Comjagat.com-The first IT magazine in Bangladesh
  • ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > কমপিউটার জগতের খবর
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: কজ
মোট লেখা:১০৪১
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১৭ - মে
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
নিউজ
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগতের খবর
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
কমপিউটার জগতের খবর
দেশের প্রথম ‘ডিজিটাল আইল্যান্ড’ হচ্ছে মহেশখালী
বাংলাদেশের কক্সবাজারের উপকূলবর্তী দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীকে ‘ডিজিটাল আইল্যান্ড’ হিসেবে রূপামত্মরের জন্য একটি কার্যক্রম শুরম্ন হয়েছে। এর উদ্যোক্তা আমত্মর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা বা আইওএম বলছে, এটি বাসত্মবায়িত হলে শহরের ভালো চিকিৎসক ও শিক্ষকদের সহায়তা পাবে স্থানীয়রা। সংস্থাটি মূলত উচ্চগতির ইন্টারনেটের মাধ্যমে দ্বীপের মানুষের প্রয়োজনীয় সেবা নিশ্চিত করবে। বিশেষ করে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও ই-কমার্স- এ তিনটি খাতে বিশেষভাবে দ্বীপবাসীকে সহায়তা করা হবে। প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে ‘শিক্ষামূলক কর্মসূচি’ চালু ও শিক্ষার্থীদের এমআইএস ডাটাবেজ তৈরি, কৃষকদের জন্য ই-বাণিজ্য সুবিধা, তথ্যপ্রযুক্তিতে শিক্ষক, চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী ও সরকারি কর্মকর্তাদের দক্ষ করতে প্রশিক্ষণ ইত্যাদি কার্যক্রম চালু করা হবে। ‘কনভার্টিং মহেশখালী ইনটু ডিজিটাল আইল্যান্ড’ প্রকল্পে ব্যয় হবে প্রায় ২২ কোটি ৩৫ লাখ ৮১ হাজার টাকা। আর এর কাজ ২০১৮ সালের ৩০ জুনের মধ্যে শেষ হবে
জজেলা পর্যায়ে নতুন ১২ আইটি পার্কের অনুমোদন
জেলা পর্যায়ে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়ন ও তরম্নণদের সম্পৃক্ততা আরও বাড়াতে ‘জেলা পর্যায়ে আইটি পার্ক বা হাইটেক পার্ক স্থাপন’ প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। গত ২৫ এপ্রিল শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্য প্রকল্পের পাশাপাশি তথ্যপ্রযুক্তি খাতে জেলা পর্যায়ে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো গড়ে তুলতে গুরম্নত্বপূর্ণ এই প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়।
প্রকল্পের আওতায় খুলনা, বরিশাল, রংপুর, চট্টগ্রাম, কুমিলস্না, কক্সবাজার, ময়মনসিংহ, জামালপুর, নাটোর, গোপালগঞ্জ, ঢাকা ও সিলেট জেলায় ১২টি আইটি পার্ক বা হাইটেক পার্ক গড়ে তোলা হবে। ১ হাজার ৭৯৬ কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ের এই প্রকল্পে ভারতের দ্বিতীয় লাইন অব ক্রেডিট থেকে ১ হাজার ৫৪৪ কোটি টাকা ও সরকারি তহবিল থেকে ২৫২ কোটি ৪০ লাখ টাকা জোগান দেয়া হবে। চলতি বছরের জুলাই থেকে শুরম্ন হয়ে ২০২০ সালের জুনের মধ্যে এই প্রকল্প বাসত্মবায়ন করা হবে
প্রিতিটি পরিবারে আইটি পেশাজীবী তৈরি করা হবে : পলক
বাংলাদেশের প্রতিটি পরিবারে একজন করে আইটি পেশাজীবী তৈরি করা হবে বলে মমত্মব্য করেছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। তিনি বলেন, তারা আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করে নিজেদের বেকারত্ব দূর করবে এবং আত্মনির্ভরশীল হয়ে দেশের উন্নয়নে কাজ করবে। গত ১৫ এপ্রিল দুপুরে সিংড়া পৌরসভা মিলনায়তনে আয়োজিত ‘শেখ রাসেল পৌর আউটসোর্সিং ট্রের্নিং সেন্টার’ ও ‘বিনামূল্যে আউটসোর্সিং প্রশিক্ষণ কর্মসূচি’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন। আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকার এ জন্য তথ্যপ্রযুক্তিতে দক্ষ জনশক্তি গড়ে তোলার লক্ষ্যে এলআইসিটি প্রকল্পের মাধ্যমে দেশব্যাপী গুণগত প্রশিক্ষণ প্রদান করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকারের কার্যকর পদক্ষেপের কারণে বাংলাদেশ দ্রম্নত অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি লাভ করছে। উন্নয়নের এই ধারায় বর্তমান সময়ের তরম্নণ প্রজন্মকে সম্পৃক্ত হতে হবে। এ জন্য তাদের তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে নেতৃত্বের গুণাবলি নিয়ে গড়ে উঠতে হবে

ফিসলের ক্ষেতের সবশেষ অবস্থা জানাবে ‘ই-ভিলেজ’ মোবাইল অ্যাপ
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির বিপুল সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে কীভাবে স্বল্পতম ব্যয়ে সবের্বাচ্চ ফলন নিশ্চিত করার লক্ষ্য নিয়ে প্রযুক্তির সবশেষ অগ্রগতিকে কাজে লাগিয়ে ‘ই-ভিলেজ’ নামে একটি বিশেষ প্রকল্প শুরম্ন হতে যাচ্ছে। মাটির স্বাস্থ্য, ফসলের প্রকৃত রোগ যথাযথভাবে নিরূপণ করে বিদ্যমান উপাদান ব্যয় কমিয়ে সবের্বাচ্চ ফলন নিশ্চিত করতে নতুন এই মোবাইল অ্যাপটি চালু করা হবে। চীনা দূতাবাসের আর্থিক সহায়তায় খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠান আইসফটস্টোন, গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর রিচার্স অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌথ উদ্যোগে ইতোমধ্যেই প্রজেক্টের কাজ এগিয়ে চলছে। গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ২৪নং ওয়ার্ডের পাজুলিয়া গ্রামে ১৫ জন কৃষকের ওপর প্রাথমিকভাবে পরীক্ষামূলক এই প্রকল্পটি বাসত্মবায়নের কাজ চলছে

ভ্যিাট কমিয়ে হলেও ইন্টারনেটের দাম কমানো হবে : তারানা হালিম
মূল্য সংযোজন করসহ (ভ্যাট) বিভিন্ন করের হার কমিয়ে হলেও প্রয়োজনে ইন্টারনেটের দাম কমানো হবে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। গত ২৬ এপ্রিল ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে ইন্টারনেটের দাম কমানো সংক্রামত্ম এক বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তারানা হালিম। তারানা হালিম বলেন, এ জন্য শিগগিরই অর্থ মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেয়া হবে। এ বিষয়ে মুঠোফোন অপারেটরসহ সংশিস্নষ্ট সব পক্ষকে সুনির্দিষ্ট প্রসত্মাব জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বর্তমানে বিভিন্ন মুঠোফোন অপারেটরের ৩০ দিন মেয়াদের এক গিগাবাইট ইন্টারনেট প্যাকেজের গড় দাম ১৮০ থেকে ২২০ টাকা। আর সাত দিন মেয়াদের এক গিগাবাইট প্যাকেজের দাম ৮৯ থেকে ৯৪ টাকা। এই দামের সাথে ১৫ শতাংশ মূল্য সংযোজন কর, ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক ও ১ শতাংশ সারচার্জ গ্রাহককে দিতে হয়। এ হিসেবে প্রতি ১০০ টাকার ইন্টারনেট সেবা কিনতে গ্রাহককে প্রায় ২২ টাকা কর দিতে হয়

