Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > ২০১৭ সালের সেরা কয়েকটি টিউনআপ ইউটিলিটি
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: লুৎফুন্নেছা রহমান
মোট লেখা:১৩৫
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১৭ - মার্চ
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
সফটওয়্যার
তথ্যসূত্র:
সফটওয়্যার
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
২০১৭ সালের সেরা কয়েকটি টিউনআপ ইউটিলিটি
মাইক্রোসফট উইন্ডোজের জন্য ডিজাইন করা এমন একটি সফটওয়্যার স্যুট হলো টিউনআপ ইউটিলিটি, যা কমপিউটার সিস্টেম ম্যানেজ, মেইনটেইন, অপটিমাইজ, কনফিগার এবং ট্রাবলশুট করার কাজে সহায়তা করে। মূলত পিসি টিউনআপ ইউটিলিটি হলো এমন এক অ্যাপ্লিকেশন, যা কমপিউটারের গভীরে ঢুকে এবং সমস্যাযুক্ত এরিয়া ফিক্স করে। এটি আপনার পিসির হার্ডড্রাইভ ডিফ্র্যাগমেন্ট করা, সমস্যাকর উইন্ডোজ রেজিস্ট্রি অবিশ্বাস্যভাবে রিপেয়ার করা, অপ্রয়োজনীয় ও ডুপ্লিকেট ফাইল ডিলিট করা, মূল্যবান ডিস্ক স্পেস বাঁচানোসহ বেশ কিছু ফাঙ্কশন কার্যকর করে। কিছু কিছু টিউনআপ ইউটিলিটি শুধু ওইসব বেসিক ফাঙ্কশন কার্যকর করলেও কিছু কিছু ইউটিলিটি আছে যেগুলোতে সম্পৃক্ত করা হয়েছে আরও ব্যাপক-বিসত্মৃতির ক্ষমতার ফিচার, যা আপনার কমপিউটারের পারফরম্যান্সকে দারুণভাবে উন্নত করে থাকে। সহজ কথায় বলা যায়, মন্থর পিসিকে নতুন পিসির মতো কর্মদক্ষতা দেয়ার জন্য নিচে বর্ণিত শীর্ষ রেটেড টিউনআপ ইউটিলিটিগুলোর মধ্যে যেকোনো একটি ব্যবহার করতে পারেন। এ লেখায় উল্লিখিত টিউনআপ ইউটিলিটিগুলোর মধ্যে কয়েকটি ফ্রি। বাকিগুলো অর্থের বিনিময়ে কিনতে হয়।
নতুন পিসি কেনা হয় অনেক আশা ও উদ্দীপনার সাথে। নতুন পিসিটি হতে পারে একটি বাজেট ডেস্কটপ পিসি বা বাজেট বিজনেস ল্যাপটপ বা গেমিং ডেস্কটপ পিসি। নিঃসন্দেহে বলা যায়, নতুন অবস্থায় এটি সর্বোচ্চ ক্ষমতায় রান করবে। তবে তা খুব বেশিদিন স্থায়ী হয় না। কেননা, পিসি যত বেশি ব্যবহার হবে ক্রমান্বয়ে তা তত গতি তথা ক্ষমতা হারাতে থাকবে। এমন অবস্থায় টিউনআপ ইউটিলিটির প্রয়োজনীয়তা অনুভূব করে থাকেন ব্যবহারকারীরা।
আসলে সব কমপিউটারই তার প্রথম দিনের ক্ষমতা তথা ঔজ্জ্বল্য হারাতে থাকে এবং পরিণত হয় অস্বাভাবিক তন্দ্রাচ্ছন্ন তথা মন্থর, সারাহীন এবং আস্থাহীন এক কমপিউটারে। কমপিউটার অব্যাহতভাবে ব্যবহারের কারণে অপারেটিং সিস্টেম ক্রমাগতভাবে অপ্রয়োজনীয় উপাদানে পরিপূর্ণ হয়ে উঠতে থাকে, যেহেতু পিসিতে প্রতিনিয়তই যুক্ত হয় নতুন নতুন অ্যাপস এবং অসম্পূর্ণভাবে ডিলিট করা অ্যাপ উপাদান, আড়ালে থেকে যাওয়া ড্রাইভ ও অন্যান্য সিস্টেম ডিট্রিউটাস। আমাদের হার্ডড্রাইভ পরিপূর্ণ থাকে ভুলে যাওয়া ফাইলগুলো দিয়ে, যেগুলো ফোল্ডারে পরিত্যক্ত অবস্থায় থেকে যায়, যেগুলোর অস্তিত্ব আমরা সাধারণত ভুলে গিয়ে থাকি। পর্দার আড়ালে প্রোগ্রাম তৈরি করে প্রচুর পরিমাণে ক্যাশড ফাইল, যেগুলোর সম্পর্কে আসলে আমরা কিছুই জানি না। মূলত আমাদের হার্ডড্রাইভ রান করতে চেষ্টা করে, তাই এটি ওএস- কে ব্যাহত করে। এছাড়া পুরনো বা সেকেলের ড্রাইভার যথাযথভাবে কাজ করতে বাধা দেয়। টুলবার ও অন্যান্য অবাঞ্ছিত পস্নাগইন আমাদের ব্রাউজারের স্বাভাবিক গতিকেও ব্যাহত করে।
অব্যাহতভাবে ব্যবহারের কারণে আমাদের মেশিন যখন খুব দুর্বল হয়ে পড়ে এবং উপেক্ষা করবে আমাদের প্রতিদিনের কাজগুলো, যা আমরা সাধারণত যে স্পিড ও দক্ষতায় পিসিতে কাজ করতে অভ্যস্ত, সেই স্পিড ও দক্ষতায় মাইক্রোসফট ওয়ার্ড বা স্ট্রিম গেমের মতো প্রোগ্রামগুলো রান করতে ব্যর্থ হবে। এমন সমস্যার সমাধানের জন্য প্রয়োজন নেই নতুন পিসি কেনা। কেননা, টিউনআপ ইউটিলিটিগুলো ওপরে উল্লিখিত সমস্যাগুলোর কার্যকর সমাধান হতে পারে। কয়েকটি সেরা টিউনআপ ইউটিলিটির মধ্যে অন্যতম কয়েকটি এ লেখায় উপস্থাপন করা হয়েছে।
আইওআইও সিস্টেম মেকানিক
যদি আপনার পিসি বুট না হয় অথবা একই ভঙ্গিতে অ্যাপ্লিকেশন লোড হয়, তাহলো আইওআইও সিস্টেম মেকানিক (Iolo System Mechanic) নামের টিউনআপ ইউটিলিটি ব্যবহার করে দেখতে পারেন। এটি হার্ডড্রাইভ ডিফ্র্যাগ করার মাধ্যমে নাটকীয়ভাবে পিসির পারফরম্যান্স উন্নত করাসহ উইন্ডোজের ত্রম্নটিপূর্ণ রেজিস্ট্রি রিপেয়ার করে, রিয়েল টাইম সিপিইউ ও র্যা মের ব্যবহার উন্নত করাসহ অনেক কাজ বরে। এটি শনাক্ত করে অনাকাঙিক্ষত স্টার্টআপ প্রোগ্রাম, যা ব্যবহারকারীর অজ্ঞাতে চালু হয় এবং রান করতে থাকে। এ ধরনের প্রোগ্রামকে বলা হয় ব্লটওয়্যার। সিস্টেম মেকানিক সম্পৃক্ত করে উইন্ডোজ ১০ স্পেসিফিক প্রাইভেসি টুল। আইওআইও সিস্টেম মেকানিক টুলটি এর প্রতিদ্বন্দ্বী টুলগুলোর তুলনায় ব্যয়বহুল। আইওআইও সিস্টেম মেকানিকনের ফ্রি ভার্সন ৩২.৫৫।
পিসিকে স্ট্যাবল ও এরর ফ্রি রাখার জন্য আইওআইও ল্যাব থেকে ইন্টেলিজেন্ট লাইভ আপডেট ব্যবহার করে ৩০ হাজারের বেশি বিভিন্ন ধরনের সমস্যার সমাধান করা যায়। আইওআইও সিস্টেম মেকানিক টিউনআপ ইউটিলিটি প্রাইভেসি ও সিকিউরিটির জন্য নিরাপদে ব্যবহারকারীর সংবেদনশীল ব্রাউজিং হিস্ট্রি মুছে ফেলে এবং ব্লক করে ক্ষতিকর সিস্টেম পরিবর্তনগুলো, যা স্পিড ও স্ট্যাবিলিটির সাথে কম্প্রোমাইজ করে। ক্লাটার অপসারণের ক্ষেত্রে এ টুল পরিষ্কার করে ৫০ ধরনের বেশি হিডেন জাঙ্ক ফাইল মূল্যবান ডিস্ক স্পেস বাঁচানোর জন্য।
আইওআইও সিস্টেম মেকানিক টুল ১৫.৫-এর ইন্টারফেসের কয়েকটি অপশন আছে, যেগুলো তাদের নিজস্ব সাব-ক্যাটাগরির, যা আপনাকে সুনির্দিষ্ট টিউনআপ টুল রান করানোর সুযোগ করে দেবে। উইন্ডোজ ১০ স্পেসিফিক প্রাইভেসি টুল ডিজাইন করা হয়। প্রাইভেসি শিল্ড স্যুট ওয়াইফাই সেন্স, স্মার্টস্ক্রিন সার্ভিস ও মাইক্রোসফট ডাটা কালেকশন এবং টেলিমেট্রি সার্ভিস প্রতিহত করে আপনার পার্সোনাল তথ্যের অনৈচ্ছিক কালেকশন ও শেয়ারিং। এটি উইন্ডোজ ১০ সার্ভিস ডিজ্যাবল করার সুযোগ দেয়, যা আপনার ওয়াইফাই নেটওয়ার্ক কানেকশন শেয়ার করে।
সিস্নমওয়্যার ইউটিলিটিস সিস্নমক্লিনার পস্নাস
সিস্নমক্লিনার পস্নাস হলো সবচেয়ে অ্যাডভান্সড মেইনটেন্যান্সড পস্নাটফরম। প্রায় সব টিউনআপ ইউটিলিটি পিসির সার্বিক সিস্টেম পারফরম্যান্স উন্নত করে থাকে। টিউনআপ ইউটিলিটি হার্ডড্রাইভ ডিফ্র্যাগ করার মাধ্যমে নাটকীয়ভাবে পিসির পারফরম্যান্স উন্নত করাসহ উইন্ডোজের ত্রম্নটিপূর্ণ রেজিস্ট্রি রিপেয়ার করে ও জাঙ্ক ফাইল ডিলিট করে। তবে যাই হোক, সিস্নমওয়্যার ইউটিলিটি সিস্নমক্লিনার পস্নাস (SlimWare Utilities SlimCleaner Plus) বাড়তি কিছু সুবিধা দেয়, যেমন- কমিউনিটিভিত্তিক রিকমেন্ডেশন, সেকেলের তথা আউট অব ডেট অ্যান্টিভাইরাস শনাক্ত করার সক্ষমতা এবং নতুন ইনস্ট্যান্ট অ্যালার্ট অর্থাৎ তাৎক্ষণিকভাবে সতর্কীকরণ বার্তা, যা অবহিত করবে যে সন্দেহজনক সফটওয়্যার পিসির স্টার্টআপ প্রসেসকে বাইরে থেকে আটকানোর চেষ্টা করছে।
সিস্নমক্লিনার পস্নাস ইউটিলিটি এক ক্লিকে মোবাইল পস্নাটফরমের ব্যাটারির আয়ু বাড়াতে পারে। সিস্নমক্লিনার পস্নাসের রিয়েল টাইম পারফরম্যান্স অপটিমাইজেশন ফিচার পিসির হারানো স্পিড ও স্ট্যাবিলিটি রিগেইন করার তথা ফিরে পাওয়ার সুযোগ করে দেয়, আপনার সিস্টেম সেটআপ থেকে সর্বোচ্চ পারফরম্যান্স পেতে পারেন কাস্টোমাইজেবল সেটিং থেকে।
সিস্নমক্লিনার পস্নাসের রয়েছে ওয়ান ক্লিক স্ক্যান এবং ফিক্স বাটন, ল্যাপটপ পাওয়ার কনজ্যাম্পশন সেটিং এবং অধিকতর দক্ষতার সাথে কমপিউটিংয়ের জন্য অপ্রয়োজনীয় ফিচার নিষ্ক্রিয় করার সক্ষমতা ও উইন্ডোজ ১০ স্পেসিফিক প্রটেকশন, যা আপনাকে অপারেটিং সিস্টেমের প্রাইভেসি সেটিং কাস্টোমাইজ করার সুযোগ দেয়, যাতে ডিজ্যাবল বা সীমিত করতে পারেন ওইসব ফিচার, যা ডাটা কালেক্ট করে ও মাইক্রোসফটকে রিপোর্ট করে।
সিস্নমক্লিনার ফ্রি ইউটিলিটি হলো বিশ্বের প্রথম সফটওয়্যার, যা ক্রাউড সোর্সড অ্যাপ্রোচ ব্যবহার করে উইন্ডোজ সিস্টেমকে ক্লিন ও অপটিমাইজ করে। সিস্নমক্লিনার পস্নাসের প্রয়োজনীয় অনেক কিছু আছে, যেগুলো সিস্নমক্লিনার ফ্রি ইউটিলিটিতে অনুপস্থিত।
এভিজি পিসি টিউনআপ
যদি আপনার পিসি স্বাচ্ছন্দ্যে চলে না, যেমনটি এটি করে থাকে, তাহলে ধরে নিতে পারেন এর জন্য দায়ী অতি-প্রাচুর্যের জাঙ্ক ফাইলের ফ্র্যাগমেন্টেড হার্ডড্রাইভ, বিশৃঙ্খল উইন্ডোজ রেজিস্ট্রি অথবা এ তিন দুর্বল ফাইলের কম্বিনেশন। সৌভাগ্যবশত ‘এভিজি পিসি টিউনআপ ২০১৫’ ইউটিলিটি আপনার উইন্ডোজ কমপিউটারের পারফরম্যান্স উন্নত করে জাঙ্ক ফাইল অপসারণ, অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রাম আনইনস্টল ও হার্ডড্রাইভ ডিফ্র্যাগমেন্ট করাসহ আরও কিছু কাজ করে। সার্বিকভাবে বলা যায়, এভিজি পিসি টিউনআপ ইউটিলিটি ক্ষতিগ্রস্ত কমপিউটারের ওপর চমৎকারভাবে কাজ করে।
পিসি টিউনআপ ২০১৫ ইউটিলিটি একটি বেসিক পিসি ক্লিনআপ অ্যাপ্লিকেশনের চেয়ে বেশি কার্যকর। এ ইউটিলিটি ধারণ করে ফাইল ব্যাকআপ ও রিকোভারি, ফাইল ডিলিশন, উইন্ডোজ কাস্টোমাইজেশন, ব্যাটারি লাইফ সেটিংসহ আরও অনেক ফাংশন।
পিসি টিউনআপ ২০১৫-এর ট্যাবড ইন্টারফেসে রয়েছে ছয়টি সেকশন- ড্যাশবোর্ড, অপটিমাইজ, ক্লিনআপ, ফিক্স প্রবলেমস, পার্সোনালাইজ ও অল ফাঙ্কশন। প্রতিটি ট্যাবে রয়েছে কয়েকটি সহায়ক, স্পষ্টত নির্দিষ্ট ফাঙ্কশন, যা খুব সহজে সবাই বুঝতে পারবে। ড্যাশবোর্ড ট্যাব হলো অ্যাপের ডিফল্ট স্ক্রিন, যা প্রদর্শন করে সমস্যার সংখ্যা ও টুল ডিজাইন করা হয়েছে সেগুলো রিপেয়ার করার জন্য।
পিসি টিউনআপ ২০১৫ টুল উন্নত হওয়া ডুপ্লিকেট ফাইন্ডারসহ বাকি সেকশনজুড়ে বিসত্মৃত হয়। এরপর এটি চিহ্নিত করে ডুপ্লিকেট ফাইল এবং ফাইল সার্চ থেকে সেগুলো বাদ দেয়ার সুযোগ করে দেয়। এ টুলে রয়েছে আপডেটেড ক্লিনিং ডেফিনেশনের জন্য অ্যাডোবি লাইটরুম, অ্যাডোবি ফটোশপ সিএস৬, অ্যাভাস্ট প্রো অ্যান্টিভাইরাস, ম্যালওয়্যারবাইট অ্যান্টিম্যালওয়্যার ও নিরো ১২, যা সহায়তা করে অপ্রয়োজনীয় থেকে যাওয়া ডাটা অপসারণ করতে, যাতে হার্ডড্রাইভের মূল্যবান স্পেস সাশ্রয় হয় এবং সিস্টেম পারফরম্যান্স উন্নত হয়। লাইভ অপটিমাইজেশন রিয়েল টাইম সিস্টেম মনিটরিং লোড হওয়া রিসোর্সের দিকে খেয়াল রেখে পিসিকে যথাযথভাবে রান করানোর জন্য কার্যকর ভূমিকা রাখে।
অ্যানভিসফট ক্লাউড সিস্টেম বুস্টার
একসময় আপনার পিসির পারফরম্যান্স শস্নথ হতে থাকবে, কেননা উইন্ডোজ রেজিস্ট্রি তির্যকভাবে কাজ করবে, হার্ডডিস্ক ফ্র্যাগমেন্ট হবে, অ্যাপ্লিকেশনগুলো আড়ালে রেখে যাবে প্রচুর পরিমাণে জাঙ্ক ফাইল, এমনকি সেগুলো আনইনস্টল করার পরও। অ্যানভিসফটের ক্লাউড সিস্টেম বুস্টার এসব সমস্যা সংশোধন করে অকার্যকর রেজিস্ট্রি এন্ট্রি ফিক্স করে, হার্ডড্রাইভ স্পেস খালি করে কমপিউটার পারফরম্যান্স অপটিমাইজ করার মাধ্যমে। ক্লাউড সিস্টেম বুস্টার পিসির পারফরম্যান্স উন্নত করে।
ক্লাউড সিস্টেম বুস্টার টিউনআপ ইউটিলিটি কাজে লাগায় একটি প্যানেল ড্রাইভেন ইন্টারফেস। এ কারণে এটি দ্রুতগতিতে অ্যাপ্লিকেশনের ফিচারে অ্যাক্সেস করতে পারে, যেমন- রেজিস্ট্রি ক্লিনার, ডিস্ক ক্লিনার, অপটিমাইজার, পিসি রিপেয়ারসহ অনেক ফিচারে। আপনি এসব ফিচার আলাদাভাবে রান করতে পারেন অথবা সহজে রান করতে পারেন Quick Care-এ ক্লিক করে।
ক্লাউড সিস্টেম বুস্টার বাড়তি কিছু ফিচারসমৃদ্ধ হওয়ায় টিউনআপ ইউটিলিটি প্যাকের বাইরে থাকছে। ইচ্ছে করলে এই অ্যাপের লুক কাস্টোমাইজ করতে পারবেন কালার, ফন্ট সাইজ, ফন্ট টাইপ ও ব্যাকগ্রাউন্ড ফটো পরিবর্তন করার মাধ্যমে।
অ্যাশ্যাম্পু উইনঅপটিমাইজার
পিসির পারফরম্যান্স ইস্যু অবশ্যম্ভাবী এক সময় কমে আসবে, কাজ করার ভঙ্গি হবে ধীর। অ্যাশ্যাম্পু উইনঅপটিমাইজার ফিক্স করতে পারে কমন তথা সাধারণ পিসি সমস্যা, স্টোরেজ স্পেস ফ্রি করার জন্য অপসারণ করে প্রয়োজনাতিরিক্ত ফাইল, সমস্যামূলক উইন্ডোজ রেজিস্ট্রির ত্রম্নটি সংশোধন করাসহ বেশ কিছু কাজ। গত ভার্সনের চেয়ে সর্বশেষ ভার্সনে বেশ উন্নয়ন হয় উইনঅপটিমাইজার টিউনআপ ইউটিলিটির। এ ভার্সনের নতুন দুটি ফিচার হলো অটোক্লিন ও উইন্ডোজ ১০ প্রাইভেসি কন্ট্রোল।
আপডেটেড উইনঅপটিমাইজার উইন্ডোজ ভিস্তা, উইন্ডোজ ৭, উইন্ডোজ ৮ ও উইন্ডোজ ১০ কম্প্যাটিবল, তবে উইন্ডোজ এক্সপি সাপোর্ট করে না।
অ্যাশ্যাম্পু অফার করে উইনঅপটিমাইজারের ৪০ দিনের ফ্রি ট্রায়াল ভার্সন, যা আপনাকে সব ফিচারে অ্যাক্সেসের সুযোগ দেয়। উইনঅপটিমাইজারের ফ্রি ট্রায়াল ভার্সন সিস্নমওয়্যার ইউটিলিটির সিস্নমক্লিনার ফ্রি ভার্সনের চেয়ে ভালো

পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
২০১৭ - মার্চ সংখ্যার হাইলাইটস
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস