• ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > মোবাইল কংগ্রেসের চমক ও বাংলাদেশ
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: ইমদাদুল হক
মোট লেখা:৩২
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০১৯ - মার্চ
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
মোবাইল
তথ্যসূত্র:
রির্পোট
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
মোবাইল কংগ্রেসের চমক ও বাংলাদেশ
মোবাইল কংগ্রেসের চমক ও বাংলাদেশ
ইমদাদুল হক

মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে বাংলাদেশ
বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে এবার কংগ্রেসে অংশ নেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের নেতৃত্বে ৯ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল। প্রতিনিধিদলে ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো: মহিবুর রহমান, বিটিআরসি চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হক, টেলিটক ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: শাহাব উদ্দিন, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের উপসচিব উর্মী তামান্না, মন্ত্রীর একান্ত সচিব মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান, টেলিযোগাযোগ অধিদফতরের পরিচালক মো: তাসকিনুর রহমান, বিটিআরসির উপ-পরিচালক খালেদ ফয়সাল, মো: সোহেল রানা, বিআইএমইই’র সহ-প্রতিষ্ঠাতা বিজয় জব্বার এবং অ্যামটবের সাবেক মহাসচিব টিআইএম নূরুল কবীর।

মন্ত্রিসভায়...
বাংলাদেশ নিয়মিত এমডব্লিউসিতে অংশগ্রহণ করলেও প্রথমবারের মতো এবারের মিনিস্ট্রিয়াল কনফারেন্সে কীনোট উপস্থাপন করেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন ‘মোবাইল ইনফ্রাস্ট্রাকচার : ইজ ইউর পলিসি ফিট ফর পারপাস?’ শিরোনামে কীনোট উপস্থাপন করেন তিনি। ডিজিটাল টেকনোলজিকে ব্যবহার করে বাংলাদেশে যে উন্নয়নের ধারাগুলো বাস্তবায়ন হচ্ছে, সেগুলো তিনি তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন। এ সময় তিনি জানান, ২০২১ থেকে ২০২৩-এর মধ্যে দেশে ফাইভজি চালু করতে সব রকম প্রস্তুতি নিয়েছে সরকার। এজন্য তিনি প্রযুক্তিগত সক্ষমতা তৈরি, কৌশলগত পরিকল্পনা, পারস্পরিক সহযোগিতা ও সমন্বয় প্রয়োজনের ওপর জোর দেন। তিনি ফাইভজির জন্য ইকোসিস্টেম তৈরিতে মোবাইল যোগাযোগ ও প্রকৌশল খাত সংশ্লিষ্ট সবাইকে দেশে স্বাগত জানান।

এছাড়া জিএসএমএ’র সাথে বৈঠকে বাংলাদেশের লাইসেন্সিং ফ্রেমওয়ার্ক, রেগুলেটরি ও বাংলাদেশের টেলিকমিউনিকেশন পলিসি নিয়ে আলোচনা করেন মন্ত্রী। পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের সাথে বৈঠক করেন। সেখানে ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে তিনি বাংলাদেশের ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন সম্পর্কে কথা বলেন এবং তা ধরিয়ে দেন। ফেসবুকের সাথে আলোচনায় তিনি বাংলাদেশে অফিস খোলার জন্য বলেন। আর ভ্যাট-ট্যাক্সের বিষয় নিয়েও অবগত করেন। যাতে ফেসবুক বাংলাদেশে অফিস খোলার বিষয়টি গুরুত্বসহকারে ভেবে দেখবে বলে জানায়। আরেকটি সভায় প্রতিনিধিদলটি আইক্যানের সাথে আলোচনায় বসেন। সেখানে ইউনিকোডে বাংলা ভাষার রীতি যে মানা হয়নি তাতে আইক্যানের পূর্ণ সমর্থন আদায় করতে সক্ষম হয় বাংলাদেশ। মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে অংশ নিয়েছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকও। তিনি কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের সাথে বৈঠক করে দেশে বিনিয়োগের ব্যাপারে বলেন। প্রতিষ্ঠানগুলো দেশে বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেছে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।

ফেসবুকের সাথে বৈঠক

বার্সেলোনায় মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে ফেসবুক প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠকে পর্নোগ্রাফি, পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস, প্রোপাগান্ডাসহ নানাবিধ নিরাপত্তা বিষয়ে ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে বাংলাদেশের রেগুলেশন মেনে নিরাপদে এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারের ব্যবস্থা করার আহ্ববান জানান ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। মন্ত্রী তাদের আবহমান বাংলার চিরায়ত সংস্কৃতি, মূল্যবোধ এবং নিয়মনীতি স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন বাংলাদেশে আইন আছে, সেই আইন মোতাবেক ফেসবুককে কনটেন্ট এবং অন্যান্য বিষয়গুলো বাস্তবায়ন করতে হবে। আমাদের দেশ, আমাদের সমাজ-আমাদের নাগরিকদের ফেসবুকের নিরাপদ ব্যবহারের সুযোগ দিতে হবে।

বৈঠকে ফেসবুক গ্লোবাল পলিসি সলিউশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট রিচার্জ অ্যালান এবং সাউথ এশিয়ার হেড অব পলিসি অশ্বিনী রানা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ মন্ত্রীর কাছে কনটেন্ট প্রকাশে তাদের গ্লোবাল স্ট্যান্ডার্ডের বিষয়টি তুলে ধরে। সেই সাথে তারা বাংলাদেশের আইনি কাঠামো ও সংস্কৃতি মেনে চলারও প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করে।
ইউনিকোডে বাংলা রীতিতে আইক্যানের পূর্ণ সমর্থন
ইউনিকোডে বাংলা ভাষার জাতীয় স্ট্যান্ডার্ড মানা নিয়ে আইক্যানের পূর্ণ সমর্থন পেয়েছে বাংলাদেশ। আন্তর্জাতিক ডোমেইন ব্যবস্থাপনা নিয়ন্ত্রক সংস্থার শীর্ষ কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠকে এই সমর্থন আদায় করেন টেলিকমমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।
ওই বৈঠকে আইক্যানের প্রেসিডেন্ট ও সিইও গোরান মারবাই এবং চিফ টেকনিক্যাল অফিসার ডেভিড কনার্ডসহ শীর্ষপর্যায়ের প্রতিনিধিরা এবং বাংলাদেশের দলে বিটিআরসি চেয়ারম্যান মো: জহুরুল হক, টেলিকম বিশেষজ্ঞ টিআইএম নূরুল কবীর উপস্থিত ছিলেন।
এ বিষয়ে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘আইক্যান আমাদের মতের সাথে একমত হয়েছে। আইক্যানের প্রেসিডেন্ট বলেছেন, সবারই উচিত জাতীয় মান অনুসরণ করা। তারা আমাদের পূর্ণ সমর্থন দিয়েছেন।’ আইক্যানের সিইও বলেছেন, ‘ইউনিকোড কনসোর্টিয়ামকে তারা চিঠি দিয়ে বাংলাদেশের সমর্থনের কথা জানাবেন।’ আর আইক্যানের সমর্থনের মানে হলো ইন্টারনেট ডোমেইনে যে সঙ্কটটি ছিল, তা দূর করে ফেলতে পারব।

নূরুল কবীর জানিয়েছেন, উদ্ভূত সমস্যা নিয়ে গত এক বছর ধরে আইক্যানের সাথে বৈঠক-ডিসকাশন হয়ে আসছে। কিন্তু এটা সমাধানের দিকে এগোচ্ছিল না। তিনি জানান, ‘বার্সেলোনার বৈঠকে আইক্যানের প্রেসিডেন্ট ও সিইও এবং সিটিও একবাক্যে জানিয়েছেন তারা বাংলাদেশের স্ট্যান্ডকে সমর্থন দেবেন। প্রয়োজনে ইউনিকোডের কাছে ব্যক্তিগতভাবে বাংলাদেশের দাবির বিষয় জোর সমর্থন জানাবেন।’ ইউনিকোডে বাংলার কী দাবি আর কী সমস্যা তার বিস্তারিত ব্যাখ্যা করেন মোস্তাফা জব্বার। মন্ত্রী জানান, আমাদের দুই-তিনটা ইস্যু ছিল, যে জায়গাগুলোতে ইউনিকোডের সাথে আমাদের সমস্যা। ‘ইউনিকোড কনসোর্টিয়াম শুরু হয় ১৯৮৭ সালে। আমরা এই কনসোর্টিয়ামে ঢুকেছি ২০১০ সালে। ফলে এই ২৩ বছরে বাংলাদেশের কোনো প্রতিনিধিত্ব ছিল না। ফলে বাংলাদেশের যে ইস্যুগুলো ছিল তা সিরিয়াসলি আনঅ্যাড্রেস ছিল।’

টেক মাহিন্দ্রার বিনিয়োগ সম্ভাবনা

যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে এবার স্পেনের বার্সেলোনায় মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। এমডব্লিউসি আয়োজনের প্রথম দিনেই পলক টেক মাহিন্দ্রার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী সিপি গুরনানির সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে টেক মাহিন্দ্রাকে বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্ববান জানান মন্ত্রী। এছাড়া কংগ্রেসে অংশ নেয়া আইসিটি ও টেলিকম খাতের বিশ্বব্যাপী চীনভিত্তিক বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান জেডটিইর চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার জু জিয়া ইয়াং এবং সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট জং হুয়াসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করেন তিনি।

রিভের ১১তম অংশগ্রহণ

স্পেনের বার্সেলোনায় মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে একাদশ বারের মতো অংশ নেয় বাংলাদেশি বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান রিভ সিস্টেমস। রিভ সিস্টেমসের প্রধান কার্যালয় সিঙ্গাপুরে এবং গবেষণা ও উন্নয়ন কেন্দ্র বাংলাদেশ ও ভারতে। বর্তমানে বিশ্বের ৭৮টির বেশি দেশে রিভ সিস্টেমস উদ্ভাবিত বিভিন্ন আইপি পণ্য ও সেবা এক যুগেরও বেশি সময় ধরে ব্যবহার হচ্ছে।
স্মার্টফোন কিনতে রবির ঋণচুক্তি
স্মার্টফোন কিনতে গ্রাহকদের জন্য ঋণ সুবিধা চালু করতে কমভিভার ফিনটেক কোম্পানি ইয়াবেএক্সের সাথে একটি চুক্তি করেছে রবি। বার্সেলোনায় অনুষ্ঠিত মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে রবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মাহতাব উদ্দিন আহমেদ এবং ইয়াবেএক্সেও প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী রজত দয়াল নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সমঝোতা চুক্তি সই করেন।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে রবির চিফ ডিজিটাল সার্ভিসেস অফিসার শিহাব আহমেদ, চিফ টেকনোলজি অ্যান্ড ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন অফিসার মেধাত আল হুসেইনি, ডিজিটাল সার্ভিসের এক্সকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট আহমেদ আরমান সিদ্দিকী, টেকনোলজি অপারেশনসের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট সরকার সোহেল আহমেদ, কমভিভার গ্লোবাল মার্কেট ইউনিটের ভাইস প্রেসিডেন্ট রেমাস তেওদোরেসকু ও চিফ মার্কেটিং অফিসার সুরদীপ ভার্মা উপস্থিত ছিলেন।
মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসের রাজধানী হিসেবে বার্সেলোনা এখন বিশ্বময় পরিচিত। শহরটিতে ২০০৬ সাল থেকে নিয়মিত মোবাইল কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। ২০১৮ সাল পর্যন্ত বার্সেলোনায় এ মোবাইল কংগ্রেস হওয়ার কথা থাকলেও ২০১৫ সালে ফিরা বার্সেলোনার সাথে এক চুক্তিপত্রের মাধ্যমে ২০২৩ সাল পর্যন্ত তা বর্ধিত করেছে। চার দিনের এ মোবাইল কংগ্রেস ঘিরে প্রতিবছরই পর্যটকদের পদচারণায় বার্সেলোনা শহরের ব্যস্ততা বেড়ে যায়। অন্য সবার মতো প্রবাসী বাংলাদেশিদের ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানেও ইতিবাচক অর্থনৈতিক প্রভাব পড়ে

ফুটবল আর পর্যটনের শহর স্পেনের বার্সেলোনা। অনিন্দ্যসুন্দর এই নগরীর ফিরা গ্রেন ভিয়া ও ফিরা মঞ্জুইকে চার দিন ধরে অনুষ্ঠিত হয় বিশ্বের সবচেয়ে বড় মোবাইল প্রদর্শনী ‘মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস’-এর ১৪তম আসর। ‘ইন্টিলিজেন্ট কানেক্টিভিটি’ স্লোগানে গত ২৫-২৮ ফেব্রুয়ারি মোবাইল শিল্পের উদীয়মান প্রযুক্তি ও চ্যালেঞ্জের এই আসরে যোগ দেয় বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ২৪০০-এরও বেশি প্রতিষ্ঠান। বিশ্বে ১৯৮টি দেশের ১ লাখ ৯ হাজরের ওপর দর্শনার্থী সমবেত হয়েছিলেন এই সম্মেলনে। কংগ্রেসকে সামনে রেখে নিজেদের উদ্ভাবনী সক্ষমতা ও বাজার চমক দেখায় মোবাইল নির্মাতারা। প্রদর্শনী, মোড়ক উন্মচনের পাশাপাশি কংগ্রেসে প্রতিদিনই অনুষ্ঠিত হয়েছে বিভিন্ন বিষয়ে সভা-সেমিনার। এর মধ্যে সবচেয়ে বড় চমক ছিল ভাঁজযোগ্য ফোন এবং ফাইভজি প্রযুক্তি। উচ্চগতির ফাইভজি নেটওয়ার্কসহ নতুন নতুন প্রযুক্তি কীভাবে নাগরিক জীবন ও ব্যবসায়কে ইতিবাচক পরিবর্তন করবে, সেই আলোচনাই ছিল কেন্দ্রবিন্দুতে।

ভাঁজযোগ্য ফোন

রয়েল ফ্লেক্সি পাইয়ের পর থেকেই ভাঁজযোগ্য ফোনের একটা উš§াদনা চলে আছে। সেই উš§াদনায় এবারের মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে নতুন মাত্রা যোগ করেছে স্যামসাং ও হুয়াওয়ে। স্মার্টফোনের মোড়কে ফিরে আসা এই ভাঁজযোগ্য বা ফোল্ডিং ফোন কিন্তু ফিচারফোনেও ছিল। তখন কিবোর্ডকে ভাঁজ করা যেত। আর এবার পুরো পর্দাকেই ভাঁজ করা যাচ্ছে।

মেট এক্স

এমডব্লিউসি ২০১৯ প্রদর্শনীনে ফাইভজি সমর্থিত ভাঁজযোগ্য স্মার্টফোন মেট এক্স দেখিয়েছে হুয়াওয়ে। ডিভাইসটির স্টিক্রন, ক্যামেরা, প্রসেসর থেকে ব্যাটারি সবকিছুতেই রয়েছে নতুনত্ব। হুয়াওয়ের ফোল্ডিং ফোনের বিশেষত্ব হচ্ছে ডিভাইসটি একই সাথে স্মার্টফোন ও ট্যাবলেট হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। এতে রয়েছে নমনীয় ওএলইডি প্যানেল এবং একটি ফ্যালকন উইং মেকানিক্যাল হিং রয়েছে। নতুন প্রযুক্তিগত সুবিধায় ফোনটির ভাঁজ খুললে আস্ত একটি ডিসপ্লে উন্মাচিত হবে।

গ্যালাক্সি ফোল্ড

হুয়াওয়ের আগেই মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে ভাঁজযোগ্য ‘গ্যালাক্সি ফোল্ড’ উন্মোচন করে স্যামসাং। হ্যান্ডসেটটিতে রয়েছে দুটি ডিসপ্লে। বাইরে থাকছে ৪.৬ ইঞ্চি অ্যামোলেড ডিসপ্লে এবং ভেতরের দিকে রয়েছে ৭.৩ ইঞ্চি সঙ্কোচনযোগ্য অ্যামোলেড ডিসপ্লে। একে বলা হচ্ছে, ইনফিনিটি ফ্লেক্স ডিসপ্লে। মূলত ভেতরের ডিসপ্লেটি মেলে ধরলে বর্ধিত আকার ধারণ করবে। হ্যান্ডসেটটির আরো একটি বৈশিষ্ট্য হচ্ছে- এতে যুক্ত হয়েছে ছয়টি ক্যামেরা।
ভি৫০ থিনকিউ
অপ্পোর মতো এলজিও মোবাইল কংগ্রেসে ভি৫০ থিনকিউ ভাঁজযোগ্য স্মার্টফোন প্রদর্শন করেছে এলজি। অবশ্য এই ফোনটির রয়েছে দুইটি আলাদা স্ক্রিন। ডুপ্লেক্স এই ফোনটির দুইভাবে বিভক্ত স্ক্রিনের একটি কি-প্যাড এবং অন্যটি মনিটর হিসেব ব্যবহার করা যায়। স্ক্রিনটি গেমিং কন্ট্রোলারের মতো ব্যবহার করা যায়।

মিক্স ফ্লেক্স

নিজেদের আসন্ন ভাঁজযোগ্য স্মার্টফোন হিসেবে মিক্স ফ্লেক্সকে এবারের প্রদর্শনীতে উপস্থাপন করেছে শাওমি। প্রোটোটইপ এই স্মার্টফোনটির সাথে দর্শনর্থীদের পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন শাওমি কো ফাউন্ডার লিন বিন। এই স্মার্টফোনটিতে ফোন এবং ট্যাবলেট উভয় ডিভাইসেরই স্বাদ পাওয়া যাবে বলে জনিয়েছেন তিনি। দুই পয়েন্ট থেকে ফোনটি উভয় দিকেই ভাঁজ করা যায়।

রয়েল ফ্লেক্সপাই

২০১৭ সালের নভেম্বর মাসে স্যামসাং যখন তাদের ভাঁজযোগ্য ডিসপ্লে সমন্বিত স্মার্টফোন দেখায় তার কিছুদিন পরেই রয়েল নামের একটি ক্যালিফোর্নিয়াভিত্তিক একটি স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠান তাদের ভাঁজযোগ্য ডিসপ্লে সমন্বিত স্মার্টফোন উন্মোচন করে। এবারের মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসেও রয়েল অংশগ্রহণ করে এবং তাদের ফ্লেক্সপাই স্মার্টফোনটি প্রদর্শন করে।

ফাইভজি

ভাঁজযোগ্য ফোনের মতো এবারের মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে ফাইভজি ফোনের দৌরাত্ম্য ছিল চোখে পড়ার মতো। ডাকসাইটের মোবাইল অপারেটর এবং নির্মাতারা ভালোই মনোযোগ দিয়েছে এই প্রযুক্তিতে।
স্যামসাং গ্যালাক্সি এস টেন
এবারের মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে পাঁচ মডেলের স্মার্টফোন প্রদর্শন করে স্যামসাং। এস টেন প্লাস, এস টেন এবং এস টেন ই-এর পাশাপাশি অবমুক্ত করে পঞ্চম প্রজেক্টের মোবাইল নেটওয়ার্ক ফাইভজি নেটওয়ার্কের জন্য বিশেষভাবে তৈরি এস টেন ফাইভজি। আকার এবং ওজনে গ্যালাক্সি এস টেন ফাইভজি গ্যালাক্সি এস টেন প্লাসের থেকে একটি বেশি। গ্যালাক্সি এস টেন ফাইভজির পেছনে চারটি ক্যামেরা এবং একটি ফ্লাইট সেন্সর আছে। সামনে ডুয়েল ক্যামেরা।

মি মিক্স থ্রি ফাইভজি

চীনের স্মার্টফোন ব্র্যান্ড শাওমি তাদের মি মিক্স থ্রি মডেলের একটি ফাইভজি সংস্করণ প্রদর্শন করেছে এবারের মোবাইল কংগ্রেসে। এটি তাদের প্রথম ফাইভজি স্মার্টফোন। পেছনে আছে দুটি ১২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা এবং ২৪ মেগাপিক্সেল ও ২ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা।

লেনোভো

এমডব্লিউসিতে ফাইভজি সমর্থিত ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন জেড৬ প্রো উন্মোচন করেছে লেনোভো। ডিভাইসটির বিশেষ ফিচার হলো ‘হাইপারভিশন’ ক্যামেরা। লেনোভোর দাবি, এর ক্যামেরায় নতুন আঙ্গিকের ‘হাইপার ভিডিও’ ধারণ করা সম্ভব হবে। চীনে আগামী জুন থেকে জেড৬ প্রোর সরবরাহ শুরু হবে।

অ্যাক্সন টেন প্রো

কংগ্রেসে প্রদর্শিত জেডটিই অ্যাক্সন টেন প্রো ফাইভজি স্মার্টফোনে আছে ডুয়েল ন্যানো সিম, ৬.৪৭ ইঞ্চির ১০৮০ বাই ২৩৪০ পিক্সেল রেজ্যুলেশন এবং ১৯.৫:৯ অ্যাসপেক্ট রেশিওর এএম ও এলইডি ক্যাপাসিটিভ টাচস্ক্রিন।
স্প্রিন্টের পঞ্চম প্রজেক্টের নেটওয়ার্ক

এবারের মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে তাদের ফাইভজি নেটওয়ার্ক চালুর ঘোষণা দেয় যুক্তরাষ্ট্রের চতুর্থ বৃহত্তম মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটর স্প্রিন্ট। চলতি বছরের মে মাসে ফাইভজি নেটওয়ার্ক চালু করবে অপারেটরটি। এপ্রিল মাস থেকে প্রতিষ্ঠানটি এইচটিসির ফাইভজি হাব বিক্রি শুরু করবে এবং এলজিভি ফিফটি ফাইভজি এবং সামস্যাং এস টেন ফাইভজি বিক্রি করবে।

ইন্টেল নেটওয়ার্ক ইন এ বক্স স্মার্ট সিটি

বর্তমানে বিশ্বের অনেক দেশ স্মার্ট সিটি নির্মাণ পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। বিশ্ববিখ্যাত চিপ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ইন্টেল ‘নেটওয়ার্ক ইন এ বক্স’ উন্মোচন করে। এতে ইন্টেলের মোভিডাস আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স অ্যাকসেলারেটর, মাল্টি-অ্যাকসেস এজ কমপিউটিং এবং ফাইভজি মোবাইল নেটওয়ার্ক সাপোর্ট এক সাথে ইন্টিগ্রেট করা আছে।

অস্ট্রেলিয়ায় ফাইভজিভিত্তিক ব্যাংকিং

কংগ্রেসে দ্য কমনওয়েলথ ব্যাংক অব অস্ট্রেলিয়া এবং সুইডেনভিত্তিক বহুজাতিক টেলিকম প্রতিষ্ঠান এরিকসনের সাথে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে অস্ট্রেলিয়ায় ফাইভজিভিত্তিক ব্যাংকিং চালু করার ঘোষণা দিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার বৃহত্তম মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটর টেলস্ট্রা করপোরেশন। এই তিনটি প্রতিষ্ঠান মিলে ফাইভজি নেটওয়ার্কে বিভিন্ন এন্ড-টু-এন্ড ব্যাংকিং সলিউশন পরীক্ষামূলকভাবে চালাবে।

প্রদর্শিত ডিভাইসের হাইলাইটস

ভাঁজযোগ্য ও ফাইভজি মোবাইল প্রযুক্তির বাইরেও বেশ কিছু চমক ছিল এবারের মোবাইল ওয়ার্ল্ডে। সেই চমকগুলোই উপস্থাপন করা হলো।
মাইক্রো এসডি কার্ড
এমডব্লিউসির চলতি আসরে ১ টেরাবাইট স্টোরেজ সুবিধার মাইক্রোএসডি কার্ড উন্মোচন করেছে ওয়েস্টার্ন ডিজিটাল ও মাইক্রোন টেকনোলজি। বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন ধরনের ডিভাইস ব্যবহার বাড়ছে। এসব ডিভাইসে তথ্য সংরক্ষণের জন্য বাড়ছে মাইক্রো এসডি কার্ডের চাহিদা। উভয় প্রতিষ্ঠানের মাইক্রোএসডি কার্ডে তথ্য আদান-প্রদানে দ্রুত গতি মিলবে।
ওয়্যারলেস হেডফোন

একগুচ্ছ স্মার্টফোনের পাশাপাশি এসবিএইচ৮২ডি ওপেন ইয়ার ওয়্যারলেস হেডফোন উন্মোচন করে সনি। ডিভাইস জোড়ার সক্রিয় নয়েজ ক্যান্সেলেশন প্রযুক্তি যেকোনো পরিবেশে অডিও শুনতে কাজে দেবে। বিশেষ করে ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশে গান শুনতে এ হেডফোন নতুন অভিজ্ঞতা দেবে বলে দাবি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটির।

স্যামসাং গ্যালাক্সি বাডস

কংগ্রেসে প্রদর্শিত স্মার্ট ডিভাইসের মধ্যে নজর কাড়ে খুবই ছোট আকারের তারবিহীন ইয়ার বাডস। তিন রঙে পাওয়া যাচ্ছে এই ইয়ারবাডসগুলো। ইয়ার বাডসের সাথে আরো নানা ধরনের উপকরণ দেয়া আছে। ইয়ারবাডসগুলো স্যামসাং ক্রাডল চার্জিং কেসের মাধ্যমে চার্জ করতে হবে।

স্মার্টওয়াচ

প্রদর্শনীতে নান্দনিক নকশা ও আরামদায়ক অ্যালুমিনিয়াম বডির স্মার্টওয়াচ গ্যালাক্সি ওয়াচ অ্যাকটিভ নিয়ে আসে স্যামসাং। এতে আছে ২৩০ মিলি অ্যাম্পআওয়ার ব্যাটারি। এটি তারবিহীনভাবে চার্জ করা যায়। গ্যালাক্সি এস ১০ ফোনের মাধ্যমে চার্জ শেয়ারও করা যায়।

বাঁকযোগ্য স্মার্টওয়াচ

প্রযুক্তিবিশ্ব এরই মধ্যে ফোল্ডেবল স্মার্টফোন দেখেছে। এমডবিøউসিতে বিশ্বের প্রথম ৪ ইঞ্চি ডিসপ্লের বাঁকানো যায় এমন স্মার্টওয়াচ উšে§াচন করেছে চীনের জেডটিই মোবাইল কোম্পানির সহযোগী প্রতিষ্ঠান নুবিয়া। অর্গানিক লাইট-এমিটিং ডায়োড বা ওএলইডি ফ্লেক্সিবল ডিসপ্লের এ স্মার্টওয়াচে একটি ক্যামেরা আছে। তাই এটিকে ঘড়ি বলা হলেও কিন্তু আসলে একটি ছোটখাটো স্মার্টফোন।

ফিটবেল্ট

স্বাস্থ্য সচেতন ব্যক্তিদের জন্য স্যামসাং প্রদর্শন করে তাদের ফিটনেস ট্র্যাকার স্মার্টওয়াচ স্যামসাং গ্যালাক্সি ফিট। এর ওজন মাত্র ২৩ গ্রাম। এটি মজবুত এবং ওয়াটার রেজিস্ট্যান্ট। এতে আছে কালার এএম ও এলইডি ডিসপ্লে। একবার চার্জ দিলে পুরো এক সপ্তাহ চলে।

হাইসেন্স ইউ থার্টি হ্যান্ডসেট

হাইসেন্স চীনের একটি বহুজাতিক প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান। এবারের মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে প্রতিষ্ঠানটি তাদের ইউ থার্টি স্মার্টফোন নিয়ে আসে। এতে আছে ৬.৩ ইঞ্চির আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে, যেটি ফুল এইচডি সাপোর্ট করে।

ব্লকচেইন স্মার্টফোন

এইচটিসি তাইওয়ানের বিখ্যাত স্মার্টফোন নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান। এইচটিসি একসোডাস ব্লকচেইন স্মার্টফোনের বিশেষত্ব হচ্ছে এতে বিল্টইন ক্রিপটো কারেন্সি ওয়ালেট আছে। পেছনে একটি ১২ মেগাপিক্সেল এবং ১৬ মেগাপিক্সেলের দুটি ক্যামেরা। সামনে ৮ মেগাপিক্সেলের দুটি ক্যামেরা। এতে ব্লক ফোলিও নামে একটি অ্যাপ্লিকেশন আছে, যার মাধ্যমে ক্রিপটোকারেন্সি ক্রেতা তার কারেন্সির দাম উঠানামা করলে জানতে পারবে।
এসএপিএসইর লিওনার্ডো ইন্টারনেট অব থিংস
এসএপিএসই একটি জার্মানভিত্তিক ইউরোপীয় বহুজাতিক কোম্পানি, যারা এন্টারপ্রাইজ সফটওয়্যার তৈরি করে থাকে। এবারের মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে প্রতিষ্ঠানটি তাদের লিওনার্ডো ইন্টারনেট অব থিংস (আইওটি) উন্মোচন করেছে। এছাড়া প্রতিষ্ঠানটি মাইক্রোসফটের সাথে তাদের পার্টনারশিপ ঘোষণা করে। এর আওতায় এসএপিএসআই লিওনার্ডো আইওটি এবং মাইক্রোসফটের অ্যাজুর আইওটি হাব একসাথে কাজ করবে।
কংগ্রেসে সনি এক্সপেরিয়া ওয়ান

সনি এক্সপেরিয়া ওয়ান স্মার্টফোনের মূল বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এটি লম্বাটে ধরনের। অন্যান্য স্মার্টফোনের মতো চওড়া নয়। এর আকার ১৬৭ মিমি বাই ৭২ মিমি বাই ৮.২ মিমি। ওজন ১৮০ গ্রাম। সামনে ও পেছনে গরিলা গ্লাস এবং অ্যালুমিনিয়ামের ফ্রেম। এর পেছনে আছে তিনটি ১২ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা, এলইডি ফ্যাশ এবং সামনে ৮ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। এতে আরো আছে ৬.৫ ইঞ্চির ওএলইডি ক্যাপাসিটিভ টাচস্ক্রিন। র‌্যাম ৬ জিবি এবং ৩৩০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ার ব্যাটারি।
অপ্পো টেন এক্স লস লেস জুম ক্যামেরা স্মার্টফোন
নতুন কোনো ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন নয়, ১০ গুণ জুম লেন্স নিয়ে এবারের কংগ্রেসে হাজির হয় অপ্পো। ধারণা করা হচ্ছে, কিউ২ ডিভাইসটিতে আসতে পারে এই নতুন প্রযুক্তির লেন্স। স্মার্টফোনে এই উচ্চপ্রযুক্তির ক্যামেরা ব্যবহার করা যাবে। অনেক দিন ধরেই প্রতিষ্ঠানটি কাজ করে যাচ্ছে উন্নত ক্যামেরার। এ ক্ষেত্রে ফোনে ব্যবহার হবে পরপর তিনটি ক্যামেরা।

এক্সপেরিয়া টেন

এতে আছে ৮.১ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা এবং ৪.১ ইঞ্চির টাচস্ক্রিন। ডিজাইনও খুবই চমৎকার। এই হ্যান্ডসেটে প্রথমবারের মতো ৬ ইঞ্চির ২১:৯ আসপেক্ট রেশিওর ফুল এইচডি এবং এলসিডি ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে। পেছনে আছে একটি ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা এবং ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। অ্যান্ড্রয়েড ৯.০ ওএস সাপোর্ট করে।

এক্সপেরিয়া টেন প্লাস

এই স্মার্টফোনে ৬.৫ ইঞ্চির ২১:৯ অ্যাসপেক্ট রেশিওর ফুল এইচডি এবং এলসিডি ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে। ফোনের পাশে আছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড ৯.০। পেছনে আছে ১২ মেগাপিক্সেল এবং ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। সামনে ৮ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা।

ফিরেছে নকিয়া

সদ্য সমাপ্ত মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে মহাসমারোহে ফিরেছে নকিয়া। ৯ পিওরভিউ ছাড়াও অবমুক্ত করে নকিয়া থ্রি ও ফোর পয়েন্ট টু।

৯ পিওরভিউ

এবারের কংগ্রেসে নকিয়ার নতুন স্মার্টফোন ‘নোকিয়া ৯ পিওরভিউ’ প্রদর্শন করে এইচএমডি গ্লোবাল। অন্য মাল্টিক্যামেরা স্মার্টফোনের মতোই নকিয়া পিওরভিউ ৯-এর প্রতিটি ক্যামেরা ১২ মেগাপিক্সেল সেন্সর এবং এফ/১.৮ অ্যাপারচারের লেন্স রয়েছে।

ফোনটির প্রতিটি ক্যামেরা আলাদাভাবে ছবি শুট করবে এবং শেষে সবগুলোকে একত্র করে একটিমাত্র ছবি প্রকাশ করবে, যা হবে অত্যধিক নিখুঁত। বলা যেতে পারে, এটি এমন একটি স্মার্টফোন ক্যামেরা, যা ছবির ডিটেইলস এবং কালারে এক নতুন মাত্রা যোগ করবে।

ইন্টেল

রাজস্ব বিবেচনায় বিশ্বের বৃহৎ চিপ নির্মাতা ইন্টেল এমডব্লিউসিতে নতুন ফাইভজি চিপের ঘোষণা দিয়েছে, যা ফাইভজি নেটওয়ার্কসংশ্লিষ্ট ডিভাইস তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা রাখবে। এ ছাড়া প্রদর্শনীতে ফাইভজি বেস স্টেশনের জন্য ফ্ল্যাগশিপ প্রসেসর উন্মোচন করেছে ইন্টেল। এমডব্লিউসিতে নিজেদের ফাইভজি নেটওয়ার্ক গিয়ারে ইন্টেল প্রসেসর ব্যবহারের লক্ষ্যে একটি চুক্তির ঘোষণা দিয়েছে এরিকসন ও জেডটিই।

মাইক্রোসফট

এমডব্লিউসিতে দ্বিতীয় প্রজেক্টের মিক্সড রিয়েলিটি হেডসেট ‘হলোলেন্স ২’ উন্মোচন করেছে মাইক্রোসফট। এ হেডসেট শুধু বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলোয় ব্যবহার করা যাবে। প্রদর্শনীতে কোন ধরনের শিল্পে এ হেডসেট ব্যবহার করা যাবে, তার নমুনা দেখিয়েছে মাইক্রোসফট। হলোলেন্স ২ যন্ত্রপাতি মেরামত, গাড়ি নির্মাণ শিল্প ও চিকিৎসা খাতে ব্যবহার করা যাবে
মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে বাংলাদেশ
বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে এবার কংগ্রেসে অংশ নেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের নেতৃত্বে ৯ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল। প্রতিনিধিদলে ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো: মহিবুর রহমান, বিটিআরসি চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হক, টেলিটক ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: শাহাব উদ্দিন, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের উপসচিব উর্মী তামান্না, মন্ত্রীর একান্ত সচিব মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান, টেলিযোগাযোগ অধিদফতরের পরিচালক মো: তাসকিনুর রহমান, বিটিআরসির উপ-পরিচালক খালেদ ফয়সাল, মো: সোহেল রানা, বিআইএমইই’র সহ-প্রতিষ্ঠাতা বিজয় জব্বার এবং অ্যামটবের সাবেক মহাসচিব টিআইএম নূরুল কবীর।

মন্ত্রিসভায়...

বাংলাদেশ নিয়মিত এমডব্লিউসিতে অংশগ্রহণ করলেও প্রথমবারের মতো এবারের মিনিস্ট্রিয়াল কনফারেন্সে কীনোট উপস্থাপন করেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন ‘মোবাইল ইনফ্রাস্ট্রাকচার : ইজ ইউর পলিসি ফিট ফর পারপাস?’ শিরোনামে কীনোট উপস্থাপন করেন তিনি। ডিজিটাল টেকনোলজিকে ব্যবহার করে বাংলাদেশে যে উন্নয়নের ধারাগুলো বাস্তবায়ন হচ্ছে, সেগুলো তিনি তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন। এ সময় তিনি জানান, ২০২১ থেকে ২০২৩-এর মধ্যে দেশে ফাইভজি চালু করতে সব রকম প্রস্তুতি নিয়েছে সরকার। এজন্য তিনি প্রযুক্তিগত সক্ষমতা তৈরি, কৌশলগত পরিকল্পনা, পারস্পরিক সহযোগিতা ও সমন্বয় প্রয়োজনের ওপর জোর দেন। তিনি ফাইভজির জন্য ইকোসিস্টেম তৈরিতে মোবাইল যোগাযোগ ও প্রকৌশল খাত সংশ্লিষ্ট সবাইকে দেশে স্বাগত জানান।

এছাড়া জিএসএমএ’র সাথে বৈঠকে বাংলাদেশের লাইসেন্সিং ফ্রেমওয়ার্ক, রেগুলেটরি ও বাংলাদেশের টেলিকমিউনিকেশন পলিসি নিয়ে আলোচনা করেন মন্ত্রী। পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের সাথে বৈঠক করেন। সেখানে ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে তিনি বাংলাদেশের ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন সম্পর্কে কথা বলেন এবং তা ধরিয়ে দেন। ফেসবুকের সাথে আলোচনায় তিনি বাংলাদেশে অফিস খোলার জন্য বলেন। আর ভ্যাট-ট্যাক্সের বিষয় নিয়েও অবগত করেন। যাতে ফেসবুক বাংলাদেশে অফিস খোলার বিষয়টি গুরুত্বসহকারে ভেবে দেখবে বলে জানায়। আরেকটি সভায় প্রতিনিধিদলটি আইক্যানের সাথে আলোচনায় বসেন। সেখানে ইউনিকোডে বাংলা ভাষার রীতি যে মানা হয়নি তাতে আইক্যানের পূর্ণ সমর্থন আদায় করতে সক্ষম হয় বাংলাদেশ। মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে অংশ নিয়েছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকও। তিনি কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের সাথে বৈঠক করে দেশে বিনিয়োগের ব্যাপারে বলেন। প্রতিষ্ঠানগুলো দেশে বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করেছে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।

ফেসবুকের সাথে বৈঠক

বার্সেলোনায় মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে ফেসবুক প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠকে পর্নোগ্রাফি, পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস, প্রোপাগান্ডাসহ নানাবিধ নিরাপত্তা বিষয়ে ফেসবুক কর্তৃপক্ষকে বাংলাদেশের রেগুলেশন মেনে নিরাপদে এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারের ব্যবস্থা করার আহ্ববান জানান ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। মন্ত্রী তাদের আবহমান বাংলার চিরায়ত সংস্কৃতি, মূল্যবোধ এবং নিয়মনীতি স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন বাংলাদেশে আইন আছে, সেই আইন মোতাবেক ফেসবুককে কনটেন্ট এবং অন্যান্য বিষয়গুলো বাস্তবায়ন করতে হবে। আমাদের দেশ, আমাদের সমাজ-আমাদের নাগরিকদের ফেসবুকের নিরাপদ ব্যবহারের সুযোগ দিতে হবে।

বৈঠকে ফেসবুক গ্লোবাল পলিসি সলিউশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট রিচার্জ অ্যালান এবং সাউথ এশিয়ার হেড অব পলিসি অশ্বিনী রানা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ মন্ত্রীর কাছে কনটেন্ট প্রকাশে তাদের গ্লোবাল স্ট্যান্ডার্ডের বিষয়টি তুলে ধরে। সেই সাথে তারা বাংলাদেশের আইনি কাঠামো ও সংস্কৃতি মেনে চলারও প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করে।
ইউনিকোডে বাংলা রীতিতে আইক্যানের পূর্ণ সমর্থন
ইউনিকোডে বাংলা ভাষার জাতীয় স্ট্যান্ডার্ড মানা নিয়ে আইক্যানের পূর্ণ সমর্থন পেয়েছে বাংলাদেশ। আন্তর্জাতিক ডোমেইন ব্যবস্থাপনা নিয়ন্ত্রক সংস্থার শীর্ষ কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠকে এই সমর্থন আদায় করেন টেলিকমমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

ওই বৈঠকে আইক্যানের প্রেসিডেন্ট ও সিইও গোরান মারবাই এবং চিফ টেকনিক্যাল অফিসার ডেভিড কনার্ডসহ শীর্ষপর্যায়ের প্রতিনিধিরা এবং বাংলাদেশের দলে বিটিআরসি চেয়ারম্যান মো: জহুরুল হক, টেলিকম বিশেষজ্ঞ টিআইএম নূরুল কবীর উপস্থিত ছিলেন।
এ বিষয়ে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘আইক্যান আমাদের মতের সাথে একমত হয়েছে। আইক্যানের প্রেসিডেন্ট বলেছেন, সবারই উচিত জাতীয় মান অনুসরণ করা। তারা আমাদের পূর্ণ সমর্থন দিয়েছেন।’ আইক্যানের সিইও বলেছেন, ‘ইউনিকোড কনসোর্টিয়ামকে তারা চিঠি দিয়ে বাংলাদেশের সমর্থনের কথা জানাবেন।’ আর আইক্যানের সমর্থনের মানে হলো ইন্টারনেট ডোমেইনে যে সঙ্কটটি ছিল, তা দূর করে ফেলতে পারব।

নূরুল কবীর জানিয়েছেন, উদ্ভূত সমস্যা নিয়ে গত এক বছর ধরে আইক্যানের সাথে বৈঠক-ডিসকাশন হয়ে আসছে। কিন্তু এটা সমাধানের দিকে এগোচ্ছিল না। তিনি জানান, ‘বার্সেলোনার বৈঠকে আইক্যানের প্রেসিডেন্ট ও সিইও এবং সিটিও একবাক্যে জানিয়েছেন তারা বাংলাদেশের স্ট্যান্ডকে সমর্থন দেবেন। প্রয়োজনে ইউনিকোডের কাছে ব্যক্তিগতভাবে বাংলাদেশের দাবির বিষয় জোর সমর্থন জানাবেন।’ ইউনিকোডে বাংলার কী দাবি আর কী সমস্যা তার বিস্তারিত ব্যাখ্যা করেন মোস্তাফা জব্বার। মন্ত্রী জানান, আমাদের দুই-তিনটা ইস্যু ছিল, যে জায়গাগুলোতে ইউনিকোডের সাথে আমাদের সমস্যা। ‘ইউনিকোড কনসোর্টিয়াম শুরু হয় ১৯৮৭ সালে। আমরা এই কনসোর্টিয়ামে ঢুকেছি ২০১০ সালে। ফলে এই ২৩ বছরে বাংলাদেশের কোনো প্রতিনিধিত্ব ছিল না। ফলে বাংলাদেশের যে ইস্যুগুলো ছিল তা সিরিয়াসলি আনঅ্যাড্রেস ছিল।’

টেক মাহিন্দ্রার বিনিয়োগ সম্ভাবনা

যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে এবার স্পেনের বার্সেলোনায় মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। এমডব্লিউসি আয়োজনের প্রথম দিনেই পলক টেক মাহিন্দ্রার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী সিপি গুরনানির সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে টেক মাহিন্দ্রাকে বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্ববান জানান মন্ত্রী। এছাড়া কংগ্রেসে অংশ নেয়া আইসিটি ও টেলিকম খাতের বিশ্বব্যাপী চীনভিত্তিক বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান জেডটিইর চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার জু জিয়া ইয়াং এবং সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট জং হুয়াসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করেন তিনি।

রিভের ১১তম অংশগ্রহণ

স্পেনের বার্সেলোনায় মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে একাদশ বারের মতো অংশ নেয় বাংলাদেশি বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান রিভ সিস্টেমস। রিভ সিস্টেমসের প্রধান কার্যালয় সিঙ্গাপুরে এবং গবেষণা ও উন্নয়ন কেন্দ্র বাংলাদেশ ও ভারতে। বর্তমানে বিশ্বের ৭৮টির বেশি দেশে রিভ সিস্টেমস উদ্ভাবিত বিভিন্ন আইপি পণ্য ও সেবা এক যুগেরও বেশি সময় ধরে ব্যবহার হচ্ছে।

স্মার্টফোন কিনতে রবির ঋণচুক্তি

স্মার্টফোন কিনতে গ্রাহকদের জন্য ঋণ সুবিধা চালু করতে কমভিভার ফিনটেক কোম্পানি ইয়াবেএক্সের সাথে একটি চুক্তি করেছে রবি। বার্সেলোনায় অনুষ্ঠিত মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে রবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মাহতাব উদ্দিন আহমেদ এবং ইয়াবেএক্সেও প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী রজত দয়াল নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সমঝোতা চুক্তি সই করেন।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে রবির চিফ ডিজিটাল সার্ভিসেস অফিসার শিহাব আহমেদ, চিফ টেকনোলজি অ্যান্ড ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন অফিসার মেধাত আল হুসেইনি, ডিজিটাল সার্ভিসের এক্সকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট আহমেদ আরমান সিদ্দিকী, টেকনোলজি অপারেশনসের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট সরকার সোহেল আহমেদ, কমভিভার গ্লোবাল মার্কেট ইউনিটের ভাইস প্রেসিডেন্ট রেমাস তেওদোরেসকু ও চিফ মার্কেটিং অফিসার সুরদীপ ভার্মা উপস্থিত ছিলেন।

মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসের রাজধানী হিসেবে বার্সেলোনা এখন বিশ্বময় পরিচিত। শহরটিতে ২০০৬ সাল থেকে নিয়মিত মোবাইল কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। ২০১৮ সাল পর্যন্ত বার্সেলোনায় এ মোবাইল কংগ্রেস হওয়ার কথা থাকলেও ২০১৫ সালে ফিরা বার্সেলোনার সাথে এক চুক্তিপত্রের মাধ্যমে ২০২৩ সাল পর্যন্ত তা বর্ধিত করেছে। চার দিনের এ মোবাইল কংগ্রেস ঘিরে প্রতিবছরই পর্যটকদের পদচারণায় বার্সেলোনা শহরের ব্যস্ততা বেড়ে যায়। অন্য সবার মতো প্রবাসী বাংলাদেশিদের ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানেও ইতিবাচক অর্থনৈতিক প্রভাব পড়ে
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
২০১৯ - মার্চ সংখ্যার হাইলাইটস
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস