• ভাষা:
  • English
  • বাংলা
হোম > করোনার সময়ের লেখাপড়া
লেখক পরিচিতি
লেখকের নাম: মো: আবদুল ওয়াজেদ
মোট লেখা:২৮
লেখা সম্পর্কিত
পাবলিশ:
২০২০ - জুন
তথ্যসূত্র:
কমপিউটার জগৎ
লেখার ধরণ:
প্রশিক্ষণ কোর্স
তথ্যসূত্র:
প্রযুক্তি ধারা
ভাষা:
বাংলা
স্বত্ত্ব:
কমপিউটার জগৎ
করোনার সময়ের লেখাপড়া
করোনার সময়ের লেখাপড়া

এরই মধ্যে বেশ কয়েক মাস কেটে গেল করোনা প্রভাবের মধ্য দিয়ে। এখনো এর প্রভাব থামার
কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। বর্তমান বছরের প্র ম ৬ মাস প্রায় শেষের পথে। বলা যায়, এই
ছয় মাস দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো পুরোপুরি বন্ধ রয়েছে। শিগগিরই এগুলো খোলার সম্ভাবনা খুব
কম। এমনি অবস্থায় কিছু কিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান তাদের শিক্ষাদানের পদ্ধতি পরিবর্তন করেছে। এসব
প্রতিষ্ঠানে এখন চলছে ভার্চ্যুয়াল টিচিং। তারা অনলাইনের মাধ্যমে তাদের শিক্ষাদান চালু রাখতে
চেষ্টা করছে। কিন্তু এটি উপেক্ষা করা যাবে না ভৌত ক্লাসের অভিজ্ঞতা কখনই প্রতিস্থাপিত করা
যাবে না ভার্চ্যুয়াল ক্লাসের অভিজজ্ঞতা দিয়ে। কারণ, ভার্চ্যুয়াল ক্লাসের মাধ্যমে ভৌত ক্লাসের মতো
ছাত্রদের শিক্ষাদানে সম্পৃক্ত করা ও মিথস্ক্রিয়া সম্পনড়ব করা যায় না। তাই ভার্চ্যুয়াল টিচিং পুরোপুরি
কোনো সমাধান নয়। তা হতে পারে মন্দের ভালো সাময়িক কোনো সমাধান।

এদিকে বাংলাদেশে করোনার কারণে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে
একটি শিক্ষাবর্ষ হারিয়ে ফেলার। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দীর্ঘদিন থেকে বন্ধ থাকা এবং পাবলিক পরীক্ষা
স্থগিত রাখার কারণে এই ঝুঁকি সৃষ্টি হয়েছে। এমনি প্রেক্ষাপটে বিশেষজ্ঞদের কারও কারও পরামর্শ
হচ্ছেÑ চলমান লকডাউনের সময়ে কৌশলগতভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো আবার খুলে দেয়া। কারণ,
এর ফলে অভিভাবকেরা তাদের প্রতিপাল্যের শিক্ষার ব্যাপারে কিছুটা হলেও স্বস্তি পাবেন। আর্থিক
দিক থেকেও তারা উপকৃত হবেন। বর্তমানে ১ কোটি ৭২ লাখ শিক্ষার্থী রয়েছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।
এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয় ১৬ লাখ ৩৫ হাজার ২৪০। এরই মধ্যে তাদের ফল প্রকাশ
করা হয়েছে। উত্তীর্ণরা অপেক্ষা করছে কলেজে ভর্তির জন্য। প্রায় ১০ লাখ এইচএসসি পরীক্ষার্থী
কয়েক মাস ধরে অপেক্ষার দিন গুনছে ফাইনাল পরীক্ষার জন্য।
পত্রিকায় লেখাটির পাতাগুলো
লেখাটি পিডিএফ ফর্মেটে ডাউনলোড করুন
লেখাটির সহায়ক ভিডিও
চলতি সংখ্যার হাইলাইটস