আিঙ্কটাড ই-কমার্স উইকে ই-ক্যাবের অংশগ্রহণ
সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় অনুষ্ঠিত হয়ে গেল জাতিসংঘের বাণিজ্য ও উন্নয়ন বিষয়ক সংস্থা (আঙ্কটাড) আয়োজিত ‘আঙ্কটাড ই-কমার্স উইক-২০১৭’। গত ২৪ এপ্রিল শুরম্ন হয়ে ই-কমার্স উইক শেষ হয় ২৬ এপ্রিল। ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ই-ক্যাব) উদ্যোগে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ডবিস্নউটিও সেলের মহাপরিচালক মো: মুনির চৌধুরীর নেতৃত্বে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, অর্থ মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ ব্যাংক, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের প্রতিনিধি, ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ই-ক্যাব) উপদেষ্টা শমী কায়সারসহ মোট আট সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল এতে অংশ নেয়। অনুষ্ঠানের একটি পর্বে ই-ক্যাব ও বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের পক্ষে প্যানেল আলোচনায় প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন শমী কায়সার। এ ছাড়া ওই অধিবেশনে অংশ নেন বাংলাদেশ কমপিটিশন কমিশনের ডেপুটি সেক্রেটারি মো: খালিদ আবু নাসের, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ডবিস্নউটিও সেলের পরিচালক মো: হাফিজুর রহমান, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মো: আবু মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, অর্থ মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিবের ব্যক্তিগত সচিব সৈয়দ মো: কাওসার হোসেন প্রমুখ

ঢিাকায় গড়ে উঠছে বড় আকারের ডাটা সেন্টার
ঢাকায় বড় আকারের ডাটাবেজ সেন্টার করতে যাচ্ছে সরকার। যেটি বিশ্বের ষষ্ঠ ডাটা ব্যাংক হবে। এর ‘ব্যাকআপ স্টোরেজ’ থাকবে যশোরে। সম্প্রতি রাজধানীর কারওয়ান বাজারে ‘দ্য ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্স অব বাংলাদেশ (আইসিএবি) ভবনে অনুষ্ঠিত সাইবার নিরাপত্তা : একটি পর্যালোচনা’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো: হারম্ননুর রশিদ এ সব কথা বলেন। এই ডাটা ব্যাংক সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ব্যবহার করতে পারবে। বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে নির্দিষ্ট ফি দিতে হবে। আইসিএবি আয়োজিত এই সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন দ্য কমপিউটার্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক খন্দকার আতিক-ই-রাববানী। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন আইসিএবির প্রেসিডেন্ট আদিব হোসেন খান। আইসিএবির ভাইস প্রেসিডেন্ট মোসত্মফা কামাল সমাপনী বক্তব্য দেন

হিয়রানি রোধে লিটারেসি বিভাগ চালু করা হবে : পলক
অনলাইনে হয়রানি প্রতিরোধ ও সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে ডিজিটাল লিটারেসি বিভাগ চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন মিলনায়তনে ‘সাইবার সিকিউরিটি অ্যাওয়ারনেস ফর উইমেন এমপাওয়ারমেন্ট’ বিষয়ক এক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ তথ্য জানান। সরকারের তথ্য ও প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগের অধীন কন্ট্রোলার অব সার্টিফায়িং অথরিটিজ (সিসিএ) এ কর্মশালার আয়োজন করে। প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশে সাইবার অপরাধের শিকার মানুষের বড় অংশ অল্পবয়সী কিশোরী এবং এদেরই এ অপরাধে আক্রামত্ম হওয়ার ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি। অল্পবয়সী মেয়েরা যখন কেউ সাইবার অপরাধের শিকার হয়, অধিকাংশ ক্ষেত্রে তারা বুঝতেই পারে না কি করবে বা কাকে জানাবে। হয়রানি ঠেকাতে সরকার কাজ করছে জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা একটি ডিজিটাল লিটারেসি বিভাগ করব, যার মাধ্যমে সাধারণ মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার সংক্রামত্ম সবকিছু জানতে পারবে। অনুষ্ঠানে ইন্টারনেটে হয়রানি প্রতিরোধ ও সাইবার অপরাধের শিকার হলে করণীয় সম্পর্কে জানাতে স্কুল ছাত্রীদের প্রশিক্ষণের উদ্যোগ হিসেবে ‘সাইবার সিকিউরিটি অ্যাওয়ারনেস ফর উইমেন এমপাওয়ারমেন্ট’ কর্মশালা চালু করা হয়

ডিজিটাল ট্রানজেকশন সামিট অনুষ্ঠিত
সম্প্রতি রাজধানীর একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত হয় ‘ডিজিটাল ট্রানজেকশন সামিট ২০১৭’। গভর্ন্যান্স পলিসি এক্সপেস্নার সেন্টার ও র্যােলি রাউন্ডের উদ্যোগে সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির চেয়ারম্যান মো: তাজুল ইসলাম এবং ঢাকা চেম্বার অব কমার্সের সাবেক সভাপতি মো: সবুর খান। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মাস্টারকার্ডের কান্ট্রি হেড সৈয়দ কামাল, সিটিও ফোরামের সভাপতি তপন কামিত্ম সরকার, এসএসএল ওয়্যারলেসের প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা (সিটিও) আশিষ চক্রবর্তী, ব্র্যাক ব্যাংকের ডিজিটাল ব্যাংকিং ও ই-কমার্স বিভাগের প্রধান সিরাজ আজম সিদ্দিকী, বেসিসের পরিচালক মোসত্মাফিজুর রহমান, লংকা-বাংলা ফিন্যান্সের সিটিও মাইনুল ইসলাম, ই-ক্যাবের সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওয়াহেদ তমাল, এক্সপেস্নার সেন্টারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) রাজীব পারভেজ ও র্যাআলি রাউন্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নাজনীন নাহার
তিথ্যপ্রযুক্তিতে নবীন উদ্যোগকে সম্মাননা দেবে সরকার
তথ্যপ্রযুক্তি খাতের নবীন উদ্ভাবনী উদ্যোগকে সম্মাননা জানাবে সরকার। সম্প্রতি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের এক সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়- দেশসেরা, মহিলা ও আঞ্চলিক বিভাগে সর্বমোট দশটি উদ্যোগকে সম্মাননা জানানো হবে। সেই সাথে দেশীয় ও আমত্মর্জাতিক বিনিয়োগকারীদের পরিচয় করিয়ে দিতে আগামী ২৫ মে অনুষ্ঠিত হবে ‘ন্যাশনাল ডেমো ডে ২০১৭’। আইসিটি বিভাগের উদ্যোক্তা বিশেষায়িত কর্মসূচি স্টার্টআপ বাংলাদেশ ও উদ্যোক্তা গবেষণা প্রতিষ্ঠান বেটার স্টোরিজ লিমিটেডের উদ্যোগে জাতীয় পর্যায়ে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ন্যাশনাল ডেমো ডে। আয়োজনে সহযোগী হিসেবে আছে জিপি অ্যাকসেলারেটর ও ভেঞ্চার ক্যাপিটাল অ্যান্ড প্রাইভেট ইক্যুইটি অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ। যেসব উদ্যোক্তা এক বছরের বেশি সময় ধরে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে ব্যবসায় পরিচালনা করে আসছেন তারা স্টার্টআপ অ্যাওয়ার্ডে আবেদন করতে পারবেন বলে জানানো হয়। আগামী ১৪ মের মধ্যে আবেদনের সময় অবশ্যই উদ্যোক্তাকে ব্যবসায়িক নিবন্ধনের কাগজ, এক বছরের আর্থিক লেনদেনের বিবরণী এবং ব্যবসায়ের বিবরণের অনুলিপি সংযুক্তি হিসেবে দিতে হবে। আবেদন ও বিসত্মারিত জানা যাবে (ংধৎঃঁঢ়নধহমষধফবংয.মড়া.নফ/হফফ) ঠিকানায়। রাজধানীর কারওয়ান বাজারস্থ সফটওয়ার টেকনোলজি পার্কে প্রধান অতিথি আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের উপস্থিতিতে এক সংবাদ সম্মেলনে এ সম্পর্কে বিসত্মারিত তুলে ধরেন আয়োজকরা

পিারফরম্যান্স নিশ্চিত করছে রিভ অ্যান্টিভাইরাস
যেকোনো ভাইরাস থেকে পরিপূর্ণ সুরক্ষা ও কমপিউটার/মোবাইল ফোনের গতিশীল পারফরম্যান্স নিশ্চিত করছে রিভ অ্যান্টিভাইরাস। অল্প সময়ে অধিক ভাইরাস শনাক্ত ও অপসারণের জন্য বাংলাদেশের নিজস্ব এই অ্যান্টিভাইরাস ইতোমধ্যে অর্জন করেছে অপসোয়াট সিলভার সার্টিফিকেট ও ভাইরাস বুলেটিন স্বীকৃতি। এ ছাড়া বাংলাদেশের এই একমাত্র সাইবার নিরাপত্তা পণ্যটি মাইক্রোসফট ভাইরাস ইনফরমেশন অ্যালায়েন্সের সদস্য। টার্বো স্ক্যান টেকনোলজিসমৃদ্ধ রিভ অ্যান্টিভাইরাস অন্যান্য অ্যান্টিভাইরাসের তুলনায় অল্প রিসোর্স (কমপিউটার মেমরি) ব্যবহার করে অধিক ম্যালওয়্যার বা ভাইরাস শনাক্ত করতে সক্ষম। নিজস্ব মেশিন লার্নিং প্রযুক্তির মাধ্যমে ‘জিরো ডে’ ভাইরাস শনাক্তকরণ ও অপসারণে দারম্নণ কার্যকর রিভ অ্যান্টিভাইরাস।
রিভ অ্যান্টিভাইরাসের সিইও সঞ্জিত চ্যাটার্জী জানান, উপমহাদেশীয় ব্যবহারকারীদের অনেকেই ‘অ্যান্টিভাইরাস ইনস্টল করা হলে পিসি সেস্না হয়ে যায়’ বলে জানতেন। কিন্তু আমাদের রিভ অ্যান্টিভাইরাস পিসির স্মুথ পারফরম্যান্সের সাথে দেয় হাই ম্যালওয়্যার ডিটেকশন। ফলে রিভ অ্যান্টিভাইরাস ইনস্টল করা পিসি একদিকে যেমন সব ধরনের অনলাইন থ্রেট থেকে নিরাপদ থাকে, তেমনি ব্যবহারকারীকে দেয় সব সময় নতুনের মতো পারফরম্যান্স।
তিনি আরও জানান, বাংলাদেশ ও ভারতে রিভ অ্যান্টিভাইরাসের নিজস্ব ল্যাব থাকায় উপমহাদেশীয় যেকোনো ভাইরাস, সাইবার অ্যাটাক মোকাবেলায় ও যেকোনো গেস্নাবাল সাইবার নিরাপত্তা পণ্যের চেয়ে রিভ অ্যান্টিভাইরাস অধিক পারদর্শী ও কার্যকর। হাই ম্যালওয়্যার ডিটেকশন উইথ স্মুথ পিসি এক্সপেরিয়েন্সসমৃদ্ধ রিভ অ্যান্টিভাইরাস ঢাকা ও চট্টগ্রামসহ জেলা শহরের অভিজাত কমপিউটার সামগ্রীর দোকানের পাশাপাশি w..ৎবাবধহঃরারৎঁং.পড়স থেকে ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড কিংবা ক্যাশ অন ডেলিভারিতে অর্ডার করা যাচ্ছে। বাংলাদেশে একমাত্র রিভ অ্যান্টিভাইরাস দিচ্ছে সপ্তাহে ২৪ ঘণ্টা সাপোর্ট। যেকেউ চাইলে w..ৎবাবধহঃরারৎঁং.পড়স ওয়েবসাইট থেকে ফ্রি ট্রায়াল ডাউনলোড করে নিয়েও সব সুবিধা উপভোগ করে দেখতে পারেন। যোগাযোগ : ০১৮৪৪০৭৯১৮১

গিগাবাইটের গেমিং মাদারবোর্ড
স্মার্ট টেকনোলজিস বাজারে নিয়ে এসেছে গিগাবাইট ব্র্যান্ডের জিএ-জেড২৭০ গেমিং ৫ মাদারবোর্ড। ইন্টেল ষষ্ঠ ও সপ্তম প্রজন্মের প্রসেসর সমর্থিত এই মাদারবোর্ডে রয়েছে ডুয়াল চ্যানেল নন-ইসিসি আনবাফারড ডিডিআর৪ র্যা ম সস্নট, ফাস্ট ইউএসবি ৩.১, ত্রিমাত্রিক গ্রাফিক্স সাপোর্ট, এসএসডি সস্নট, এনভিএমই পিসিআইই কানেক্টর, ডুয়াল আল্ট্রা ফাস্ট এম ২ ও সাটা ইন্টারফেস, সাউন্ড বস্নাস্টার, কিলার ই২৫০০ গেমিং নেটওয়ার্ক, ইন্টেল গিগাবিট ল্যান ও ডুয়াল বায়োসসহ অসংখ্য ফিচার। মাদারবোর্ডটিতে তিন বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা পাবেন একজন ক্রেতা। গেমার ও গ্রাফিক্স প্রফেশনালদের জন্য এই মাদারবোর্ডটি অত্যমত্ম কার্যকর। যোগাযোগ : ০১৭৩০৭০১৯৮৩

ববেসিস ইবিএল ও মাস্টারকার্ডের যৌথ ক্রেডিট কার্ড উদ্বোধন
বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস), ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড (ইবিএল) ও মাস্টারকার্ড যৌথভাবে বেসিসের সদস্য কোম্পানি ও কোম্পানির কর্মীদের জন্য এক্সক্লুসিভ টাইটেনিয়াম ক্রেডিট কার্ড চালু করেছে। বেসিসের মেম্বারস ওয়েলফেয়ার সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির উদ্যোগে সম্প্রতি বেসিস মিলনায়তনে আনুষ্ঠানিকভাবে এই কার্ডের উদ্বোধন করা হয়। এই কার্ডটি চমকপ্রদ ও ইউনিক কিছু ফিচার নিয়ে এসেছে। কার্ডটির মাধ্যমে মাস্টারকার্ডের ১৬শ’র বেশি পার্টনার আউটলেট থেকে বিভিন্ন ধরনের ছাড় ও সুবিধা পাওয়া যাবে। যেমন- বোগো (বাই ওয়ান গেট ওয়ান) অফারের মাধ্যমে কক্সবাজার ও সিলেটের শীর্ষস্থানীয় হোটেল ও রিসোর্টে অতিরিক্ত রাত বিনামূল্যে থাকতে পারবেন। অনুষ্ঠানে বেসিসের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি রাসেল টি আহমেদ, সহ-সভাপতি এম রাশিদুল হাসান, পরিচালক উত্তম কুমার পাল, মোসত্মাফিজুর রহমান সোহেল, রিয়াদ এসএ হোসেন, বেসিসের সদস্য সেবা সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন ফারম্নক, ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের হেড অব ডিরেক্টর বিজনেস এম খোরশেদ আনোয়ার, মাস্টারকার্ড বাংলাদেশের পরিচালক গীতাঙ্ক ডি দত্তসহ প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন
বিাণিজ্যিক লেনদেন শুরম্ন করল ‘পে ৩৬৫’
দেশে প্রথমবারের মতো বাণিজ্যিকভাবে লেনদেনের মাধ্যমে যাত্রা শুরম্ন করল মোবাইল অ্যাপিস্নকেশন ‘পে ৩৬৫’। অ্যাপটির ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠান ফাইনটেক, আইটি সলিউশন প্রতিষ্ঠান ডাটাসফট সিস্টেমস ও ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেডের যৌথ সহযোগিতায় নির্মিত এই অ্যাপটি সম্প্রতি বনানীর মিনা বাজার ও ক্রিমসন কাপ কফিশপে সরাসরি লেনদেনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরম্ন করে। ফাইনটেক লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর মোহাইমেন মোসত্মফা বলেন, এই একটি অ্যাপের মাধ্যমেই হাতের মোবাইল ফোনটি হয়ে যাবে ডিজিটাল ওয়ালেট। অ্যাপটি ব্যবহার করা যাবে নগদ টাকা, ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করার মতো করেই। অ্যাপটি প্রত্যেক ব্যবহারকারীর জন্য একটি স্বতন্ত্র কিউ আর কোড তৈরি করবে, যার মাধ্যমে অর্থ লেনদেন করা যাবে। প্রতিবার কেনাকাটায় লাগবে পিন কোড। এর ফলে ফোনটি হারিয়ে গেলে বা অন্য কারও হাতে থাকলেও সে পেমেন্ট করতে পারবে না। এই অ্যাপটির মাধ্যমে কোনো নগদ টাকা লেনদেন করা যাবে না। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও আবুল কাশেম মো: শিরিন, ডাটাসফট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহবুব জামান, ডিরেক্টর ও সিওও মানজুর মাহমুদ, সিনিয়র প্রজেক্ট ম্যানেজার অ্যান্ড এন্টারপ্রইজ আর্কিটেকচার আশিকুল ইসলাম আখন্দ, ফাইনটেক লিমিটেডের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা

গগেস্নাবাল ব্র্যান্ডের আয়োজনে শিশু চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত
সম্প্রতি আইডিবি ভবনের কমপিউটার সিটির বার্ষিক মেলা ‘সিটিআইটি-২০১৭’ কমপিউটার মেলার দ্বিতীয় দিন অনুষ্ঠিত হয় শিশু চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা। গেস্নাবাল ব্র্যান্ডের আয়োজনে এই প্রতিযোগিতায় কয়েকশ’ শিশু অংশ নেয়। ৪ থেকে ৭, ৮ থেকে ১০ ও ১১ থেকে ১৪ বছর বয়সীদের মধ্যে তিন বিভাগে অনুষ্ঠিত হয় এ চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কার্টুনিস্ট আহসান হাবীব। প্রতিযোগিতা শেষে প্রতি বিভাগের তিনজন করে বিজয়ীকে পুরস্কার দেয়া হয়। এ ছাড়া মেলায় উপস্থিত প্রতিটি শিশুর মাঝে গেস্নাবাল ব্র্যান্ড আকর্ষণীয় পুরস্কার বিতরণ করে

ককোরশেয়া কে৭০ লাক্স মেকানিকাল গেমিং কিবোর্ড
স্মার্ট টেকনোলজিস বাজারে নিয়ে এসেছে কোরশেয়ার ব্র্যান্ডের কে৭০ লাক্স মেকানিক্যাল গেমিং কিবোর্ড। লাল ব্যাকলাইটসম্পন্ন এই কিবোর্ডের ডাইমেনশন ৪৩৬এমএম বাই ১৬৫এমএম বাই ৩৮এমএম। রয়েছে ম্যাক্রো কী, ইউএসবিতে ফুল কী রোলওভার, উইন লক ও সিইউবি সফটওয়্যার। ব্রাইডেড ফাইবারসম্পন্ন এই কিবোর্ডে রয়েছে দুই বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা। দাম ১২ হাজার টাকা। যোগাযোগ : ০১৭৫৫৬০৬২৮৯

পিান্ডা সিকিউরিটি ক্যুইজ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ
আইডিবি ভবনে অনুষ্ঠিত সিটি আইটি কমপিউটার মেলায় গত ১২ এপ্রিল এক জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে গেস্নাবাল ব্র্যান্ডের পান্ডা সিকিউরিটি আয়োজিত পান্ডা সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন ক্যুইজ প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া বিজয়ীদেও মাঝে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়।
পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন গেস্নাবাল ব্র্যান্ডের চেয়ারম্যান আবদুল ফাত্তাহ, বিশেষ অতিথি ছিলেন গেস্নাবাল ব্র্যান্ডের জিএম সমির কুমার দাস এবং জিএম কামরম্নজ জামান ও নুরম্নল আফসারসহ পান্ডা সিকিউরিটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।
পান্ডা সিকিউরিটি বাংলাদেশের সৌজন্যে এটি ছিল ফেসবুকভিত্তিক অনলাইন প্রতিযোগিতা। প্রতিযোগিতায় বিচারকদের রায় ও ফেসবুক ভোটে প্রথম স্থান অর্জন করে মেগা পুরস্কার আসুস জেনফোন জিতে নেন সোহানা আফরোজ। তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন গেস্নাবাল ব্র্যান্ডের চেয়ারম্যান আবদুল ফাত্তাহ। দ্বিতীয় স্থান থেকে নবম স্থান অর্জনকারীদের জন্যও ছিল আকর্ষণীয় পুরস্কার। পান্ডা সিকিউরিটি-বাংলাদেশের ফেসবুক সাইটটি হলো w..ভধপবনড়ড়শ.পড়স/ঢ়ধহফধনফ
দদেশের বাজারে পি১০ ও পি১০ পস্নাস উন্মোচন করল হুয়াওয়ে
রাজধানীর একটি হোটেলে গত ২২ এপ্রিল বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের বাজারে নতুন ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস পি১০ ও পি১০ পস্নাস উন্মোচন করেছে হুয়াওয়ে কনজ্যুমার বিজনেস গ্রম্নপ। গত বছরের ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস পি৯ ও পি৯ পস্নাসের ব্যাপক সফলতার ধারাবাহিকতায় এবারও নতুন ফোন দুটিতে ব্যবহার করা হয়েছে জার্মানির লাইকার ডুয়াল লেন্সসমৃদ্ধ ক্যামেরা। এবারই প্রথম পি১০ ও পি১০ পস্নাসে ব্যবহার করা হয়েছে লাইকা ফ্রন্ট ক্যামেরা। অত্যাধুনিক স্টুডিও মানের রি-লাইটিং ও থ্রিডি ফেসিয়াল শনাক্তকরণ প্রযুক্তি ব্যবহার হওয়ায় যেকোনো পরিবেশে চমৎকার ছবি তুলতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। বাড়তি আকর্ষণ হিসেবে রয়েছে হাইব্রিড জুম, যা ছবিতে কোনো নির্দিষ্ট বিষয়বস্ত্তকে ফোকাস করে স্বচ্ছতা বজায় রাখার ক্ষেত্রে কার্যকর ভূমিকা রাখবে। সোনালি, কালো ও নীল রঙে দেশের বাজারে পাওয়া যাবে হুয়াওয়ে পি১০ এবং পি১০ পস্নাস পাওয়া যাবে শুধু সোনালি রঙে। দেশের শীর্ষস্থানীয় মোবাইল অপারেটর রবির সাথে অংশীদারিত্বে পি১০ ও পি১০ পস্নাস উন্মোচন করেছে হুয়াওয়ে। রবি গ্রাহকরা পি১০ বা পি১০ পস্নাস ক্রয় করলে পাবেন ১৫ জিবি ফ্রি ইন্টারনেট ডাটা। এ ক্ষেত্রে প্রতিমাসে ৫ জিবি করে তিন মাসে মোট ১৫ জিবি ফ্রি ইন্টারনেট ডাটা উপভোগ করতে পারবেন ক্রেতারা।
রবির ডাটা, ডিভাইস ও ইন্টারন্যাশনাল পি১০ ও পি১০ পস্নাসের দাম যথাক্রমে ৫৬ হাজার ৯০০ টাকা ও ৬৬ হাজার ৯০০ টাকা। যমুনা ফিউচার পার্ক ও বসুন্ধরা সিটি শপিং মলে হুয়াওয়ে এক্সপিরিয়েন্স সেন্টারসহ দেশব্যাপী ৬৪ জেলার হুয়াওয়ে ব্র্যান্ড শপগুলোতে নতুন হ্যান্ডসেট দুটি কিনতে পারবেন ক্রেতারা
জিাতীয় জাদুঘরের ভার্চুয়াল গ্যালারি চালু
চালু হয়েছে ঘরে বসে ইন্টারনেটে জাদুঘর ঘুরে দেখার সুযোগ। সম্প্রতি বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে এই ভার্চুয়াল গ্যালারি উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেন, বর্তমান সরকার এই ভার্চুয়াল গ্যালারি সম্প্রসারণে ও বাংলাদেশের অন্যান্য জাদুঘরের জন্য ভার্চুয়াল গ্যালারি তৈরিতে অর্থ বরাদ্দ করবে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘরের কিউরেটর মো: নজরম্নল ইসলাম খান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) কবির বিন আনোয়ার ও জাদুঘরের মহাপরিচালক ফয়জুল লতিফ চৌধুরী। বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সভাপতি শিল্পী হাশেম খান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। বাংলাদেশ জাদুঘরের ওয়েবসাইট (নধহমষধফবংযসঁংবঁস.মড়া.নফ/াঃ) থেকে ভার্চুয়াল গ্যালারি দেখা যাবে
ককেনাকাটার নতুন ফিচার এনেছে গুগল
সার্চ জায়ান্ট গুগল তাদের ইমেজ সার্চ অ্যাপে নতুন হালনাগাদের ঘোষণা দিয়েছে। হালনাগাদ ফিচারটির নাম ‘স্টাইল আইডিয়াস’। মোবাইল ওয়েব ও অ্যান্ড্রয়িডের গুগল অ্যাপে এটি কাজ করবে। গুগলের ইমেজ সার্চ ব্যবহার করে জায়গা ও ভ্রমণের স্থান, কেনাকাটার জিনিস, প্রিয় তারকা, চিত্রকর্মের মতো বিভিন্ন জিনিসের ছবি পাওয়া যায়। আর ‘স্টাইল আইডিয়াস’ ফিচারটি ব্যবহার করে ফ্যাশন পণ্য সম্পর্কে ধারণা পাবেন ব্যবহারকারী। ইমেজ সার্চের নতুন ফিচারে পছন্দমতো স্টাইল দেখার ও মেলানোর সুযোগ থাকবে। এখানে একই ধরনের বিভিন্ন পণ্য ব্যবহারকারীর সামনে তুলে ধরবে গুগল। অর্থাৎ পছন্দ অনুযায়ী পণ্য মিলিয়ে দেখার সুযোগ পাবেন গুগল ব্যবহারকারী
ওিয়ালটন ল্যাপটপের পারফরম্যান্সে ক্রেতারা সন্তুষ্ট
বাজারে আসার কয়েক মাসের মধ্যেই ব্যাপক সাড়া ফেলেছে ওয়ালটন ল্যাপটপ। উচ্চ গুণগত মান, সর্বাধুনিক ফিচার, আকর্ষণীয় ডিজাইন ও সাশ্রয়ী দাম ইত্যাদি কারণে প্রযুক্তিপ্রেমীদের কাছে বাড়ছে ওয়ালটন ল্যাপটপের কদর। অন্যান্য ব্র্যান্ডের একই কনফিগারেশনের ল্যাপটপের চেয়ে দামে সাশ্রয়ী হওয়ায় এবং কিসিত্মতে কেনার সুযোগ থাকায় ওয়ালটন ল্যাপটপ বেছে নিচ্ছেন ক্রেতারা। ওয়ালটন সূত্রে জানা যায়, বর্তমান সময়ে প্রযুক্তিপণ্যের গুরম্নত্ব বিবেচনায় মানের প্রশ্নে কোনো আপস করেনি দেশীয় ব্র্যান্ডটি। ওয়ালটনের ল্যাপটপে ব্যবহার হয়েছে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি। সর্বোচ্চ মান নিশ্চিত করতে ওয়ালটন, ইন্টেল, মাইক্রোসফট ও বাংলাদেশের বিজয় বাংলার যৌথ উদ্যোগে তৈরি হচ্ছে ল্যাপটপ। ফলে অত্যাধুনিক সুবিধার মানসম্মত ল্যাপটপ পাচ্ছেন ক্রেতারা।
কমপিউটার বাজার ঘুরে জানা গেছে, স্মার্ট ডিজাইন, আকর্ষণীয় কালার ও অত্যাধুনিক ফিচার সংবলিত প্যাশন, টেমারিন্ড, কেরোন্ডা ও ওয়াক্সজ্যাম্বু এই চারটি সিরিজের মোট ২২টি মডেলের ওয়ালটন ল্যাপটপ পাওয়া যাচ্ছে। শিÿার্থীদের জন্য আছে ২২ হাজার ৯৯০ ও ২৩ হাজার ৯৯০ টাকা দামের দুটি বিশেষ ল্যাপটপ।
ওয়ালটন ল্যাপটপে কিবোর্ডে বাংলা ফন্ট ও বিল্টইন বিজয় বাংলা সফটওয়্যার দেয়া হয়েছে। ব্যবসায়ী, চাকরিজীবী, গেমার, ওয়েব ডিজাইনার ও শিÿার্থীদের ব্যবহারের দিক বিবেচনা করেই ভিন্ন ভিন্ন মডেল ও দামের ল্যাপটপ বাজারে ছেড়েছে ওয়ালটন। ফলে খুব দ্রম্নত ল্যাপটপ ক্রেতাদের আস্থা অর্জন করেছে ওয়ালটন।
ক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, আকর্ষণীয় ডিজাইন, সাশ্রয়ী দাম ও উন্নত মান হওয়ায় প্রযুক্তিপ্রেমীরা বেছে নিচ্ছেন ওয়ালটন ল্যাপটপ। ভিন্ন ভিন্ন ব্যবহারকারীর চাহিদা ও প্রয়োজন অনুযায়ী অসংখ্য মডেল থাকায় একজন ক্রেতা খুব সহজেই নিজের জন্য সঠিক ল্যাপটপটি কিনতে পারছেন। ১২ মাসের কিসিত্ম সুবিধায় ল্যাপটপ কেনা যাচ্ছে বলে ক্রেতাদের পছন্দের শীর্ষে ওয়ালটন ব্র্যান্ড।
গত মাসে রাজধানীর আগারগাঁওয়ের আইডিবি ভবনের ওয়ালটন পস্নাজা থেকে প্যাশন সিরিজের ডবিস্নউপি১৪৬ইউ৩এস মডেলের একটি ল্যাপটপ কিনেছেন বাংলাদেশ পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর আবদুল বারিক। তিনি জানান, তার কাজের জন্য প্রয়োজনীয় কনফিগারেশন ও বাজেটের মধ্যে হওয়ায় দেশীয় ব্র্যান্ডের এই ল্যাপটপটি বেছে নিয়েছেন। ল্যাপটপটির মান, কাজের গতি, ব্যাটারি ব্যাকআপ সবকিছু নিয়ে সন্তুষ্ট তিনি। ওয়ালটন ল্যাপটপ কিনে একইভাবে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় কর্মরত হাফিজুল ইসলাম। এ বছরের জানুয়ারি মাসে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকার কাজলা ওয়ালটন পস্নাজা থেকে টেমারিন্ড সিরিজের ডবিস্নউটি১৪৬ইউ৫জি মডেলের একটি ল্যাপটপ কেনেন ছোট বোনের জন্য। দেশীয় ব্র্যান্ড, মানসম্মত পণ্য, সাশ্রয়ী দাম ও কিসিত্ম সুবিধার কারণে তিনি ওয়ালটন ল্যাপটপ বেছে নিয়েছেন বলে জানান। ল্যাপটপটির পারফরম্যান্স ও ব্যাটারি ব্যাকআপসহ অন্যান্য অত্যাধুনিক ফিচারে সন্তুষ্ট তার বোন। তিনি বলেন, ওয়ালটন ব্র্যান্ডের পণ্য কেনার বড় সুবিধা সহজ শর্তে কিসিত্মকে কেনা যায়। একই ব্র্যান্ডের অন্যান্য পণ্যও ব্যবহার করছেন জানিয়ে তিনি ওয়ালটন পণ্যের মান নিয়ে সমেত্মাষ প্রকাশ করেন।
ইয়োন গ্রম্নপে কর্মরত ইঞ্জিনিয়ার মাসুম। সম্প্রতি আইডিবির ওয়ালটন পস্নাজা থেকে প্যাশন সিরিজের ডবিস্নউপি১৫৬ইউ৫জি মডেলের একটি ল্যাপটপ কেনেন। তিনি জানান, বাজারে আসার পরপরই গত বছর তার ছোট ভাই ওয়ালটন ব্র্যান্ডের একটি ল্যাপটপ কিনেছিলেন। পারফরম্যান্সে সন্তুষ্ট হয়ে তাকেও এই ব্র্যান্ডের ল্যাপটপ কেনার পরামর্শ দেন। মূলত ছোট ভাইয়ের পরামর্শে তিনিও ওয়ালটন ব্র্যান্ডের ল্যাপটপ কেনেন। মাসুম বলেন, ওয়ালটনের ল্যাপটপ কেনায় একই কনফিগারেশনের অন্য ব্র্যান্ডের চেয়ে অমত্মত ৭ হাজার টাকা কম লেগেছে, সেই সাথে একটি ভালো পণ্য পেয়েছি।
দেশীয় ব্র্যান্ড, আকর্ষণীয় ডিজাইন, দারম্নণ পারফরম্যান্স আর দামে সাশ্রয়ী এই বিষয়গুলোর কারণেই তিনি ওয়ালটন ল্যাপটপ কিনতে উৎসাহিত হন বলে জানান মাসুম। ওয়ালটনের প্রশংসা করে তিনি জানান, দেশীয় ব্র্যান্ডটির তৈরি এলইডি টেলিভিশনও তিনি ব্যবহার করছেন। মানসম্পন্ন প্রযুক্তিপণ্য উৎপাদনে ওয়ালটনের সুনাম বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।
একই পস্নাজা থেকে গত সপ্তাহে প্যাশন সিরিজের ডবিস্নউপি১৪বি৭১এস মডেলের ল্যাপটপ কিনেছেন একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা সোহাগ। তিনি জানান, এর আগে অন্য ব্র্যান্ডের ল্যাপটপ ব্যবহার করলেও সম্প্রতি তিনি ওয়ালটন ব্র্যান্ডের ল্যাপটপ কেনেন। এর ডিজাইন, পারফরম্যান্স ও ব্যাটারি ব্যাকআপ ইত্যাদি বিষয়গুলো তাকে আকৃষ্ট করেছে। ওয়ালটনের ল্যাপটপ ব্যবহার করে সমেত্মাষ প্রকাশ করেন তিনি।
উলেস্নখ্য, ক্রেতাদের হাতে উচ্চ গুণগত মানের ল্যাপটপসহ তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর বিভিন্ন ধরনের ডিভাইস তুলে দিতে সম্প্রতি রাজধানীর আগারগাঁওয়ের আইডিবি ভবনের বিসিএস কমপিউটার সিটিতে চালু হয়েছে ওয়ালটন পস্নাজা। এখানে উচ্চ গুণগত মানসম্পন্ন সাশ্রয়ী দামের ল্যাপটপ ও ট্যাব পাওয়া যাচ্ছে। খুব শিগগিরই ডেস্কটপ মনিটর, মাউস, কিবোর্ড, প্রিন্টারসহ অন্যান্য আইসিটি পণ্যও পাওয়া যাবে বলে জানায় ওয়ালটন কর্তৃপÿ। এ ছাড়া সারাদেশে ওয়ালটন পস্নাজা ও ব্র্যান্ডেড আউটলেটে পাওয়া যাচ্ছে ওয়ালটন ল্যাপটপ।
সব মডেলের ওয়ালটন ল্যাপটপেই রয়েছে দুই বছরের ওয়ারেন্টি সুবিধা। সর্বোচ্চ মানের বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে আএসও সনদপ্রাপ্ত সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের আওতায় দেশব্যাপী ছড়িয়ে আছে অসংখ্য ওয়ালটন সার্ভিস সেন্টার ও পয়েন্ট

আিসুসের নতুন আল্ট্রাবুক সিরিজ জেনবুক
আসুস দেশের বাজারে আল্ট্রাবুক সিরিজ জেনবুকের নতুন মডেল নিয়ে শুরম্ন করছে ‘জেনবুক ফর অল’ ক্যাম্পেইন। আল্ট্রাবুককে সহজলভ্য করার উদ্দেশ্যে আসুসের এই ক্যাম্পেইন। বিশেষ এই উদ্যোগের আওতায় জেনবুকের নতুন অনেকগুলো মডেল পাওয়া যাবে আকর্ষণীয় দামে। চলতি ক্যাম্পেইনে জেনবুক লাইনআপে নতুন যোগ হয়েছে ইউএক্স ৪১০ সিরিজ। নতুন এই আল্ট্রাবুকের বিশেষত্ব হলো এর ডিসপেস্নর দুই পাশে মাত্র ৬ মিলিমিটার ব্যাজেল। ফলে এর স্ক্রিন আর বডির অনুপাত ৮০ শতাংশ মাত্র। মাত্র ১.৪ কেজি ওজনের এই জেনবুকে আরও রয়েছে ১৪ ইঞ্চি ফুল এইচডি ডিসপেস্ন। ব্যাকলিট কিবোর্ড থাকায় কম আলোতে নোটবুকটিতে টাইপ করা যাবে সহজেই। ইউএক্স ৪১০ মডেলের জেনবুকটি ৮ ঘণ্টা পর্যমত্ম ব্যাটারি ব্যাকআপ দিতে সক্ষম। ফুল-মেটাল বডির আল্ট্রাবুকটি ইন্টেলের সপ্তম প্রজন্মের কোরআই৩, কোরআই৫ ও কোরআই৭ প্রসেসর দিয়ে পাওয়া যাবে।
ক্যাম্পেইন সম্পর্কে আসুস বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার মো: আল ফুয়াদ জানান, দেশের বাজারে আসুস বরাবরই সবশেষ প্রযুক্তিপণ্য নিয়ে আসছে সবার আগে। এরই ধারাবাহিকতা বজায় রেখে ক্রেতাদের চাহিদা অনুসারে আসুস জেনবুকের মোট ১২টি নতুন মডেল থেকে ক্রেতারা বেছে নিতে পারবেন পছন্দের আল্ট্রাবুকটি। আসুস জেনবুক ইউএক্স ৪১০-এর দাম শুরম্ন ৪৭,০০০ টাকা থেকে। দেশব্যাপী পাওয়া যাবে এই জেনবুকটি। বাংলাদেশে আসুসের একমাত্র পরিবেশক গেস্নাবাল ব্র্যান্ড

এিনাম আলীকে সংবর্ধনা দিয়েছে ফ্লোরা লিমিটেড
সম্প্রতি রাজধানীর একটি হোটেলে বিভিন্ন আয়োজনের মধ্য দিয়ে ব্রিটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট ও লন্ডনভিত্তিক কারি অস্কার পুরস্কারের প্রবর্তক এনাম আলীকে সংবর্ধনা দিয়েছে দেশী প্রযুক্তি বিক্রেতা কোম্পানি ফ্লোরা লিমিটেড। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এনাম আলী তার অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন। তিনি তার বক্তৃতায় বাসত্মব জীবনের অভিজ্ঞতাও শেয়ার করেন। এ সময় তিনি বলেন, বাংলাদেশের নাম উজ্জ্বল করার জন্যই আমি কাজ করে যাচ্ছি। আমি এ দেশের মানুষের জন্য কাজ করে যেতে চাই। বাংলাদেশকে বিশ্বের সবাই আগে দরিদ্র দেশ হিসেবে চিনত। আমরা যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছি, তাতে আর বেশিদিন সময় লাগবে না উন্নত দেশের কাতারে দাঁড়াতে। বাংলাদেশী প্রবাসীরা বিশ্বব্যাপী অবহেলিত। আমার ইচ্ছে আছে, আমি প্রবাসীদের জন্য কাজ করব। তাদের জন্য একটি সংগঠনের প্রয়োজন বোধ করছি। সরকারি পর্যায় থেকেও একটি মজবুত সংগঠনের প্রয়োজন রয়েছে বলে আমি মনে করি।
তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশকে উপস্থাপন করতে গিয়ে অনেকেই ইমোশনাল হয়ে দারিদ্র্যকেই সামনে হাজির করেন। তাদের প্রতি আমার অনুরোধ, তারা যেন দেশকে উপস্থাপন করতে গিয়ে আমাদের সফলতাগুলোকে আড়াল করে না ফেলেন। আমাদের দেশে অনেক সফল গল্প রয়েছে, শিক্ষার মানও অনেক ভালো। আমরা যদি আমাদের সফল গল্পগুলোকে বিশ্বের দরবারে সঠিকভাবে উপস্থাপন করতে পারি, তাহলে বিশ্বব্যাপী আমাদের সম্পর্কে ভ্রামত্ম ধারণার পরিবর্তন হবে। ব্রিটিশ বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের প্রেসিডেন্ট এনাম আলী বাংলাদেশের কালিয়াকৈরে হাইটেক পার্কে প্রবাসী বাংলাদেশীদের জন্য কয়েকটি আইটি ইন্ডাস্ট্রি করারও ঘোষণা দিয়েছেন। এরই মধ্যে তিনি বিভিন্ন সংগঠনের সাথে এ বিষয়ে বৈঠকও করেছেন কয়েকবার। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের শেষদিকে তিনি এর আয়োজক ফ্লোরা লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোসত্মফা শামসুল ইসলামকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আমার মতো অনেক এনাম আলী দেশের জন্য কাজ করছেন। তাদেরকে খুঁজে বের করে উপযুক্ত সম্মাননা দিলে তারা উৎসাহিত হবেন এবং দেশের জন্য তাদের কাজের গতি বেড়ে যাবে

কিমপিউটার সোর্সে বিনামূল্যের সেবায় ব্যাপক সাড়া
যেকোনো ব্র্যান্ডের কমপিউটার পণ্যে বিনামূল্যে মাসব্যাপী সেবা দিচ্ছে কমপিউটার সোর্স। বিভিন্ন ব্র্যান্ডের স্পিকার পণ্যে সেবা নিতে গত ২৯ ও ৩০ এপ্রিল রাজধানীর বিভিন্ন প্রামত্ম থেকে কমপিউটার সোর্স কাস্টমার কেয়ার (বাড়ি-১১/বি, সড়ক-১২, ধানম--) সেন্টারে ভিড় জমান সেবাগ্রহীতারা। মেয়াদোত্তীর্ণ স্পিকার বিনামূল্যেই সারিয়ে নেয়ার এই সুযোগকে অভূতপূর্ব উলেস্নখ করেন রাজধানীর নিকুঞ্জ থেকে সেবা নিতে আসা সালেহ আহমেদ রাফাত। তিনি বললেন, পত্রিকা থেকে জেনে আমি ময়মনসিংহ থেকে কেনা নান সিন ব্র্যান্ডের অচল হয়ে যাওয়া স্পিকারটি নিয়ে আসি। সত্যি এ ধরনের উদ্যোগকে প্রশংসা না করে উপায় নেই। এই উদ্যোগকে অন্যদেরকেও অনুসরণের পরামর্শ দেন তিনি।
বিনামূল্যে সেবা নিতে এসে একটি ‘ম্যাজিক রিং’ উপহার পেয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত তানভীর আহমেদ। তিনি বলেন, সাড়ে তিন বছর আগে কমভ্যালি থেকে এফএনডি ব্র্যান্ডের স্পিকারটি কেনা হয়। মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ায় এটি বেশ কিছুদিন পড়ে ছিল। কমপিউটার সোর্সের ফেসবুক পেজ থেকে অফারটি দেখে তাই দেরি না করে ছুটির দিন শনিবার এটি ওখানে নিয়ে যাই। সমস্যা জটিল হওয়ায় সারতে কয়েক দিন সময় চাওয়া হয়েছে। মাসব্যাপী বিনামূল্যে বাধাহীন এই সেবা কার্যক্রম বিষয়ে কমপিউটার সোর্স কাস্টমার কেয়ার বিভাগের সেবা ব্যবস্থাপক মোহাম্মাদ জামিল বলেন, সেবা দিতে আমরা আমাদের সার্ভিস সেন্টারে ওয়ান স্টপ সার্ভিস বুথের ব্যবস্থা করেছি। সেবা গ্রহীতাদের চাপ ও সমস্যার জটিলতা ধরনের কারণে সব গ্রাহককে অন দ্য স্পট সেবা দেয়া সম্ভব হয়নি। প্রসঙ্গত, ২৯ এপ্রিল থেকে ২১ মে পর্যমত্ম প্রতি শনি ও রোববার বাধাহীন এই প্রযুক্তি সেবা মাস অব্যাহত রাখছে কমপিউটার সোর্স

জিাতীয় পুরস্কার পেল এসএসএল ওয়্যারলেসের তৈরি অ্যাপস ‘ডেসকো’
জাতীয় মোবাইল অ্যাপিস্নকেশন পুরস্কার ২০১৬-তে বিজনেস অ্যান্ড কমার্স ক্যাটাগরিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ডেসকো অ্যাপ। এই অ্যাপটির পেছনে কাজ করেছে এসএসএল ওয়্যারলেস। এসএসএল ওয়্যারলেসের সিওও আশীষ চক্রবর্তী জানান, প্রতিটি প্রাপ্তিই আনন্দের। জাতীয় পুরস্কার পেয়ে আমাদের কাজের গতি আরও বেড়ে গেছে। তিনি ডেসকোকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘ডেসকোকে অনেক ধন্যবাদ। তারা যদি এগিয়ে না আসত তাহলে আমরা আমাদের কাজের সফলতা প্রমাণের এই সুন্দর জায়গাটি পেতাম না। তাদের মতো আরও অনেক প্রতিষ্ঠান রয়েছে যারা চাইলে এগিয়ে আসতে পারে। আমরা বরাবরই মানুষের সেবাকে সহজ করার লক্ষ্যে কাজ করে আসছি। আমরা মানুষের চাহিদা বুঝি। সরকারকেও অনেক ধন্যবাদ। সরকার আমাদের কাজের পাশে রয়েছে, যথেষ্ট সাহায্যও করছে। তিনি আরও জানান, নাগরিকের বিভিন্ন সেবা এখন ডিজিটাল হয়ে আসছে। ঘরে বসে এখন অনেক কাজ করা যায়, যা আগে করা যেত না। এই সেবাগুলোকে মানুষের কাছাকাছি পৌঁছে দিতে সরকারের পর্যায় থেকে একটু প্রচার-প্রচারণা দরকার। সফটওয়্যার ডেভেলপ, ডিজিটালাইজেশনের বিভিন্ন কাজে বিদেশিদেরকে প্রধান্য না দিয়ে দেশি কোম্পানিগুলোকে প্রধান্য দিলে এই খাতটি একটি শক্ত অবস্থানে দাঁড়াতে পারে। দেশে অনেক কাজ হবে আগামীতে। এসএসএল ওয়্যারলেস ডিজিটালাইজেশনের কাজে আশাবাদী বলেও জানান আশীষ চক্রবর্তী

ইিউওয়াইএস ল্যাবে বিনামূল্যে আইটি প্রশিক্ষণ
বাংলাদেশে পেশাদারি আইটি কেন্দ্রের কোর্স মডিউল ও বিশ্বমানের মার্কেটপেস্নসে কাজের উপযোগী প্রশিক্ষণের কারণে এরই মধ্যে ইউওয়াইএস ল্যাব জনপ্রিয়তা ও গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে। এই সাফল্যের পেছনে ইউওয়াইএস ল্যাবের আইটি শিল্পে সফল ও অভিজ্ঞ আইটি প্রফেশনাল পরিচালনা পর্ষদের দক্ষতা ও অভিজ্ঞতার আলোকে পরিচালনা বিশেষ অবদান রেখেছে। ৪ মে ঢাকার মহাখালীতে অবস্থিত ইউওয়াই ল্যাবে নিজস্ব কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। ভিন্ন ধরনের এই আইটি প্রশিক্ষণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও কার্যক্রম প্রসঙ্গে গণমাধ্যমের সাথে মতবিনিময়ের উদ্দেশ্যে এই সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন প্রতিষ্ঠানের চেয়ারপারসন ফারহানা এ রহমান। প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম সংক্রামত্ম মূল বক্তব্য পেশ করেন চেয়ারপারসন ফারহানা এ রহমান এবং সিওও মো: শাহাদাত হোসাইন। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানের সিইও আলিয়া হামিদ।
ইউওয়াইএস ল্যাব ইন্ডাস্ট্রি স্ট্যান্ডার্ড আইটি প্রশিক্ষণের ওপর বরাবর জোর দিয়ে এসেছে এবং আইটি কোর্সের ওপর গৎবাঁধা প্রশিক্ষণের পরিবর্তে ইন্ডাস্ট্রির প্রয়োজনে অ্যাডভান্সড আইটি প্রশিক্ষণে জোর দিয়েছে। বিশ্বমানের প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের আদলে তৈরি ইউওয়াইএস ল্যাবে আছে ৪৫০০ স্কয়ার ফুটের সুপরিসর জায়গা, তিনটি কমপিউটার ল্যাবে একসাথে ১০০ জন বসার সুব্যবস্থা, ৯০টি কমপিউটার, ইন্টেরিওর করা সুপরিসর কমপিউটার ল্যাব, সুবিশাল প্রজেক্টর সেট, গস্নাস বোর্ড ও সার্বক্ষণিক ওয়াইফাই সুবিধা। রয়েছে ইন্ডাস্ট্রি এক্সপার্টদের তত্ত্বাবধানে আমত্মর্জাতিক মার্কেটপেস্নসে ফ্রিল্যান্সিং কাজের অভিজ্ঞতা ও সুযোগ। এ ছাড়া কারিগরি ও সর্বসত্মরের শিক্ষার্থীদের জন্য ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যাটাচমেন্ট প্রশিক্ষণের সুযোগ দেয়া হয়। পরীক্ষার মাধ্যমে যাচাই করে মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য শতভাগ স্কলারশিপ দেয়া হচ্ছে। বর্তমান কোর্সগুলো হচ্ছে অ্যাডভান্সড গ্রাফিক্স ডিজাইন, প্রফেশনাল ওয়েব ডিজাইন, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ও ডিজিটাল মার্কেটিং। যোগাযোগ : ০১৭ ৮৩৮৩৮৩৮২
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
২০১৭ - মে সংখ্যার হাইলাইটস
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস