করলে প্রয়োজনীয় কোনো ফাইল ওপেন না করে উইন্ডোজ নিজস্ব ইমেজ অ্যাপ্লিকেশন ওপেন করে। এটি হতে পারে যদি আপনি আপডেট ইনস্টলারকে এগুলোকে ছেড়ে দিতে বলেন।
এ কাজটি বিরক্তিকর হলেও ফিক্স করা খুব একটা কঠিন কোনো কাজ না। এ জন্য টাস্কবার থেকে সেটিংস অ্যাপ চালু করে System এ ক্লিক করুন এবং এরপর Default apps অপশন বেছে নিন। এর বিকল্প হিসেবে File Explorer এ ডান ক্লিক করুন। এবার Open with অপশন বেছে নিন এবং Choose another app বেছে নিন। এরপর Always use this app মার্ক কার বক্সে টিক দিন যেহেতু একটি নতুন প্রোগ্রাম বেছে নিয়েছেন।
বাগি বা ব্রোকেন সফটওয়্যার
উইন্ডোজ ১০ দীর্ঘদিন ধরে এর টেস্টিং ফেজে রয়েছে। কিছু কিছু অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে যেগুলো এখনো
কাজ করতে পারছে না বিশেষ করে পুরানো অ্যাপ্লিকেশনে। যদি এটি অ্যাপস্নাই করা হয়, তাহলে আপনার প্রধান কাজ হবে প্রোগ্রামের আপডেট চেক করা যতÿণ পর্যন্ত না একটি নতুন ফিক্স চালু করা। সুতরাং অ্যাপ ফোরাম চেক কওে দেখুন বা ডেভেলপারদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ কওে দেখতে পারেন।
উইন্ডোজ ১০ এ কম্প্যাটিবিলিটি মোড এখনো রয়েছে এবং সংশোধিত। সুতরাং এটি নিয়ে পরীক্ষা করে দেখতে পারেন। এ জন্য একটি এক্সিকিউটেবল ফাইলে ডান ক্লিক করুন এবং বেছে নিন Properties অপশন। এরপর ওপেন করুন Compatibility ট্যাব। এখান থেকে আপনি প্রোগ্রাম রান করতে পারবেন, মনে হবে আপনি উইন্ডোজের একটি ভিন্ন ভার্সন রান করছেন। এটি যে কাজ করবে তা নিশ্চিত করে বলা যাবে না, তবে সহায়তা করতে পারে।
টাচপ্যাড সংশ্লিষ্ট সমস্যা
ব্যবহারকারীরা মাঝে মাঝে মধ্যে ট্র্যাকপ্যাড সংশ্লিষ্ট সমস্যায় পরে থাকেন যা মোটেও কাউরও কাম্য নয়। ইনপুট ডিভাইসের চমৎকার সব আকর্ষণীয় ক্ষমতা বা ফিচার সবসময় অপারেটিং সিস্টেমের আপডেটের সাথে সাথে পুরানো হয়ে পরিত্যাক্ত হয়। দুর্ভাগ্যজনকভাবে, আপনার ল্যাপটপ প্রস্ত্ততকারকেরা বা মাইক্রোসফট যতক্ষণ পর্যন্ত না এ সমস্যা সমাধানের জন্য প্যাচ অবমুক্ত করছে।

প্রস্ত্ততকারকদের ফোরামে মনোনিবেশ করে আপনার সমস্যার ধরন প্রকৃতি তুলে ধরলে আপনার সমস্যার সমাধানের উপদেশ বা নির্দেশাবলী পেতে পারেন। এবং নির্দেশাবলী অনুসরণ করলে হয়তো সিস্টেমের গতি কিছুটা বাড়তে পারে। এছাড়া বর্তমান টাচপ্যাড ড্রাইভারকে আনইনস্টল করে ইনস্টল করুন কন্ট্রোল প্যানেলের ডিভাইস ম্যানেজারের মাধ্যমে এতে ডিভাইস আবার ভালোভাবে কাজ করতে পারবে।
আপডেটের পর রিবুট লুপ
অতি সাম্প্রতিক আপটেগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি আপডেট মাইক্রোসফটের মাধ্যমে সংঘটিত হয় কেননা ব্যবহারকারীদের একটি বড় অংশই রিবুট লুপে আবদ্ধ আটকে থাকে। আপত: দৃষ্টিতে মনে হয়, মাইক্রোসফট এখন পর্যন্ত আপডেট এবং প্যাচ প্রসেসকে পারফেক্ট বা যথাযথ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে পারেনি। যদি আপনি সাবলীলভাবে রেজিস্ট্রিতে হ্যাক করতে পারেন, তাহলে এটি ফিক্স করার জন্য একটি মেথড পাবেন। এরফলে আপনার কমপিউটার আবার কাজ করতে পারবে।
আমরা যারা এখনো বাকী আছি, তাদের জন্য বলা যায়, মাইক্রোসফটের প্রকৌশলীরা এ ধরনের সমস্যা সমাধান করতে পারবেন। ভবিষ্যতে এ ধরনের আরো অনেক সমস্যার মুখোমুখী হবেন বিশেষ করে উইন্ডোজ ১০ প্রাথমিক অবস্থায়। যদি আপনি উইন্ডোজ ১০ এর জন্য ম্যান্ডেটরি আপডেট ডিজ্যাবল করতে চান, তাও করতে পারেন। তবে তা খুব একটা ভালো কিছু হবে না।
অন্যান্য সমস্যা নিয়ে কাজ করা
বিভিন্ন ধরনের হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যারের অনেক ধরনের কনফিগারেশন হতে পারে। সুতরাং ট্রাবলশুটিংয়ের জন্য সুনির্দিষ্টভাবে উপদেশ দেয়া খুব কঠিন কাজ হয়ে পড়েছে। তবে অ্যাপ আনইনস্টল করে আবার রিইনস্টল করলে ডিভাইস আগের মতোই কাজ করতে পারে। কেননা এটি উইন্ডোজকে বাধ্য করে আপনার প্রোগ্রাম এবং পেরিফেরালের সাথে স্টার্ট হওয়ার জন্য। উইন্ডোজ ১০ এর জন্য নতুন আপডেট প্রতিদিনই অবমুক্ত হচ্ছে। যতদিন পর্যন্ত না আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে সঠিক প্যাচ বা ড্রাইভার আপডেটের জন্য।
মূল রিকোভারি অপশন উইন্ডোজ ৮.১ থেকে খুব একটা পরিবর্তন হয়নি। Settings app এ Update & security এ অপশনে এক্সেস করে সিলেক্ট করুন Recovery অপশন। এবার Reset this PC এর অন্তর্গত উইন্ডোজ ১০ আগের মূল সেটিংয়ে আপনি রিস্টোর করতে পারবেন। এ সময় আপনার ফাইল রাখতে পারেন বা মুছে ফেলতে পারবেন। এÿÿত্রে সম্পূর্ণ রিইনস্টল অপশন থাকবে Advanced startup এর অন্তর্গত। আপগ্রেড করার এক মাস পর আপনি একটি অপশন পাবেন উইন্ডোজের আগের ভার্সনে ফিরে যাওয়ার জন্য।

পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
২০১৬ - জানুয়ারী সংখ্যার হাইলাইটস
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস
অনুরূপ লেখা